বিতর্ক এড়িয়ে পুরনো ঠাঁই ফিরে পেল জঙ্গল মহল উৎসব

0

সমীর মাহাত, ঝাড়গ্রাম: প্রায় ছ’কোটি টাকা বরাদ্দে এ বারেও ঝাড়গ্রামেই হচ্ছে জঙ্গল মহল উৎসব। এ বিষয়ে বুধবার ঝাড়গ্রাম জেলা শাসকের কার্যালয়ে আলোচনায় বসেন মন্ত্রী ও প্রশাসনিক কর্তারা। বিশেষ ভাবে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের তিনি জানান, আগের মতো একই জায়গায় এ বারও জঙ্গল মহল উৎসব হবে।

প্রসঙ্গত, সামনের জানুয়ারি নিয়ে জঙ্গল মহল উৎসব ছ’বছরে পা দিবে। প্রতি বছর পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন বিষয়ক দফতর ও পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন পর্ষদের উদ্যোগে এই ব্যায় বহুল মেলা চলে আসছে। আগামী ২০২০ সালের ২-৯ জানুয়ারি এই মেলা অনুষ্ঠিত হবে ঝাড়গ্রাম কুমুদ কুমারী ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে।

অন্য দিকে গত জঙ্গল মহল উৎসবের পর থেকেই এই স্কুলের মাঠে মাটি ফেলে ঘাস রোপণ করে খেলার উপযোগী করা হয়েছে ব্যয়বহুল ভাবে। শহরে চাউর হয়, এই স্কুল মাঠে আর কোনো মেলা বা উৎসব হবে না। আজ মন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, এই মাঠেই উৎসব হবে। যা ক্ষতিগ্রস্ত হবে, তা সরকার ঠিক করে দেবে। তিনি আরও বলেন, এ রকম বিকল্প সুন্দর জায়গা আর পাওয়া যাচ্ছে না। জানা গিয়েছে, উত্তরবঙ্গ সহ-রাজ্যের সাতটি জেলার লোক শিল্পীর এই উৎসবে অংশ গ্রহণ করবেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল পর্যন্ত জঙ্গল মহল উৎসবের দায়িত্ব ছিল বিভাগীয় দফতর ও পর্ষদের সঙ্গে যুক্ত থাকা জনপ্রতিনিধিদের হাতে। যাঁদের সঙ্গে প্রত্যন্ত অঞ্চলের লোকশিল্পীদের যোগাযোগ ছিল। গত ২০১৯-এর এই উৎসবের সেই দায়িত্ব চলে যায় শুধু জেলা ও মহকুমা প্রশাসনের হাতে। অনুষ্ঠানে ঠাঁই পাওয়ার জন্য শিল্পীদের আবেদন তথ্য দফতর ও মহকুমা অফিসের বাক্সে জমা দিতে বলা হয়। অভিযোগ, সে বারের উৎসবে একাধিক লোক শিল্পী অনুষ্ঠান থেকে বঞ্চিত হন, অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া সমস্ত শিল্পীদের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়। অনুষ্ঠান করে সাম্মানিক পাওয়া যায়নি বলেও অভিযোগ তুলেছেন একাংশের শিল্পীরা।

যাইহোক, এ বারের উৎসবের দিন খানিকটা এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। গত বারে ১৩-২০ জানুয়ারি ছিল এই উৎসব।

এ দিন মন্ত্রী বলেন, প্রায় ৬ কোটি টাকা বরাদ্দ হবে। এ বারে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির লোক শিল্পীরাও থাকবেন। এ দিনের আলোচনাসভায় মন্ত্রী-সহ জেলা শাসক আয়েশা রানি এ জেলার বিভাগীয় অন্যান্য আধিকারিক, রাজ্যসভার ডেপুটি স্পিকার সুকুমার হাঁসদা, বিধায়ক চূড়ামণি মাহাত-সহ বিশিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.