বিজেপির দলবদলে নতুন নিয়ম

0
গত সোমবার দিল্লিতে যোগদান পর্ব

ওয়েবডেস্ক: গত মাসে বীরভূমের লাভপুরের তৃণমূল বিধায়ক মনিরুল ইসলামকে দলে নিয়ে বিপাকে পড়েছিল বিজেপি। মনিরুলকে কেন্দ্র করে স্বদলীয় কোন্দল এমন আকার নেয় যে গণইস্তফার দাবি পর্যন্ত ওঠে। তার পর থেকেই দলবদলের জন্য নতুন নিয়ম মেনে চলছে গেরুয়া শিবির। গত সোমবার নয়াদিল্লিতে আলিপুরদুয়ারের কালচিনির বিধায়ক উইলসন চম্প্রমারি এবং বিপ্লব মিত্র-সহ অন্যান্যদের দলবদলেও সেই নীতি অনুসরণ করা হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে খবর।

‘দ্য হিন্দু’র প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিজেপির উপর ওই নতুন নীতি চাপানো হয়েছে আরএসএসের তরফে। যেখানে বলা হয়েছে, অন্য দল থেকে যে কোনো ব্যক্তিকেই বিজেপিতে নেওয়ার আগে সংশ্লিষ্ট মণ্ডল কমিটি পুরো বিষয়ের স্ক্রিনিং করবে।

ওই রিপোর্ট থেকেই জানা গিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গের সর্বত্র বিজেপির মণ্ডল কমিটিগুলি পূর্ণমাত্রায় সক্রিয় রয়েছে। পাশাপাশি বিজেপি কর্মীদের উপর নজরদারি চালানোর জন্য আরএসএসেরও নির্দিষ্ট পরিকাঠামো রয়েছে।

তবে বিজেপিতে যোগ দিতে ইচ্ছুক ভিন দলের প্রবীণ নেতাদের ক্ষেত্রে স্ক্রিনিংয়ের বিষয়টি প্রযোজ্য নয়। অন্যান্য দলের ক্যাডার এবং নেতারা রাজ্য বিজেপি নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আগে ওই মণ্ডল কমিটির মত নেওয়া হবে। তার পরই তাঁদের দলে নেওয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, মনিরুলের দলবদলের পরই বিজেপি এবং আরএসএসের একটা বৃহত্তর অংশ ক্ষোভে ফেটে পড়ে। তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলের গড় হিসাবে পরিচিত ওই এলাকায় গত পঞ্চায়েত এবং লোকসভা ভোটে বিজেপির খারাপ ফলের কারণ দেখিয়ে সংগঠন মজবুত করার লক্ষ্য নিয়েই মনিরুলকে দলে নিয়েছিলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। কিন্তু জোড়া আক্রমণের মুখে মনিরুলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হয় বিজেপিকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here