খাবার পরিবেশন করছেন শিক্ষকেরা।

শুভদীপ চৌধুরী, পুরুলিয়া: রোগীরা ভর্তি থাকেন হাসপাতালে, তাঁদের খাবার জোগান দেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ । কিন্তু রোগীর পরিবারের লোকেদের পাতের দিকে খেয়াল রাখেন কত জন?

তাই এ বার ব্যাক্তিগত উদ্যোগে রঘুনাথপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের সামনে রোগীর পরিবারের জন্য ৫ টাকা প্রতি প্লেটে দুপুরের খাবার ঘর থেকে তৈরি করে রোগীর পরিবারকে স্বল্প মূল্যে খাওয়ানোর উদ্যোগ নিলেন তিন শিক্ষক। হরিহরপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পরিমল মণ্ডল, নিগমনগর উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বীরেশচন্দ্র লায়েক ও মাহাতো গঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সজল মাজীরা দায়িত্ব নিয়েছেন ৫ টাকায় দুপুরে ভাত, ডাল, তরকারি ও চাটনি বানিয়ে রোগীর বাড়ির লোকেদের মুখে যাতে দু’টো অন্ন তুলে দেওয়া যায় সেই প্রচেষ্টাতেই।

এ দিন পরিমলবাবুরা জানান, “সম্প্রতি লোকসভা নির্বাচনের কাজে বলরামপুরে ডিউটি করতে গিয়ে পকেটে পয়সা থাকলেও সামনাসামনি দোকান না-থাকার জন্য অভুক্ত থাকতে বাধ্য হয়েছি আর সেই খিদের জ্বালা আমাদের প্রেরণা জুগিয়েছে এই কাজে নামতে। কারণ খিদের জ্বালা যে ভাবে রোগীর বাড়ির লোকেরা সহ্য করেন, তা বুঝতে পেরেছি । অনেকের কাছে হয়তো টাকা থাকলেও খাবার অনেক নিম্নমানের হওয়ার জন্য অভুক্ত থাকতে হয় সারাদিন, অনেকের কাছে আবার টাকা না-থাকার কারণে খাবার না-মেলায় খিদের জ্বালায় ভুগতে হয়। তাই মানুষের কথা ভেবেই এই উদ্যোগ”।

কিন্তু কত দিন চলবে এই উদ্যোগ? তিনি বলেন, “গ্রীষ্মের ছুটি যত দিন চলবে তত দিন পর্যন্ত এ ভাবেই মানুষকে সেবা করতে পারব বলে আশা রাখছি”।

[ উচ্চ মাধ্যমিকের পরে: পড়তে পারো নার্সিং ]

ভবিষ্যতের কথা বলতে গিয়ে তিনি জানান, ইতিমধ্যেই তাঁদের এই কাজে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বেশ কয়েকজন। এ ভাবে সহযোগিতা পেলে হয়তো তাঁদের এই উদ্যোগ দীর্ঘমেয়াদি সাফল্য পাবে ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here