sundarban royal bengal tiger

নিজস্ব সংবাদদাতা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা:  শনিবার রাতে প্রাণ বাজি রাখা লড়াই শেষে বাঘের মুখ থেকে ভাইকে বাঁচালেন দাদা। ঘটনাটি ঘটেছে সুন্দরবনে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিং মহকুমার গোসাবা ব্লকের বড়ো গাজিখালি এলাকার এই ঘটনায় রীতি মতো চাঞ্চল্য পড়ে গিয়েছে স্থানীয় স্তরে।

পেশায় মৎস্যজীবী দেবব্রত সরকার থাকেন ছোটো মোল্লাখালি গ্রামে। স্থানীয় সূত্রে খবর, তিন দিন আগে তিনি দাদা দিবাকরের সঙ্গে নৌকা নিয়ে কাঁকড়া ধরতে বের হন। গত ২০ জানুয়ারি সন্ধ্যায় খোলাখালি নদীতে কাঁকড়া ধরার সময়ই আচমকা একটি রয়াল বেঙ্গল টাইগার পাশের ঝোপ থেকে বেরিয়ে এসে দেবব্রতর উপর জাঁপিয়ে পড়ে। তৎক্ষণাৎ সেই বাঘ তাঁর পিঠ ও ঘাড়ে থাবা মেরে তাঁকে কাহিল করে দেয়। আচম্বিতে এই ধরনের আক্রমণের মুখে পড়ে তিনি বাঘের হাত থেকে নিজেকে বাঁচানোর কোনো সুযোগই পাননি। ভাইয়ের উপর বাঘের হানা দেখেই দাদা দিবাকর লাঠি দিয়ে পেটাতে শুরু করেন সেই শার্দুল সর্দারকে। প্রথমত শিকার হাতের থাবায় বন্দি করে ফেলে বাঘ লাঠির ঘা সহ্য করলেও দুই ভাই যখন তার উপর প্রবল ভাবে চড়াও হয়, তখন সে আর যুঝে উঠতে পারে না। অগত্যা, সে ফিরে যায় জঙ্গলে।

এরপর দিবাকর আহত ভাইকে নিয়ে পাড়ে ফিরে এসে গোসাবা ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসকরা তাঁর গুরুতর আঘাত দেখে সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে ভর্তি করে নেন। তবে এখন তিনি সুস্থই আছেন। অন্য দিকে দিবাকরকে প্রাথমিক চিকিৎসার পরই ছেড়ে দেওয়া হয়।

সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের অতিরিক্ত ফিল্ড ডিরেক্টর অনিন্দ্য গুহঠাকুরতা বলেন, বাঘের আক্রমণে এক মৎস্যজীবীর আহত হওয়ার ঘটনাটি তিনিও শুনেছেন। পুরো বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here