রাজভবন থেকে বেরিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়

0

কলকাতা: রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় (Rajib Banerjee) মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দিয়েছেন শুক্রবার। এ দিন মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগপত্র পাঠানোর পরই তিনি রাজভবনে যান। সেখানে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’ সেরে বেরিয়ে আসার সময় সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেন রাজীব।

কেন ইস্তফা?

মন্ত্রিত্ব ছাড়ার মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়ার কারণ হিসেবে রাজীব বলেন, “আমি কোনো দিনও ভাবিনি যে, আমাকে এ রকম একটা কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কিন্তু আমাকে এই সিদ্ধান্ত নিতেই হল। যদি কোথাও কোনো ভাবে কাউকে আঘাত দিয়ে থাকি, তা হলে আমি সবার কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চাইছি। আমাকে ভুল বুঝবেন না। আমি মনে-প্রাণে আহত হচ্ছিলাম, যা আমার পক্ষে সহ্য করা সম্ভব হচ্ছিল না, তাই আমাকে এই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে”।

চোখে এল জল!

তাঁর কথায়, “আমি বাংলার মানুষের স্বার্থে কাজ করব। আমাকে যিনি এই সুযোগ করে দিয়েছিলেন, আমার দলনেত্রীকে প্রণাম জানাচ্ছি”। এই মন্তব্য করার পরই ভেঙে পড়েন রাজীব।

দফতর বদল

আড়াই বছর আগে আচমকা দফতর বদল করে দেওয়া হয়েছিল রাজীবের। সেই ঘটনা অত্যন্ত খারাপ লেগেছিল বলে জানিয়ে রাজীবের মন্তব্য, “আমি দু’দিন উত্তরবঙ্গ সফর সেরে আমার দলীয় কার্যালয়ে বসেছিলাম। সেই সময় ন্যূনতম সৌজন্যটুকুও দেখাননি মুখ্যমন্ত্রী। মন্ত্রী হিসেবে উত্তরবঙ্গে বৈঠক করছিলাম তখন। টিভিতে ব্রেকিং নিউজ দেখে জানতে পেরেছিলাম, আমার দফতর বদল হয়েছে। দলীয় কর্মীদের সামনে আমি চরম অস্বস্তিতে পড়ে যাই। পর দিনই ইস্তফা দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু উনিই নিরস্ত করেছিলেন। আমাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। যখন যে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল, আমি নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করেছি”।

ভবিষ্যৎ?

মন্ত্রিত্ব ছাড়তেই তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জল্পনা শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে বিজেপি নেতৃত্ব তাঁকে আগাম স্বাগত জানিয়ে রাখলেও নিজে মুখে এখনও কিছু জানাননি রাজীব। এ দিন তিনি বলেন, “যত দিন আমার দেহে প্রাণ থাকবে, কোন প্ল্যাটফর্ম পাব তা জানি না, কিন্তু মানুষের জন্য কাজ করে যাব”।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন