কলকাতা: শীতের সঙ্গে সঙ্গে সার্কাসও বুঝি হারিয়ে গেল শহর থেকে। ডিসেম্বরের শেষ, কিন্তু শীতের দেখা নেই। বছর দশেক আগেও কলকাতা শহরে শীত নামলেই পার্ক সার্কাস সহ নানা দিকে মাস খানেকের জন্য বসে যেত সার্কাস। বাজার খারাপ যাচ্ছিল বেশ কয়েক বছর ধরেই। কেন্দ্রের নোট বাতিল নীতি ঘোষণার পর থেকে অবস্থা আরও খারাপ। বিমুদ্রাকরণের ঘোষণার ঠিক একমাসের মধ্যে কেন্দ্রীয় চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ বাতিল করে দেয় সার্কাসে হাতির খেলা দেখানো। কেন্দ্রের এই দুই নীতিতে পুরোপুরি মুখ থুবড়ে পড়েছে সার্কাস শিল্প। অনিশ্চয়তায় দিন কাটাচ্ছে এই শিল্পের সঙ্গে যুক্ত থাকা হাজার হাজার মানুষ।

সার্কাসে হাতির খেলা দেখানোর ওপর যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কেন্দ্র, তার পেছনে যুক্তি, হাতিদের ওপর অত্যাচার করা চলবে না। টালা পার্কের কোহিনূর সার্কাসের ম্যানেজার জয়রুল হক জানিয়েছেন, তার দলে এখন খেলা দেখানোর জন্য মতিলাল আর শাহজাহান নামে দুটি হাতি রয়েছে। জয়রুল মনে করেন, দিব্যি রয়েছে ওরা। ডিসেম্বরের ১১ তারিখ থেকে সার্কাসের সমস্ত পাখি, কুকুর সবার রেজিস্ট্রেশন বাতিল করেছে কেন্দ্র। ফলে পসরা সাজিয়ে বসলেও খেলা দেখাতে পারছেন না কেউ।

circus2

সিঁথির মোড়ের ফেমাস সার্কাস এবং পাটুলির এম্পায়ার সার্কাসের মালিকদেরও অভিযোগ একই। তারা জানিয়েছেন, হাতির খেলা দেখানো যাবে না, এটুকু ঘোষণা করেই খালাস কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু হাতিদের পুনর্বাসনের কোনো ব্যবস্থা হয়নি এখনো। এক একটা হাতির এক দিনের খাওয়ার খরচ প্রায় হাজার পাঁচেক টাকা। মন্দার বাজারে এই খরচ বহন করা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। আরও বড়ো সমস্যা তৈরি হয়েছে বিদেশি শিল্পীদের টাকা দেওয়ার ক্ষেত্রে। সরকারের নতুন নিয়মে ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তোলার ঊর্ধ্বসীমায় অনেক বিধি নিষেধ থাকায় খুব সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তাদের। অন্যদিকে, বিদেশিরা ভারতে অ্যাকাউন্ট খুলতেও পারছেন না।

সব মিলিয়ে সার্কাস শিল্প আমাদের দেশ থেকে প্রায় উঠে যাওয়ার মুখে। কালো টাকা দূর করতে গিয়ে দেশের অসংগঠিত ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত থাকা মানুষগুলো, তাদের শিল্পগুলো পুরোপুরি হারিয়ে যাবেনা তো? দুশ্চিন্তায় কাটছে ওদের প্রতিটা মুহূর্ত। তার মাঝেই কোন কোন সার্কাস দল ভাবছেন, নিষেধাজ্ঞা যেহেতু কেন্দ্রের, হয়তো পাশে পাবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে। মোদীর প্রতিটা নীতির সমালোচনায় গলা ফাটিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বিশ্বাসেই মমতার সঙ্গে খুব শিগগির দেখা করতে চলেছে, শহরের নামী তিনটি সার্কাস দল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here