TMC MLA
ছবি: প্রতিবেদক

শুভদীপ চৌধুরী, পুরুলিয়া: জেলায় বান্দোয়ান কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক রাজীবলোচন সোরেন লাঙল-বলদ নিয়ে মাঠে নামলেন । বিধায়ক হলেও জমিতে কৃষিকাজ তিনি ছাড়তে চান না।

রাজীবলোচনবাবু চাষির ঘরের ছেলে, ফলে চাষ করা তাঁর কাছে কোনও নতুন বিষয় নয়। সাত বছর বয়স থেকে পরিবারের সদস্যদের হাত ধরে গোরু আর লাঙল নিয়ে চাষের ময়দানে নেমেছিলেন তিনি । বর্তমানে তিনি বান্দোয়ানের তৃণমূল বিধায়ক। তাই বলে চাষাবাদ ছাড়েননি। তিনি শুধু একা নন, সঙ্গে তাঁর স্ত্রী পুরুলিয়ার জেলা পরিষদের তৃণমূলের জয়ী প্রার্থী প্রতিমা সোরেনও স্বামীর সঙ্গে চাষের কাজে যোগ দেন প্রতি বছর।

TMC MLA
ছবি: প্রতিবেদক

রাজীবলোচনবাবু বলেন, “আমাদের ১৪ বিঘার মতো জমি আছে, আমরা সব জমিতেই চাষের কাজ করি । এক দাদা নিজে চাষের কাজ দেখলেও, আর এক দাদার জমির চাষ আমি করি । ফলে, আমরা সকলেই চাষের কাজ করি আর এটা এমন নতুন কোনও খবর নয় । পরিবারের এই চাষের জমির দেখভাল সকলে মিলেই করি । আমি বিধায়ক হলেও, আগে চাষির ছেলে । ফলে চাষ করাটা আমার কাছে তেমন নতুন কোনও ব্যাপার না”।

TMC MLA
ছবি: প্রতিবেদক

বিধায়ক বলেন, “বান্দোয়ানের কুমারী, বসন্তপুর ও চিরুগোড়া মৌজা মিলিয়ে প্রায় ১৪ বিঘা জমি রয়েছে আমাদের । আগে এই জমিতে ভুট্টা চাষ করতাম, পরে এখানে ধানের চাষ শুরু করেছি ।”

আরও পড়ুন: মমতার ‘গৃহযুদ্ধ’ পুঁথিগত মান্যতা না পেলেও নাগরিকপঞ্জি নিয়ে বিজেপির উৎফুল্ল হওয়ার কারণ নেই

গ্রামে গিয়ে দেখা গেল আর পাঁচজন কৃষকের মতোই নিজে জমিতে নেমে চাষের কাজ করছেন বিধায়ক রাজীবলোচনবাবু । লাঙল দেওয়া থেকে ধান রোয়া— সব কাজ বিধায়ক ও পরিবারের অন্য সদস্যরা করছেন । বিধায়ক বলেন, “আমার চাষের কাজ খুব ভাল লাগে, তাই বছরের ধান লাগানোর সময় ঠিক নিজের কাজে চলে আসি” ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here