leopard

নিজস্ব সংবাদদাতা,জলপাইগুড়ি: চিতাবাঘের দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য। মৃত্যুর কারণ নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে ধোঁয়াশা। বিষক্রিয়ায় মৃত্যু কি না, তা নিয়ে দেখা দিয়েছে সন্দেহ। জলপাইগুড়ির ডায়নার জঙ্গলের ঘটনা।

শনিবার সকাল ১১টা নাগাদ ডায়নার জঙ্গলের সেণ্ট্রাল ডায়না বিটে টহল দিচ্ছিলেন বনকর্মীরা। সেই সময় চিতাবাঘের দেহটি জঙ্গলের মধ্যেই দেখতে পান তাঁরা। খবর পেয়ে জলপাইগুড়ি বন্যপ্রাণী বিভাগ ও ডায়না রেঞ্জের বনাধিকারিকরা আসেন সেখানে।মৃতদেহটি উদ্ধার করে ডায়না রেঞ্জ অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই বনদফতরের পশু চিকিৎসকরা ময়নাতদন্ত করেন সেটির। বনদফতর সূত্রে খবর, চিতাবাঘের দেহে কোনো আঘাতের চিহ্ন ছিল না।তাই মৃত্যুর কারণ নিয়ে সন্দেহ দানা বেঁধেছে বনাধিকারিকদের মধ্যে। অনুমান, বিষক্রিয়ায় সেটির মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে।

যদিও ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এবং ভিসেরা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরই মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে জানিয়েছেন বনাধিকারিকরা। সেই কারণে ময়নাতদন্তের সময় চিতাবাঘটির দেহ থেকে ভিসেরা সংগ্রহ করা হয়। সেটি পরীক্ষার জন্য কলকাতায় পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন, জলপাইগুড়ি বন্যপ্রাণ বিভাগের এডিএফও সজল সরকার।

কিছুদিন আগে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান থেকে মিলেছিল গণ্ডারের দেহ। জানা গিয়েছিল, বন্দুক নয়, গুলতির সাহায্য নিয়ে বিষ মাখানো সূচ ফুটিয়ে সেই গণ্ডার মেরেছিল চোরাশিকারিরা। এ ক্ষেত্রেও সে রকম কিছুর যোগ আছে কি না তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।তবে বনাধিকারিক সজল সরকার জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু হয়েছে ঘটনার.।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন