মৌসুনী দ্বীপে ত্রাণ পৌঁছে দিল ‘শুধু সুন্দরবন চর্চা’ পত্রিকা ও ‘তেপান্তরের স্বপ্ন’

relief in mousuni island
মৌসুনী দ্বীপে ত্রাণ। নিজস্ব চিত্র।

ওয়েবডেস্ক: সরকারি ত্রাণব্যবস্থা ও মুখ্যমন্ত্রীর দুর্গত এলাকা পরিদর্শনের মাঝেই বুলবুল-বিধ্বস্ত এলাকায় ত্রাণকাজ শুরু করে দিল বেসরকারি সংস্থাগুলি। সোমবার দুর্গত এলাকায় ত্রাণ বিলি করা হয় ‘শুধু সুন্দরবন চর্চা’ পত্রিকা ও ‘তেপান্তরের স্বপ্ন’ সংস্থার পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুন: বুলবুলের সামনে ঢাল হয়ে দাঁড়িয়ে মানবসভ্যতাকে ফের একবার বাঁচাল সুন্দরবন

বুলবুল ঘূর্ণিঝড়ে সুন্দরবনের যে সব এলাকা সব চেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম মৌসুনী দ্বীপ। সোমবার সেই মৌসুনী দ্বীপে ত্রাণ নিয়ে পৌঁছে যায় ‘শুধু সুন্দরবন চর্চা’ ও ‘তেপান্তরের স্বপ্ন’। ক্ষতিগ্রস্ত দ্বীপের ৯০টি পরিবারের ৫৪১ জন সদস্যের হাতে নতুন জামাকাপড় ও খাদ্যসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।   

ত্রাণদলের নেতৃত্বে ছিলেন সংস্থার সম্পাদক জ্যোতিরিন্দ্রনারায়ণ লাহিড়ী। দলে আর যাঁরা ছিলেন তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য বিশিষ্ট নদীবিজ্ঞানী কল্যাণ রুদ্র, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বরেন্দু মণ্ডল।

দুর্গতদের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিলির পাশাপাশি এ দিন মৌসুনী কোপারেটিভ হাই স্কুলে ৩০০-এরও ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে অঙ্কন, প্রবন্ধ ও কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল সুন্দরবন। বুলবুলের ধ্বংসলীলার মাঝেই ছাত্রছাত্রীরা যে  উৎসাহ নিয়ে এই প্রতিযোগিতায় যোগ দিয়েছে, তা সত্যিই সকলের নজর কাড়ে।

প্রতিযোগিতায় যোগদানকারী ছাত্রছাত্রীরা। নিজস্ব চিত্র।

ত্রাণদলের অন্যতম সদস্য উজ্জ্বল সর্দার জানান, বুলবুলের জন্য বোট সার্ভিস বন্ধ থাকায় মৌসুনী দ্বীপ কার্যত বিচ্ছিন্ন ছিল। সোমবার থেকে আবার বোট সার্ভিস চালু হয়েছে, যার ফলে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.