‘ভোট পরবর্তী হিংসা’ মামলায় সিট-এর মাথায় মঞ্জুলা চেল্লুর

0

কলকাতা: রাজ্যের ‘ভোট পরবর্তী হিংসা’ মামলায় সিট-এর মাথায় বসানো হল কলকাতা ও বোম্বে হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মঞ্জুলা চেল্লুরকে।

এর আগে কলকাতা হাইকোর্টের পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চ জানিয়েছিল, সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত কোনো বিচারপতির নজরদারিতে সিটের তদন্ত হবে। এ দিন সেই নির্দেশেই পরিবর্তন করে পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চ। রাজ্য সরকার গঠিত সিট কাজ করবে হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মঞ্জুলা চেল্লুরের নজরদারিতে।

উল্লেখ্য, গত ১৯ আগস্ট ‘ভোট পরবর্তী হিংসা’ মামলায় (post-poll violence case) কলকাতা হাইকোর্টে ধাক্কা খায় রাজ্য সরকার। হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চের রায়ে বলা হয়, হত্যা, ধর্ষণ এবং মহিলাদের উপর অপরাধের মতো গুরুত্বপূর্ণ অভিযোগের তদন্ত করবে সিবিআই (CBI)।

এ ছাড়া বাকি অভিযোগের তদন্তের জন্য সৌমেন মিত্র, সুমন বালা, রণবীর কুমারকে নিয়ে তিনজনের বিশেষ তদন্তকারী দল (SIT) গঠনের নির্দেশ দিয়েছিল আদালত।

উল্লেখ্য, নারদকাণ্ডের মূল মামলার শুনানি হয়েছিল মঞ্জুলা চেল্লুরের এজলাসেই। ২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ছিলেন বিচারপতি চেল্লুর। এ ছাড়া বোম্বে হাইকোর্ট, কেরল হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব সামলেছিলেন। তিনিই কর্নাটক হাইকোর্টের প্রথম মহিলা বিচারপতি।

অন্য দিকে, অভিযোগ উঠেছে, এই মামলায় সিবিআই তৎপর হলেও সিটের তদন্ত সে ভাবে এগোচ্ছে না। সেই অভিযোগের মধ্যেই বৃহস্পতিবার সিটের তদন্তে সহযোগিতার জন্য ১০ জন আইপিএস অফিসারকে নিয়োগ করেছে নবান্ন।

তবে হাইকোর্টের সিবিআই তদন্তের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের দাবি, সিবিআই-এর হাতে তদন্তভার থাকলে প্রতিহিংসার রাজনীতি হতে পারে। এ ব্যাপারে সঠিক বিচার না মেলার আশঙ্কা করা হচ্ছে রাজ্যের তরফে।

খবর অনলাইন-এ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ খবর পড়ুন এখানে:

‘ভোট পরবর্তী হিংসা’য় প্রথম চার্জশিট দাখিল করল সিবিআই, বিজেপি কর্মী খুনের মামলায় দু’জনের নাম

ভোট পরবর্তী হিংসার তদন্তে সক্রিয় নয় সিট, অভিযোগে পদক্ষেপ করতে পারে কলকাতা হাইকোর্ট

‘ভোট পরবর্তী হিংসা’ মামলায় হাইকোর্টের রায় চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে রাজ্য

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন