Connect with us

রাজ্য

দুষ্কৃতীদের গুলিতে আহত আসানসোল দক্ষিণ থানার এসআই, ভরতি হাসপাতালে

Published

on

ওয়েবডেস্ক: সোমবার কাকভোরে দুষ্কৃতীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তির সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে ভরতি হলেন আসানসোল দক্ষিণ থানার এসআই সন্দীপ পাল।

ঘটনায় প্রকাশ, এ দিন ভোর সাড়ে চারটে নাগাদ আসানাসোল স্টেশন রোডের ১৩ নম্বরে কর্তব্যরত ছিলেন আসানসোল দক্ষিণ থানার এসআই সন্দীপ পাল। তাঁর সঙ্গে ছিলেন কনস্টেবল অরিজিৎ সামন্ত ও এক সিভিক ভলান্টিয়ার। সেখানেই তিন দুষ্কৃতীর সঙ্গে তাঁদের ধস্তাধস্তি হয়।

স্টেশন রোডে কর্তব্যরত পুলিশের এই দলটিকে এক অটোচাল জানান, তিন জন লোক তাঁর অটো করে আসার পর ভাড়া দিচ্ছেন না। পুলিশকে সামনে পেয়ে ওই অটোচালক ঘটনাটি দেখার অনুরোধ করেন। তিন ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলতে শুরু করে পুলিশ। কিন্তু তাদের অসংলগ্ন কথাবার্তায় পুলিশের সন্দেহ হয়। যে কারণে তাদের গাড়িতে তুলে থানায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়।

সে সময়ই ধস্তাধস্তি শুরু হয়। জানা গিয়েছে, ওই তিন জন ব্যক্তি পুলিশের চোখে লঙ্কার গুঁড়ো ছিটিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। পাশাপাশি পুলিশকে লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলিও চালায় দুষ্কৃতীরা। ঘটনাস্থলেই অসুস্থ হয়ে পড়েন সন্দীপ। তাঁকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে গিয়ে জানা যায় তিনি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। বর্তমানে দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দুষ্কৃতীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে আহত অরিজিৎ সামন্ত নামে এক কনস্টেবলও।

আরও পড়ুন শীতের জন্য অপেক্ষা আর কত দিন?

পুলিশ সূত্রে খবর, দুষ্কৃতীদের উদ্দেশে তল্লাশি চলছে। গত কয়েক মাস ধরে ফের আসানসোল এলাকায় দুষ্কৃতীতাণ্ডব বেড়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ। সোমবারের ওই তিন দুষ্কৃতীর সঙ্গে এলাকার এক কুখ্যাত দুষ্কৃতীর যোগ থাকতে পারে বলে পুলিশের অনুমান।

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

রাজ্য

দৈনিক সংক্রমণ, মৃতের সংখ্যা প্রায় অপরিবর্তিত, সার্বিক ভাবে আশাপ্রদ রাজ্যের করোনা-পরিস্থিতি

Published

on

দমদম মেট্রো। ছবি: পিটিআইয়ের সৌজন্যে

কলকাতা: রাজ্যের করোনা-পরিস্থিতি যে ক্রমশই ইতিবাচক হয়ে উঠছে, তা জানা গেল বুধবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত তথ্যে।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনামুক্তের সংখ্যা ২ হাজার ৯৯৮, সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত সংক্রমণমুক্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৫ হাজার ২৮। সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৮৭.৩৭ শতাংশ। গত মঙ্গলবার এই হার ছিল ৮৭.২৮ শতাংশ। যা থেকে স্পষ্ট, রাজ্যের করোনা-পরিস্থিতির ক্রমশ উন্নতি হচ্ছে। দৈনিক সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যায় এখনও সে ভাবে লাগাম পরানো না গেলেও সার্বিক ভাবে রাজ্যের করোনা-চিত্র আশাপ্রদ।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে ৩ হাজার ১৮৯ জন করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন (মঙ্গলবার এই সংখ্যাটি ছিল  ৩ হাজার ১৮২)। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ৩৪ হাজার ৬৭৩ । কিন্তু কোভিডরোগীদের মধ্যে সিংহভাগ সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়ে যাওয়ায় বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২৫ হাজার ১০১ । অন্য দিকে, চলতি সেপ্টেম্বর মাসে এখনও পর্যন্ত দৈনিক নয়া সংক্রমণের গড় যা ছিল, তার তুলনায় এই পরিসংখ্যান স্বস্তিদায়ক।

স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান বলছে, ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৬১ জনের (মঙ্গলবার মৃত ৬২)। ফলে সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে করোনায় মৃত ৪ হাজার ৫৪৪। তবে মৃত্যুহারে তেমন কোনো হেরফের ঘটেনি। যা আগের দিনের মতোই রয়েছে ১.৯৩ শতাংশে।

নমুনা পরীক্ষা

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ৪৫ হাজার ২২৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট ২৯ লক্ষ ২৪ হাজার ৫০৭টি নমুনা পরীক্ষা হল। রাজ্যে বর্তমানে প্রতি দশ লক্ষ মানুষে ৩২ হাজার ৪৯৫ জনের করোনা পরীক্ষা হচ্ছে।

অন্য দিকে মোট টেস্ট করা নমুনার মধ্যে পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ৮.০২ শতাংশ।

উদ্বেগ বাড়াল কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনা!

সার্বিক ভাবে সংক্রমণের হার কমলেও চিন্তায় রাখছে কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী জেলাগুলি।

গত কয়েক দিন পাঁচশোর উপর থাকলেও শেষ ২৪ ঘণ্টায় কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনায় কোভিড পজিটিভের সংখ্যা ছ’শোর উপর। দুই জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন যথাক্রমে ৬৬০ এবং ৬৩২ জন।

অন্য দিকে সুস্থতার সংখ্যাও এই দুই জেলায় বেশি। শেষ ২৪ ঘণ্টায় দুই জেলায় সুস্থ কোভিডরোগীর সংখ্যা যথাক্রমে ৪৮৯ এবং ৫১৬। দুই জেলাতে এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ১২ এবং ১১ জনের।

কলকাতার প্রতিবেশী জেলাতেও হেরফের

কলকাতার প্রতিবেশী জেলাগুলির মধ্যে এ দিনও দৈনিক সংক্রমণে সামান্য হেরফের ঘটেছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনা (২০২) এবং হুগলি (১৯১)-তে সামান্য কমলেও সংক্রমণ মৃদু বেড়েছে হাওড়ায় (১৮৩)। তবে উল্লেখযোগ্য ভাবে এ দিন হুগলিতে দৈনিক সংক্রামিতের সংখ্যাকে ছাপিয়ে গিয়েছে কোভিডরোগীর সংখ্যা (১৯৬)।

কিছুটা স্বস্তি উত্তরে

কোভিড-আক্রান্তের সংখ্যার ঊর্ধ্বগামী যাত্রা কিছুটা স্তিমিত হয়েছে উত্তরবঙ্গে। গত ২৪ ঘণ্টায় এই আলিপুরদুয়ারে আক্রান্ত হয়েছেন ৭১ (আগের দিন ছিল ৯৬) জন। একই সঙ্গে দৈনিক সংক্রমণ কমেছে কোচবিহার (৮৭), কালিম্পং (১৬), জলপাইগুড়ি (৬৯), উত্তর দিনাজপুর (৪২)। অন্য দিকে দৈনিক সংক্রামিতের সংখ্যা সামান্য বেড়েছে দার্জিলিং (৮৯) এবং মালদহে (৫৬)।

দুই মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পূর্ব বর্ধমান, বাঁকুড়া এবং পুরুলিয়াতেও কিছুটা স্বস্তি

পশ্চিম মেদিনীপুরে কোভিড-আক্রান্তের সংখ্যার ঊর্ধ্বগামী যাত্রা কিছুটা স্তিমিত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ১০৩ (আগের দিন ছিল ১৩৩) জন। পূর্ব মেদিনীপুরে চিহ্নিত ১০৫ (আগের দিন ছিল ১৪১) জন।

একই সঙ্গে দৈনিক সংক্রমণ কমেছে পূর্ব বর্ধমানে (৭৫)। তবে পশ্চিম বর্ধমানে দৈনিক সংক্রমণ কিছুটা বেড়ে হয়েছে ১১৯।

গত ২৪ ঘণ্টায় বাঁকুড়ায় ৮৩ (আগের দিন ছিল ১২৯) আর পুরুলিয়ায় ৫৭ (আগের দিন ছিল ৮৫) জন কোভিডে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। অন্য দিকে নদিয়ায় নতুন করে সংক্রামিত হয়েছেন ১০৯ জন, সুস্থ হয়েছেন ১০৫।

