cool weather in jalpaiguri
জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছে জলপাইগুড়িতে। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা, জলপাইগুড়ি: এ বার নভেম্বর মাসেই জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছে জলপাইগুড়ি তথা উত্তরবঙ্গে। নভেম্বর মাসে এই সময় সাধারণত এতটা ঠান্ডা থাকে না। আবহাওয়ায় একটা ঠান্ডা ভাব থাকে। শীত তেমন পড়ে না। এ বার নভেম্বরের মাঝেই এত ঠান্ডা। জ্যাকেট এবং শীতবস্ত্র পরার প্রয়োজন হয়ে পড়ছে। রাস্তার ধারে বসা শীতবস্ত্রের দোকানে বিক্রি বাড়ছে। দোকানদারেরা আশা করছেন যে শীত তাড়াতাড়ি এসে যাওয়ায় এ বার শীতবস্ত্রের বিক্রি ভালোই হবে।

জলপাইগুড়ির আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা যায় যে জলপাইগুড়িতে নভেম্বর মাসে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে থাকে। এ বছর গত বছরের তুলনায় তাপমাত্রা অনেক নেমেছে। মঙ্গলবার জলপাইগুড়ির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত বছর একই দিনে তাপমাত্রা ছিল ২১.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ বছর গত সপ্তাহ থেকে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩ ডিগ্রির আশেপাশে ঘোরাফেরা করছে। গত রবিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.১ ডিগ্রি।

আরও পড়ুন দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য এই সপ্তাহেই দিল্লিতে কৃত্রিম ভাবে বৃষ্টি নামানো হতে পারে

গত বছরের তুলনায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রায় কোনো হেরফের হয়নি। একই রকম আছে। মঙ্গলবার জলপাইগুড়ির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৭.৯ ডিগ্রি। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা গত বছরের তুলনায় একই আছে। গত বছর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৭ ডিগ্রির আশেপাশে ছিল। এ বছরও তা-ই আছে।

শীত পড়ার সঙ্গে সঙ্গে শীতবস্ত্রের বিক্রিও বাড়ছে। জলপাইগুড়ি শহরের সমাজপাড়া মোড়ে গুর্জংঝোরা বিল্ডিং সংলগ্ন এলাকায় রাস্তার ধারে এ রকম দশটি দোকানে শীতবস্ত্র বিক্রি হয়। এই দোকানগুলোয় সাধারণ বাসিন্দারা ভিড় করেন। বড়ো দোকান বা শপিং মলের তুলনায় দাম কম থাকায় এই দোকানগুলোয় ভালোই বিক্রি হয়। এই এলাকার দোকানদাররা প্রত্যেকেই গত দশ বছর এর ওপর ব্যবসা করছেন। যেমন সুবল সুত্রধর। তাঁদের মোট তিনটে দোকান আছে। সোয়েটার, মাফলার, জ্যাকেট, ফুলহাতা গরম শার্ট এঁরা বিক্রি করেন। সুবল সুত্রধর বলেন, “এ বার শীত আগে এসে যাওয়ায় শীতবস্ত্র ভালোই বিক্রি হচ্ছে।”

একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের পাঁচিলের পাশে দোকান করেন ভিকি ঘোষ। তিনি কর্ডস উলের শার্ট ১০০ টাকায় বিক্রি করেন। পুরুষ এবং মহিলাদের জ্যাকেট তাঁর দোকানে ২৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৮৫০ টাকা পর্যন্ত আছে। ভিকি বলেন, “যত ঠান্ডা পড়বে আমাদের বিক্রি তত বাড়বে। এ বার আশা করছি ভালোই বিক্রি হবে।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here