জয়রামবাটিতে মহাসমারোহে চলছে শ্রীশ্রী সারদাদেবীর ১৬৬তম জন্মতিথির উৎসব

0
Jayrambati
indrani sen
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: মঙ্গলাচরণ আরতি আর বৈদিক মন্ত্রাচারণের মধ্য দিয়ে মায়ের জন্মভিটে জয়রামবাটিতে শুরু হল শ্রীশ্রী সারদা মায়ের ১৬৬তম জন্মতিথির উৎসব। সারদামায়ের জন্মতিথি উপলক্ষ্যে জয়রামবাটিতে রাজ্য ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অসংখ্য পূণ্যার্থীদের ঢল নেমেছে। সব মিলিয়ে ভক্তি, শ্রদ্ধা আর উৎসবের মেজাজে এ দিনের এই বিশেষ দিনটি শুরু হয়েছে।

১৮৫৩ সালের ২২ ডিসেম্বর (বাংলা ১২৬০ সালের ৪ পৌষ) অগ্রহায়ণ কৃষ্ণা সপ্তমী তিথিতে বাঁকুড়ার প্রত্যন্ত গ্রাম জয়রামবাটীর এক দরিদ্র ব্রাহ্মণ পরিবারে সারদাদেবীর জন্ম। তাঁর পিতা রামচন্দ্র মুখোপাধ্যায় ও মা শ্যামাসুন্দরীদেবী অত্যন্ত ধর্মপরায়ণ ছিলেন। সারদাদেবী ছিলেন তাঁদের প্রথম সন্তান। পরে পাশের গ্রাম হুগলির কামারপুকুরের গদাধরের অর্থাৎ শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। রামকৃষ্ণ মিশন প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকেই সঙ্ঘজননী হন রামকৃষ্ণ ঘরনি। মায়ের সহজ-সরল অনাড়ম্বর জীবন আর মুখ নিঃসৃত বাণী সাধারণ মানুষকে আকৃষ্ট করে।

আরও পড়ুন: সারদাদেবীর ১৬৬তম জন্মতিথিতে বাগবাজারে প্রকাশিত হল “স্বামী সারদানন্দ: এক অনন্য জীবন”

স্বামী পূর্ণমহানন্দ মহারাজ বলেন, শ্রীশ্রী মায়ের জন্মতিথি উপলক্ষ্যে ভোর ৪টেতে ‘মাতৃমন্দিরে’ বিশেষ মঙ্গলাচরণ আরতি হয়। পরে স্থানীয় ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে মিশনের মহারাজ, সাধারণ কর্মী ও মায়ের অগণিত ভক্ত প্রভাতফেরিতে অংশ নেন। গোটা জয়রামবাটী গ্রাম পরিক্রমা করে এই প্রভাতফেরি। এ দিন সারাদিন বিশেষ পুজাপাঠ, কথামৃত পাঠ, মায়ের বাণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন