Connect with us

রাজ্য

রবিবার থেকে আবহাওয়ার উন্নতি, দোল পেরিয়ে ফের ঝড়বৃষ্টি?

খবর অনলাইনডেস্ক: বসন্তে একঘেয়েমি বৃষ্টি কারই বা ভালো লাগে! তার ওপর যদি শিয়রে দোল উৎসব হয় তা হলে তো কথাই নেই! গরমকালের বৈশিষ্ট্য সন্ধ্যার কালবৈশাখী। কিন্তু গত কয়েক দিন যে ভাবে দফায় দফায় বৃষ্টি দেখছে গোটা রাজ্য, সেটা কার্যত বর্ষার আবহাওয়াকেই মনে করিয়ে দেয়।

মাঝেমধ্যেই ঘ্যানঘ্যানানি বৃষ্টির এই পরিস্থিতি অবশেষে কাটতে চলেছে। রবিবার সকাল থেকে মেঘমুক্ত আকাশ দেখতে পাবে কলকাতা-সহ গোটা গোটা দক্ষিণবঙ্গ। সোমবার দোলের দিন আবহাওয়া আরও বেশি ঝলমলে থাকবে। কিন্তু দোলের সময়টা পার করে ফের বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হবে রাজ্যে, বিশেষ করে দক্ষিণবঙ্গে।

বুধবার থেকেই দফায় দফায় বৃষ্টি হয়েছে গোটা রাজ্যে। এর মধ্যে বার দুয়েক কালবৈশাখীও দেখে ফেলেছে দক্ষিণবঙ্গ। কিন্তু শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত যা বৃষ্টি হয়েছে, এমন বৃষ্টি এই বসন্তে দেখা যায় না।

গত ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গে গড় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ প্রায় তিরিশ মিলিমিটার। এর মধ্যে আসানসোলে বৃষ্টি হয়েছে সব থেকে বেশি (৪১ মিমি)। জোরদার বৃষ্টি হয়েছে পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বর্ধমান, ঝাড়গ্রাম, দিঘা, বহরমপুর, কৃষ্ণনগরেও। কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয় ১৭ মিমি।

এই জোরালো বৃষ্টির জেরে গত ১ মার্চ থেকে শনিবার পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ স্বাভাবিকের থেকে বিপুল পরিমাণে বেশি। কলকাতায় তো বৃষ্টির পরিমাণ ৪৫৯ শতাংশ বেশি। বর্ধমানে বৃষ্টি বেশি হয়েছে ১৫১৩ শতাংশ। বাঁকুড়া, পুরুলিয়া বৃষ্টি বেশি হয়েছে যথাক্রমে ৫০১ ও ৪৬৯ শতাংশ।

এই জোর বৃষ্টির জেরে চাষাবাদেও ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে শিলাবৃষ্টি খুব একটা হয়নি বলেই কিছুটা বাঁচোয়া।

তবে রবিবার সকাল থেকেই পরিষ্কার আকাশ দেখা যাবে দক্ষিণবঙ্গের সর্বত্র। যদিও তার আগে শনিবার রাতের দিকে দু’এক পশলা হালকা বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর পরেই বায়ুমণ্ডলে থাকা জলীয় বাষ্প বিদায় নেবে। আর তার জেরেই কিছুটা হলেও উত্তুরে হাওয়া ঢুকে পড়বে।

আরও পড়ুন ফের বরফে ঢাকল সান্দাকফু-ফালুট, উত্তরবঙ্গের বাকি অঞ্চলে জোর বৃষ্টি

এই উত্তুরে হাওয়া ঢুকে যাওয়ার ফলে আবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কিছুটা কমার সম্ভাবনা রয়েছে। কলকাতায় তাপমাত্রা কমে ১৮ ডিগ্রি হতে পারে। রাজ্যের বাকি জায়গায় তা ১৫-১৬ ডিগ্রিতে নেমে যেতে পারে।

তবে আগামী সপ্তাহের বুধবার আর বৃহস্পতিবার ফের বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গ। তার নেপথ্যেও পশ্চিমী ঝঞ্ঝা আর জলীয় বাষ্পের সংমিশ্রণ। তবে এই ক’দিন যে পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে, আগামী সপ্তাহে ততটা হয়তো হবে না। যদিও এই বৃষ্টির কারণেই আপাতত তাপমাত্রার খুব একটা বাড়ারও সম্ভাবনা নেই।

উঃ দিনাজপুর

বিজেপি বিধায়কের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি খুন

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, “এই খুনের পেছনে তৃণমূল রয়েছে। ওরাই খুন করে দেহকে এমন ভাবে ঝুলিয়ে দিয়েছে যাতে মনে হয় এটা আত্মহত্যা।

রায়গঞ্জ: রহস্যজনক ভাবে মৃত্যু হল উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের (Hemtabad) বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের (Debendranath Roy)। সোমবার সকালে একটি চায়ের দোকান থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

রায়গঞ্জের (Raiganj) বিন্দোল পঞ্চায়েতের বালিয়া গ্রামে তাঁর আদি বাড়ি। সেখান থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে রাস্তার ধারে অবস্থিত ওই চায়ের দোকানটি। পরিবারের দাবি, খুন করা হয়েছে বিধায়ককে। ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবিও জানিয়েছেন তাঁরা। একই দাবি বিজেপিরও।

রবিবার সন্ধ্যায় আদি বাড়িতে ফিরেছিলেন তিনি। পরিবারের দাবি, রাত একটা নাগাদ বেশ কয়েক জন যুবক তাঁকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। তার পর রাতভর তাঁর আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

সোমবার সকালে খোঁজাখুঁজি শুরু হয় ওই বিধায়কের। তখনই ওই চায়ের দোকানটি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর দেহ উদ্ধার হয়। চায়ের দোকানটি বন্ধ ছিল।

পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। যদিও খুন না আত্মহত্যা, সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত হতে পারছে না পুলিশ। আপাতত ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে আসার অপেক্ষা।

রায়গঞ্জের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী এই বিষয় বলেন, “দেবেনবাবুর মৃত্যু যথেষ্ট সন্দেহজনক। একজন মানুষ হাত বাঁধা অবস্থায় কখনোই আত্মহত্যা করতে পারেন না। সকলেই সন্দেহ করছে। পুলিশ সঠিক তদন্ত করে মৃত্যুর কারণ বের করুক।” 

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, “এই খুনের পেছনে তৃণমূল রয়েছে। ওরাই খুন করে দেহকে এমন ভাবে ঝুলিয়ে দিয়েছে যাতে মনে হয় এটা আত্মহত্যা। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আমার অনুরোধ, দয়া করে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিন।”

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে বিধানসভা নির্বাচনে হেমতাবাদ কেন্দ্র থেকে সিপিএমের টিকিটে জয়লাভ করেন দেবেন্দ্রনাথ রায়। বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতে পর পর তিন বার সিপিএমের প্রধান ছিলেন তিনি। ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের পর দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেন তিনি।

Continue Reading

রাজ্য

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমলেও স্বস্তি দিচ্ছে না আগামী তিন দিনের পূর্বাভাস

বুধবার থেকে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমতে পারে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রবিবার সকাল পর্যন্ত রেকর্ড বৃষ্টিতে ভেসেছে উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। তার পর বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমেছে। যদিও তাতে বিন্দুমাত্র স্বস্তি নেই। কারণ আগামী তিন দিনের পূর্বাভাস খুবই উদ্বেগজনক।

শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি

গত ৪৮ ঘণ্টায় জলপাইগুড়ি শহরে ২৫৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৯ মিলিমিটার। অর্থাৎ, আগের দিনের তুলনায় বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমেছে। তবে রেকর্ড বৃষ্টি হয়েছিল গজোলডোবায়। এক দিনেই ৪৬০ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয় সেখানে। এর জেরে তিস্তায় ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

জলপাইগুড়ি শহরে তিস্তা সংলগ্ন এলাকায় চরম সতর্কতা জারি করা হয়। শহরের বেশ কিছু ওয়ার্ড জলের তলায় চলে গিয়েছে। ময়নাগুড়ি ব্লকে অন্তত এক হাজার মানুষ দুর্গত।

শনিবার রেকর্ড বৃষ্টি হয়েছে শিলিগুড়ি শহরেও। এর ফলে শহরের একাধিক ওয়ার্ড জলমগ্ন হয়ে পড়ে। যদিও গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমায় কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে বাসিন্দাদের।

কোচবিহার-আলিপুরদুয়ার

রাজ্যে সব থেকে বেশি বৃষ্টি হয় এই দুই জেলাতেই। এ বারও তার ব্যতিগ্রম ঘটল না। শনিবার আলিপুরদুয়ার শহরে সাড়ে তিনশো মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। ভুটান-লাগোয়া গ্রামগুলিতে বৃষ্টির দাপট আরও অনেকটাই বেশি ছিল।

এই বৃষ্টির জেরে কালজানি নদীর জল বিপদসীমার কাছাকাছি পৌঁছে যায়। শহরের কুড়িটার মধ্যে ১৫টা ওয়ার্ডই জলমগ্ন হয়ে পড়ে। কোথাও কোথাও কোমর-সমান জল দাঁড়িয়ে যায়।

আলিপুরদুয়ার জেলার বেশ কিছু চা বাগানেও বৃষ্টির কারণে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। হড়পা বানে কোথাও কোথাও রাস্তা ভেসে গিয়েছে। আপাতত চা-পাতা তোলার কাজ বন্ধ করা হয়েছে।

রবিবার বিকেলে কোচবিহারে তোর্সা নদীতে হলুদ সংকেত, অর্থাৎ চরম সতর্কতার একটা ধাপ নীচের সতর্কতা জারি হয়। মাথাভাঙায় মানসাই নদীতেও হলুদ সংকেত রয়েছে। এতে নদী চর ও লাগোয়া এলাকায় জল ঢুকে বন্যার আশঙ্কাও বেড়েছে।

উদ্বেগ বেড়েছে চাষাবাদ থেকে প্রাণীসম্পদ প্রতিপালন নিয়েও। বেশ কিছু ক্ষেত্রে চাষিদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

দার্জিলিং-কালিম্পং

উত্তরবঙ্গের সমতলের তুলনায় পাহাড়ের পরিস্থিতি কিছুটা হলেও ভালো। মারাত্মক বৃষ্টি হয়নি। তবে জায়গায় জায়গায় ধস নামার ঘটনা ঘটেছে।

আগামী দিনের পূর্বাভাস

এই মুহূর্তে উত্তরবঙ্গের ওপর দিয়ে বিস্তীর্ণ মৌসুমি অক্ষরেখাটি খুব সক্রিয় রয়েছে। পাশাপাশি বিহারের ওপরে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। এর জেরে প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে উত্তরবঙ্গে। সোমবার আর মঙ্গলবার উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে চরম অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

বুধবার থেকে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমতে পারে। অন্য দিকে মালদা আর দুই দিনাজপুরেও ভারী বৃষ্টি চলতে থাকবে।

Continue Reading

রাজ্য

রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজার পার, কমছে মৃত্যুহার

শেষ ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছেন ১ হাজার ৫৬০ জন। যা এখনও পর্যন্ত এক দিনে সর্বোচ্চ।

কলকাতা: রবিবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিনে জানানো হয়, শেষ ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ (Covid-19) পজিটিভ হয়েছেন ১ হাজার ৫৬০ জন। যা এখনও পর্যন্ত এক দিনে সর্বোচ্চ। গত শনিবার এই সংখ্যাটাই ছিল ১ হাজার ৩৪৪।

একই সঙ্গে জানানো হয়, শেষ ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২৬ জনের, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬২২ জন। এখানেই একটু স্বস্তির খবর, রাজ্যে মৃত্যুহার কমছে। শুক্রবার ছিল ৩.২৪, শনিবার ছিল ৩.১৮ আর রবিবার সেই হার নেমে দাঁড়াল ৩.১০-এ।

সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে রাজ্যের সুস্থতার হার ৬১.৯০ শতাংশ। গত শনিবার এই হার ছিল ৬৩.১১ শতাংশ।

রাজ্যের করোনা-পরিস্থিতি

মোট আক্রান্ত: ৩০,০১৩

মোট মৃত: ৯৩২ (কো-মর্বিডিটি-সহ)

মোট সুস্থ: ১৮,৫৮১

মোট সক্রিয় রোগী: ১০,৫০০

কলকাতায় করোনা

স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, শেষ ২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫৪ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের।

জেলায় জেলায়

নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫৭ জন। মারা গিয়েছেন তিন জন। এর পরেই রয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং হাওড়া, দুই জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা যথাক্রমে ১৬১ এবং ১২৭। দুই জেলায় মৃতের সংখ্যা যথাক্রমে চার এবং দুই জন।

বাকি মৃতদের মধ্যে রয়েছেন পশ্চিম মেদিনাপুরের দু’জন এবং দার্জিলিং ও মুর্শিদাবাদের এক জন করে।

নমুনা পরীক্ষা

স্বাস্থ্য দফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা নমুনা পরীক্ষা হয়েছে মোট ১১ হাজার ৭০৯টি। এগুলির মধ্যে মাত্র ৪.৮৬ শতাংশ কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। এখনও পর্যন্ত বাংলায় ৬ লক্ষ ১৭ হাজার ৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। অর্থাৎ, প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬ হাজার ৮৫৬ জনের।

সারা রাজ্যে মোট ৫২টি ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষা চলছে। অন্য দিকে ৮০টি হাসপাতালে চলছে কোভিড-১৯ চিকিৎসা।

Continue Reading
Advertisement
football2
ফুটবল5 hours ago

কোভিড-পরিস্থিতিতে আসন্ন আই লিগের সব ম্যাচই কলকাতায় করার ভাবনা

দেশ6 hours ago

বিজেপিতে যাচ্ছি না, বললেন সচিন পায়লট

দেশ6 hours ago

প্রবল বর্ষণে সিকিমে ভয়াল রূপ তিস্তার, হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ল প্রাক্তন সাংসদের বাড়ি

উঃ দিনাজপুর6 hours ago

বিজেপি বিধায়কের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি খুন

রাজ্য7 hours ago

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমলেও স্বস্তি দিচ্ছে না আগামী তিন দিনের পূর্বাভাস

দেশ7 hours ago

দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় রেকর্ড, তবে মৃত্যুহারে উল্লেখযোগ্য পতন

দেশ7 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

বিদেশ8 hours ago

কমদামী ও সহজলভ্য দুই ওষুধের সংমিশ্রণেই কমছে করোনার মারণ ক্ষমতা?

দেশ7 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

দুর্গা পার্বণ2 days ago

আজও ভিয়েন বসিয়ে হরেক রকম মিষ্টি তৈরি হয় চুঁচড়ার আঢ্যবাড়ির দুর্গাপুজোয়

ফুটবল3 days ago

এটিকে-মোহনবাগানের নতুন লোগো প্রকাশিত, জার্সির রঙ সবুজমেরুনই

কলকাতা2 days ago

সক্রিয় রোগীর নিরিখে এই মুহূর্তে কলকাতার অবস্থান কত নম্বরে?

দেশ3 days ago

শারীরিক দুরত্ব ভেঙে মানবিক দায়িত্ব পালন

Shaktikanta Das
দেশ2 days ago

কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য এবং অর্থনীতির সামনে শেষ একশো বছরের সব থেকে বড়ো সংকট: আরবিআই গভর্নর

Harsh Vardhan
দেশ3 days ago

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় আমরা উদ্বিগ্ন নই: কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

রাজ্য3 days ago

ফের রেকর্ড সংক্রমণ রাজ্যে, তবে কমছে মৃত্যুহার, করোনামুক্ত ঝাড়গ্রাম

কেনাকাটা

কেনাকাটা23 hours ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা4 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা6 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা7 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

নজরে