sabyasachi dutta
বিধাননগর পুরসভায় বসে সব্যসাচী এবং কৃষ্ণা চক্রবর্তীর সাংবাদিক বৈঠক (সোমবার)

ওয়েবডেস্ক: “কীসের জন্য অপেক্ষা করছেন সব্যসাচী? এখনই ওঁর দল ছেড়ে দেওয়া উচিত”। রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের এই মন্তব্যের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই কড়া জবাব দিলেন বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্ত। চাইলেন ভোটাভুটি।

গত রবিবার তৃণমূল ভবনে সব্যসাচীর বিরুদ্ধে ওঠা শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে বৈঠকে বসেন ফিরহাদ। তার পরেও সব্যসাচী নৈশভোজে যোগ দেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে।

পর দিন তৃণমূল তথা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করে তিনি কটাক্ষ ছুডে দেন। ফিরহাদ তাঁকে ‘বেইমান’, ‘মিরজাফর’ বলায় তিনি জানান, “শ্রমিকদের পাশে থেকে যদি মিরজাফর অপবাদ পেতে হয়, তা হলে সেটাই করব। বিগত দিনেও মানুষের পাশে থেকেছি, আগামী দিনেও থাকব। দলনেত্রীর দেখানো পথেই হাঁটছি”।

এ দিন সকাল থেকেই শোনা যায়, তৃণমূলের তরফে যোগাযোগ করার চেষ্টা চলছে সব্যসাচীর সঙ্গে। কিন্তু তাঁকে পাওয়া যাচ্ছে না। অথচ, বিকেলে বিধাননগর পুরসভায় বসেই চেয়ারপার্সন কৃষ্ণা চক্রবর্তীকে নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন সব্যসাচী। বলেন, “ফোনে অনেক মন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে। কেউ পদ ছাড়তে বলেননি”। এ প্রসঙ্গে উঠে আসে মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়য়ের নাম। যদিও রাজীববাবু জানান, তাঁর সঙ্গে কোনো কথা হয়নি।

কিন্তু এখানেই না থেমে সব্যসাচী বলেন, “কল লিস্ট দেখাব? আমার সঙ্গে তৃণমূলের অনেকেই যোগাযোগ রাখছেন”। তবে সেই যোগাযোগ যে অন্য ইঙ্গিত দিচ্ছে, সেটাও স্পষ্ট।

প্রসঙ্গত, গত রবিবারের বৈঠকে বিধাননগরের মেয়রকে ফোন করে ফিরহাদ জানান, আপাতত তাঁর আর পুরসভায় আসার প্রয়োজন নেই। কিন্তু এ দিন সব্যসাচীকে পুরসভায় বসে সাংবাদিক বৈঠক করতে দেখা যায়।

সেখান থেকেই রীতি মতো চ্যালেঞ্জের সুরেই সব্যসাচী বলেন, “দলের তরফে কোনো নির্দেশ পাইনি। ফোন করে কেউ ইস্তফার কথা বলেননি। ফোনে এই পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ানো যায় না। যে দিন ভোটাভুটি হবে, সেদিন দেখতে পাবেন, ক’জন কাউন্সিলর আমার সঙ্গে রয়েছেন”।

এ দিন একই সঙ্গে তিনি জানান, “দল লিখিত ভাবে কিছুই জানায়নি। দলের কোনো নেতা ফোন পদ ছাড়তে বলেননি। দল সরকারিভাবে বক্তব্য জানতে চাইলে জানাব। ততদিন পর্যন্ত মেয়র হিসেবে কাজ চালিয়ে যাব। ছ’-আট মাস বাদেই তো নির্বাচন”!

উল্লেখ্য, এ দিন সন্ধ্যায় বিধাননগর পুরসভার ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায়কে সব্যসাচীর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে আসার নির্দেশে দিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন