Connect with us

রাজ্য

উত্তরবঙ্গ সফর শেষে কলকাতায় ফিরলেই মুখ্যসচিবকে পুরভোটের নোটিশ পাঠাবে নির্বাচন কমিশন

Mamata and Rajiva

কলকাতা: চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহেই পুরভোটের বিজ্ঞপ্তি জারি হতে পারে। এ বিষয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশন এ সপ্তাহেই রাজ্য সরকারকে চিঠি পাঠাতে পারে বলে সূত্রের খবর।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, আসন্ন পুরভোটের যাবতীয় প্রাথমিক প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। এ বার রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহাকে চিঠি দিয়ে ভোটের দিনক্ষণ সংক্রান্ত বিষয়গুলি অবহিত করতে চলেছে কমিশন। তবে রাজীব বর্তমানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে উত্তরবঙ্গ সফরে রয়েছেন। তিনি কলকাতায় ফিরলেই নবান্নে ওই চিঠি পাঠানো হবে। রাজ্যের প্রত্যুত্তর হাতে পাওয়ার পর ভোটের বিজ্ঞপ্তি জারি করবে কমিশন।

জানা গিয়েছে, আগামী এপ্রিলেই কলকাতা এবং হাওড়া কর্পোরেশন এবং ১০৭টি পুরসভার ভোটের তোড়জোড় চলছে। এ বিষয়ে ১৮টি জেলার জেলশাসকদের সঙ্গে খুব শীঘ্রই বৈঠকে বসতে চলেছে কমিশন। এপ্রিলের প্রথমপর্বে ভোট করা নিয়ে বিরোধী দলগুলি আপত্তি তুললেও আপাতত নিজেদের সিদ্ধান্তেই অনড় থাকতে পারেন কর্তৃপক্ষ।

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য প্রচারে ঘাটতি হতে পারে অভিযোগ তুলে রাজ্যের তড়িঘড়ি ভোট করানোর সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় সরব হয়েছে বিরোধী দলগুলি। একই সঙ্গে ব্যালট পেপারে ভোট করানো নিয়েও আপত্তি তুলেছে তারা। তবে কমিশন সূত্রে খবর, ব্যালট পেপারে পুরভোট করাতে কোনো আপত্তি নেই কমিশনের। এর আগে পঞ্চায়েত ভোটও ইভিএমের পরিবর্তে ব্যালটেই করানো হয়েছিল।

এ বিষয়ে ইতিমধ্যেই কমিশন রাজ্যের অর্থ দফতরকে জানিয়ে দিয়েছে, ইভিএমে হোক বা ব্যালট পেপার, রাজ্যের পুরভোট করাতে খরচ হবে প্রায় ১৭৫ কোটি টাকা। গত পঞ্চায়েত ভোটে বুথপিছু খরচ ধরা হয়েছিল ৫০ হাজার টাকা। এ বার মূল্যবৃদ্ধির কারণে সেই খরচ কিছুটা হলেও বাড়বে।

আরও পড়ুন: “চিনের ক্ষতিতে ভারতের লাভ”-এর অঙ্ক কষে যে হাসি ফুটেছিল, তা এক নিমেষে মিলিয়ে যাচ্ছে?

প্রসঙ্গত, গত ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের পর ইভিএমে নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলাফলে বিজেপির ‘অপ্রত্যাশিত’ জয় দেখে তিনি ইভিএমে কারচুপির আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। এৰ পরই তিনি সমস্ত ভোট ব্যালট পেপারে করানোর দাবি তুলেছিলেন। তিনি মনে করেন, কম্পিউটার প্রোগ্রাম এবং বিশেষজ্ঞদের সহায়তায় ইভিএমে কারচুপির সম্ভাবনা থেকেই যায়।

রাজ্য

কলেজে ভরতির ফর্ম বাবদ সর্বোচ্চ খরচ বেঁধে দিল রাজ্য

প্রসেসিং ফি হিসেবে ১৫০ টাকার বেশি নিতে পারবে না কলেজগুলি।

অনলাইনেই ভরতি প্রক্রিয়া চলছে স্নাতক স্তরে। প্রতীকী ছবি

কলকাতা: করোনাভাইরাস মহামারির আবহে কলেজে ভরতির (Collage admission) প্রসেসিং ফি-র সর্বোচ্চ সীমা বেঁধে দিল রাজ্য সরকার।

রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপাচার্যদের উদ্দেশে উচ্চ শিক্ষা দফতরের নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, প্রসেসিং ফি হিসেবে ১৫০ টাকার বেশি নিতে পারবে না কলেজগুলি।

কোভিড-১৯ (Covid-19) পরিস্থিতিতে অনলাইনেই ভরতি প্রক্রিয়া চলছে স্নাতক স্তরে। অনলাইনে ফর্ম তোলা, তা জমা দেওয়া সঙ্গে বিভিন্ন রকমের সার্টিফিকেট আপলোড করার জন্য প্রসেসিং ফি আদায় নিয়ে বিভিন্ন জায়গা থেকে অভিযোগ উঠছিল।

এ ব্যাপারে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন অনেকেই। অভিযোগে বলা হয়, কোথাও প্রসেসিং ফি (processing fee) হিসেবে সাড়ে তিনশো আবার কোথাও কোথাও চারশো টাকা পর্যন্ত নেওয়া হচ্ছে। এর পরই বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্য়ালয়গুলিকে চিঠি দেন রাজ্য সরকারের বিশেষ সচিব শিলাদিত্য বসুরায়।

জানানো হয়, বর্তমান পরিস্থিতির নিরিখে সার্টিফিকেট আপলোডের জন্য কোনো প্রসেসিং ফি না নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তার পরেও বেশ কিছু কলেজ তা মানছে না। কোনো কলেজই যেন পড়ুয়াদের কাছ থেকে প্রসেসিং ফি হিসেবে ১৫০ টাকার বেশি না নেয়।

আরও পড়তে পারেন: করোনা পরিস্থিতিতে পড়ুয়াদের স্বস্তি দিতে মাত্র ১টাকা ভর্তি ফি নেবে নৈহাটির ঋষি বঙ্কিম কলেজ

Continue Reading

রাজ্য

রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের নির্দেশের পরেও কেন উদাসীন বেসরকারি হাসপাতাল?

সরকারি নির্দেশকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে কী ভাবে এ ধরনের অমানবিক ঘটনাগুলি ঘটছে?

করোনা রোগীর চিকিৎসায় অমানবিক আচরণের অভিযোগ উঠছে একাধিক হাসপাতালের বিরুদ্ধে। প্রতীকী ছবি

কলকাতা: যথোপযুক্ত পরামর্শ না মেনে কোভিড-১৯ রোগীকে চিকিৎসা পরিষেবা না দেওয়ায় মহানগরের দু’টি হাসপাতালের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়েছে ওয়েস্ট বেঙ্গল ক্লিনিক্য়াল এস্টাবলিশমেন্ট রেগুলেটরি কমিশন (WBCERC) বা রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশন। তবে প্রশ্ন উঠছে, শীর্ষ আদালত থেকে শুরু করে কেন্দ্র-রাজ্য সরকার যে ভাবে মহামারি সংকটে চিকিৎসা পরিষেবায় স্বচ্ছতা বজায় রাখতে একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে, সেখানে সেই সমস্ত নির্দেশকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে কী ভাবে এ ধরনের অমানবিক ঘটনাগুলি ঘটছে?

সোমবার রাতে অ্যাম্বুলেন্সে মারা যাওয়া একজন কোভিড-১৯ (Covid-19) আক্রান্ত রোগীকে অ্যাম্বুলেন্সেই ফেলে রাখার অভিযোগ ওঠে বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালের বিরুদ্ধে। তমলুকের ৬০ বছর বয়সি লায়লা বিবির পরিবারের অভিযোগ তাঁদের কাছ থেকে তিন লক্ষ টাকা অগ্রিম চাওয়া হয়।

পরিবার জানায়, ওই বৃদ্ধাকে পার্ক সার্কাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। সেখানে তাঁর কোভিড-১৯ পজিটিভ রিপোর্ট আসে। ওই হাসপাতাল বৃদ্ধাকে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার কথা জানালে তাঁকে বাইপাসের ধারের ওই হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। সেখানে ভরতি গিয়েই জটিলতার সৃষ্টি হয়।

অথচ, কমিশন আগেই পরামর্শ জারি করেছে, কোনো ধরনের রোগীরই ভরতির সময় আনুমানিক চিকিৎসা ব্যয়ের ২০ শতাংশ অথবা ৫০ হাজার টাকার বেশি অগ্রিম নিতে পারবে না বেসরকারি হাসপাতাল। করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্ত রোগীর দ্রুত চিকিসা শুরু করতে হবে। রোগীর পরিবার ১২ ঘণ্টার মধ্যে অগ্রিম মেটাবেন। অভিযোগ পাওয়ার পরে ওই হাসপাতালটির বিরুদ্ধে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করে কমিশন। ২০১৭ সালে গঠিত হওয়ার পর, কমিশন প্রথমবার এ ধরনের কোনো পদক্ষেপ নিল।

