ওয়েবডেস্ক: যেমন রাতারাতি তৈরি হয়েছিল, তেমনই তড়িঘড়ি বিদায় নিল বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট অতি-গভীর নিম্নচাপটি। ফলে দক্ষিণবঙ্গে আপাতত দিন তিনেক বৃষ্টি কমার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। অন্য দিকে আগামী কয়েক দিন উত্তরবঙ্গে প্রবল বর্ষণের সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর।

বৃহস্পতিবার কোনো আগাম ইঙ্গিত ছাড়াই অতি-গভীর নিম্নচাপে শক্তিবৃদ্ধি করে বঙ্গোপসাগরে অবস্থিত একটি মামুলি নিম্নচাপ। ফলে বৃহস্পতিবার সারা দিনই কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সঙ্গে ছিল ঝোড়ো হাওয়া। রাতে বেশ কয়েক দফায় জোর বৃষ্টি হয় কলকাতা এবং সংলগ্ন অঞ্চলে। কিন্তু শুক্রবার সকাল থেকেই ফের দেখা মিলেছে রোদের। দক্ষিণবঙ্গের বাকি অংশেও বৃষ্টি কমেছে। ‘

আবহাওয়া দফতর সুত্রে জানানো হয়েছে, নিম্নচাপটি ছত্তীসগঢ়ে চলে যাওয়ায় দক্ষিণবঙ্গের আকাশ পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে। দক্ষিণবঙ্গে ক্রমশ বাড়তে থাকা বৃষ্টির ঘাটতি এই নিম্নচাপ সে ভাবে কমাতে পারেনি। এই পরিস্থিতি থেকে আপাতত মুক্ত হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই, কারণ আগামী অন্তত ৪৮ ঘণ্টা দক্ষিণবঙ্গে উল্লেখযোগ্য বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই বলেই জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন আট বছরে সব থেকে বড়োসড়ো বৃষ্টি ঘাটতির মুখে বাংলা, পরিস্থিতি কি আদৌ বদলাবে?

অন্য দিকে বৃষ্টিপ্রত্যাশী উত্তরবঙ্গের জন্য সুখবর। আগামী কয়েক দিন প্রবল বর্ষণের সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর। বৃহস্পতিবার দার্জিলিং এবং কালিম্পং জেলার বিস্তীর্ণ অংশে ভারী বৃষ্টি হয়। শনিবার থেকে জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার জেলাতেও জোর বৃষ্টি হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। ১০ থেকে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উত্তরবঙ্গের কিছু অঞ্চলে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা দেওয়া রয়েছে। মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টির সতর্কতা দেওয়া রয়েছে অসম এবং মেঘালয়কেও।

এই মুহূর্তে উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির ঘাটতি বাড়তে বাড়তে কুড়ি শতাংশে গিয়ে পৌঁছেছে। আগামী কয়েক দিনের বৃষ্টির ফলে সেই ঘাটতি অনেকটাই কমবে বলে আশাবাদী আবহাওয়া দফতর।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন