rain

ওয়েবডেস্ক: আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের রীতিমতো ঘোল খাওয়াচ্ছে বঙ্গোপসাগর। নভেম্বরের শুরুতে ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কা থাকলেও তা আসেনি। বৃষ্টিতে ভেসেছে চেন্নাই-সহ দক্ষিণ ভারত। তবে এ বার কিন্ত বেশ ভালো বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে গোটা রাজ্যের ক্ষেত্রেই। বৃষ্টির দাপট দক্ষিণবঙ্গের তুলনায় বেশি থাকলেও উত্তরবঙ্গেও বৃষ্টির সম্ভাবনা ষোলো আনা। এই বৃষ্টির পরেই খুলতে পারে শীতের দরজা।

এ বার বর্ষা-পরবর্তী মরশুম বড়োই খামখেয়ালি। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের ক্ষেত্রেও সঠিক ভাবে পূর্বাভাস দেওয়া সম্ভব হচ্ছিল না। তাই নভেম্বরের শুরুতে ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কা করা হলেও তা আসেনি। তবে এ বার যেটা আসবে সেটা ঘূর্ণিঝড় নয়, গভীর নিম্নচাপের মতো কিছু একটা হতে পারে।

এই মুহূর্তে তামিলনাড়ু উপকূলের কাছে একটি নিম্নচাপ রয়েছে। আগামী দু’দিনের মধ্যে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে আরও একটি নিম্নচাপের সৃষ্টি হবে। দু’টি নিম্নচাপ এক হয়ে শক্তি বাড়াতে পারে, এমনই মনে করেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। তাঁর কথায়, “দু’টো নিম্নচাপ এক হয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে ওড়িশা উপকূলের দিকে এগিয়ে আসবে। শুক্র-শনিবার নাগাদ সেটি ওড়িশা উপকূল গিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে। প্রবেশ করার সময়ে আরও কিছুটা শক্তি বাড়াতে পারে এই নিম্নচাপ।”

এই নিম্নচাপের প্রভাবে বুধবার থেকেই দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন অংশে বৃষ্টি শুরু হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। বিক্ষিপ্ত ভাবে ভারী বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা থাকলেও অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে বৃষ্টির সঙ্গে জোরদার হাওয়া বইবে বলে মনে করছেন তিনি। এর ফলে শীতের আগে নকল ‘শীত’ও অনুভূত হতে পারে বলে মনে করছেন এই আবহাওয়াবিদ।

সামনের সপ্তাহের শেষ দিকে, অর্থাৎ ১৯ নভেম্বর থেকে এই নিম্নচাপের পরোক্ষ প্রভাব পড়তে পারে উত্তরবঙ্গে। তবে সেখানে বিক্ষিপ্ত ভাবে হালকা বৃষ্টির বেশি কিছু হওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন না রবীন্দ্রবাবু। তবে সিকিম এবং রাজ্যের সান্দাকফু-ফালুটে বিক্ষিপ্ত ভাবে তুষারপাত হতে পারে।

এ দিকে ডেঙ্গির আতঙ্ক আস্তে আস্তে কাটাতে শুরু করা বঙ্গবাসীর কাছে ফের দুশ্চিন্তা নিয়ে আসতে পারে এই ভেজা আবহাওয়া। তার পরিপ্রেক্ষিতে আবারও মশার বিরুদ্ধে সাবধানতা গ্রহণ করাই শ্রেয়। তবে এই বৃষ্টিপর্ব মিটে গেলে, ঢুকে পড়বে উত্তরে হাওয়া, কমতে শুরু করবে তাপমাত্রা।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here