রোগীর পরিবারের অভিযোগ, তাঁরা ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত অগ্রিম জমা করতে প্রস্তুত ছিলেন। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তা প্রত্যাখ্যান করেন। অ্য়াম্বুলেন্সের ভিতরেই শায়িত রোগীর মৃত্যু হয় বিনা চিকিৎসায়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অবশ্য দাবি করেছেন, এই অভিযোগ সঠিক নয়। চিকিৎসকরা রোগীকে জরুরিকালীন পরিষেবা হিসেবে সিপিআর (Cardiopulmonary resuscitation) দেন, কিন্তু তাঁকে বাঁচানো যায়নি।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অসীমকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ‘‘আমি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে ঘটনাটি জেনেছি। এটা সত্যি, মিথ্যে যেটাই হোক না কেন, একটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং অমানবিক ঘটনা। এ বিষয়ে আমরা স্বত:প্রণোদিত মামলা শুরু করেছি। দু’টি হাসপাতালকেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এ বিষয়ে বক্তব্য জানাতে। যে হাসপাতালে রোগী ভরতি ছিলেন এবং যেখানে তাঁকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, দু’টি হাসপাতালেরই বক্তব্য জানতে চেয়েছি”।

একই সঙ্গে তিনি জানান, এই মামলার শুনানি আগামী ১৯ আগস্ট হতে পারে। এটা ছাড়াও হোয়াটসঅ্যাপে আরও দু’টি অভিযোগ পেয়েছে কমিশন।

অন্য একটি ঘটনা উত্তর ২৪ পরগনার শ্যামনগরের পরিচিত চিকিৎসক প্রদীপকুমার ভট্টাচার্যের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে। করোনা চিকিৎসায় বেসরকারি হাসপাতালের বিল নিয়ে শোরগোলের মধ্যেই এই চিকিৎসকের মৃত্যু নিয়ে সরব হয়েছেন অনেকেই।

প্রদীপবাবুকে বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। তাঁর পরিবারকে ১৮ লক্ষ ৩৪ হাজার টাকার বিপুল অঙ্কের বিল ধরানো হয়। কয়েকটি সংগঠনের তরফে ওই বিল কমানোর অনুরোধও করা হয়। কিন্তু তাতে কোনো কাজ হয়নি।

এই ঘটনাটিতেও হস্তক্ষেপ করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশন। এ প্রসঙ্গে চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, হাসপাতালকে ওই বিল রিভিউ করার কথা বলেছি। সে ক্ষেত্রে পরিবার যদি বিলের অঙ্ক মিটিয়েও দেন, তা হলেও তা পুনর্বিবেচনা করে বিলের অঙ্ক কমিয়ে টাকা ফেরত দেওয়ার নিয়ম রয়েছে।

প্রসঙ্গত, রাজ্য মেডিকেল কাউন্সিলের সভাপতি তথা রাজ্যের মন্ত্রী, নির্মল মাজি ইতিমধ্যেই বলেছেন, আকাশছোঁয়া বিল এবং বিল না মেটালে অমানবিক আচরণ, বেসরকারি হাসপাতালের এহেন আচরণকে বরদাস্ত করবে না রাজ্য সরকার। প্রয়োজনে গ্রেফতারির পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। শুনে নিন-

Continue Reading

রাজ্য

রোগীর সংখ্যা পনেরোশোর কাছাকাছি, অথচ রাজ্যের দুই জেলায় এখনও কোভিডে কারও মৃত্যু হয়নি

মনে করা হচ্ছে, এই দুই জেলাতেই কোভিড-আক্রান্তের অধিকাংশই কমবয়সি। এ ছাড়া অভিবাসী শ্রমিকরাও রয়েছেন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু এড়িয়ে গিয়েছে এই দুই জেলা।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এখনও মৃত্যুহীন থাকার রেকর্ড ধরে রাখতে পারছে বাঁকুড়া (Bankura) আর কোচবিহার (Cooch Behar)। রাজ্যের এই দুই জেলায় এখনও পর্যন্ত কোভিডে কারও মৃত্যু হয়নি। অথচ দুই জেলাতেই রোগীর সংখ্যা পনেরোশোর কাছাকাছি চলে গিয়েছে।

বুধবারের আগে পর্যন্ত রাজ্যের চার জেলায় কোভিডে (Covid 19) কারও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু বুধবার সেই তালিকা থেকে বাদ পড়ে পুরুলিয়া আর ঝাড়গ্রাম। পুরুলিয়ায় এক জন আর ঝাড়গ্রামে দু’ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ঝাড়গ্রামে মোট রোগী ১০৬ আর পুরুলিয়ায় ৪৫৭। অথচ বাঁকুড়া আর কোচবিহারে রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৫ জন আক্রান্ত হওয়ায় বাঁকুড়ায় মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১,২৩৭। অন্য দিকে কোচবিহারে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১,৪৯৫। বাঁকুড়ায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮৫০ জন আর কোচবিহারে ১,০৩৭ জন।

মনে করা হচ্ছে, এই দুই জেলাতেই কোভিড-আক্রান্তের অধিকাংশই কমবয়সি। এ ছাড়া অভিবাসী শ্রমিকরাও রয়েছেন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু এড়িয়ে গিয়েছে এই দুই জেলা। যদিও কত দিন মৃত্যুহীন থাকার এই রেকর্ডটি এই দুই জেলা ধরে রাখতে পারে, সেটাই এখন দেখার।

অন্য দিকে গত মার্চে কালিম্পংয়ে এক প্রৌঢ়ার মৃত্যু হয়েছিল কোভিডে। তার পর থেকে সেই জেলায় আরও কারও মৃত্যু হয়নি। বর্তমানে এই জেলায় রোগীর সংখ্যা ২২৩।

কোভিডে মৃত্যুর সংখ্যায় এখনও সবার শীর্ষে কলকাতা (৯৯৯)। এর পর রয়েছে উত্তর ২৪ পরগণা (২৬১), দক্ষিণ ২৪ পরগণা (১১২), হুগলি (৭৭)। দার্জিলিং জেলায় মৃত্যু হয়েছে ৪১ জনের। পূর্ব মেদিনীপুরে ২৩ জন কোভিডে মারা গিয়েছেন। মুর্শিদাবাদে মৃত্যু হয়েছে ২২ জনের। নদিয়া আর ঝাড়গ্রামে ২০ জন করে ব্যক্তি মারা গিয়েছে কোভিডে।

১৭ জন করে রোগীর মৃত্যু হয়েছে জলপাইগুড়ি আর মালদায়। পূর্ব বর্ধমান আর দক্ষিণ দিনাজপুরে মারা গিয়েছেন ১৬ জন করে। পূর্ব বর্ধমানে ৮, বীরভূমে ৭ আর আলিপুরদুয়ারে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে।

Continue Reading
Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদন

Advertisement
রাজ্য10 mins ago

কলেজে ভরতির ফর্ম বাবদ সর্বোচ্চ খরচ বেঁধে দিল রাজ্য

দেশ58 mins ago

করোনা চিকিৎসায় ভারতে সব থেকে সস্তার রেমডেভিসির ওষুধ নিয়ে এল জাউডাস ক্যাডিলা

care
কেনাকাটা2 hours ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

দেশ2 hours ago

রামজন্মভূমি ট্রাস্টের প্রধানের কোভিড, ভূমিপুজোর দিন প্রধানমন্ত্রীর পাশেই ছিলেন

দেশ2 hours ago

সৎ করদাতাদের সুবিধার্থে ‘স্বচ্ছ করব্যবস্থা’ চালু করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

representational pic.
দেশ3 hours ago

এ বার পঞ্জাবে কংগ্রেসের দ্বন্দ্ব চরমে, মুখ্যমন্ত্রীকে ‘মানসিক ভারসাম্যহীন’ বললেন দলীয় সাংসদ

রাজ্য4 hours ago

রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের নির্দেশের পরেও কেন উদাসীন বেসরকারি হাসপাতাল?

দেশ4 hours ago

৮ লক্ষের বেশি টেস্টে আক্রান্ত ৬৭ হাজার, দৈনিক সংখ্যায় রেকর্ড হলেও সংক্রমণের হার কমল ভারতে

কেনাকাটা

care care
কেনাকাটা2 hours ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

কেনাকাটা7 days ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

কেনাকাটা7 days ago

এই ১০টির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি প্রাইম ডে সেলে কিনতে পারেন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : চলছে অ্যামাজনের প্রাইমডে সেল। প্রচুর সামগ্রীর ওপর রয়েছে অনেক ছাড়। ৬ ও ৭  তারিখ চলবে এই সেল।...

কেনাকাটা1 week ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা2 weeks ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা2 weeks ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা3 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা3 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা4 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

নজরে

Click To Expand