আরও পড়তে পারেন: হু-র পরামর্শের থেকেও ছ’গুণ বেশি নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে ভারতে: স্বাস্থ্যমন্ত্রক

Continue Reading

রাজ্য

রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ মেটাতে ফের সময়সীমা বেঁধে দিল স্যাট

বকেয়া ডিএ আগামী ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে মেটাতে হবে।

Published

on

Currency

কলকাতা: রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা বা ডিএ মিটিয়ে দিতে রাজ্যকে ফের সময়সীমা বেঁধে দিল স্য়াট (স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনাল)।

গত বছরের জুলাইয়ে স্যাট এক বছরের মধ্যে ডিএ মেটানোর নির্দেশ দেয়। রাজ্য সরকার স্যাটের আগের নির্দেশ না মানায় আদালত অবমাননার মামলা করেছিল সরকারি কর্মচারীদের সংগঠন। আগের নির্দেশে বলা হয়েছিল, ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ কার্যকর করার আগেই ২০০৬ সাল থেকে বকেয়া যাবতীয় পাওনা সরকারি কর্মীদের মিটিয়ে দিতে হবে।

১৮ জুন শুনানি শেষ হওয়ার পর পরের সপ্তাহেই ডিএ মামলার রায় ঘোষণা করে স্যাট। কিন্তু ২০১৯ সালের ২৬ জুলাই স্যাটের নির্দেশের পরেও তা কার্যকর করেনি রাজ্য সরকার। আদালত জানিয়ে দেয়, ডিএ সরকারি কর্মচারীদের প্রাপ্য। তা সরকারকে দিতেই হবে। ২৬ জুলাই থেকে ছ’মাসের সময়সীমা বেঁধে দেয় আদালত। তখন রাজ্য সরকার রিভিউ পিটিশন করলেও তা খারিজ হয়ে যায়।

এ দিন ভার্চুয়াল মাধ্যমেই কর্মী সংগঠনের আবেদনের শুনানি হয়। এ দিন স্যাট ফের রাজ্যকে নির্দেশ দেয়, বকেয়া ডিএ আগামী ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে মেটাতে হবে।

তবে কর্মী সংগঠনগুলি ধারণা করছে, স্যাটের এই নির্দেশের পর ফের আদালতে যেতে পারে রাজ্য। যে কারণে কর্মী সংগঠনগুলিও পাল্টা প্রস্তুতি নিচ্ছে।

বকেয়া বেড়ে ২১ শতাংশ!

ষষ্ঠ বেতন কমিশন চালু হলেও বকেয়া ডিএ দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা করা হয়েছিল রাজ্যের তরফে। অন্য দিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির জন্য আগামী দেড় বছর কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা বাড়াবে না বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু গত জানুয়ারিতেই কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্য ৪ শতাংশ ডিএ ঘোষণা করা হয়। সে ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ ২১ শতাংশে ঠেকেছে বলে দাবি করেছে সংগঠনগুলি।

আরও পড়তে পারেন: ডিএ মামলায় রাজ্য সরকারের আর্জি খারিজ স্যাটে

Continue Reading

দঃ ২৪ পরগনা

সুন্দরবনে ম্যানগ্রোভ রোপণে এ বার পরিবেশ-বান্ধব ‘জিও-জুট’ পদ্ধতি

পরিবেশ-বান্ধব এই পদ্ধতি সুন্দরবনে প্রথম।

Published

on

চলছে জিও-জুট পদ্ধতিতে ম্যানগ্রোভ রোপণ। নিজস্ব ছবি

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, সুন্দরবন: সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ অর‌ণ্যকে বাঁচাতে রাজ্য সরকার পাঁচ কোটি ম্যানগ্রোভ রোপণের কাজ শুরু করেছে। আর সেই ক্ষেত্রে দ্রুত ম্যানগ্রোভ রোপণে সাফল্যে এনে দিয়েছে ‘জিয়ো-জুট’‌ পদ্ধতি।

পরিবেশ -বান্ধব এই পদ্ধতি সুন্দরবনে এই প্রথম। এত দিন ম্যানগ্রোভ চারাগাছ তৈরি করতে প্লাস্টিকের ঠোঙা ব্যবহার করা হচ্ছিল। তাতে চারার বৃদ্ধি কম ঘটছিল। এ বার চটের তৈরি প্যাকেট (জিয়ো-জুট) ব্যবহার করে সাফল্য পাওয়া গিয়েছে। অল্পদিনেই গাছের বৃদ্ধি ঘটেছে দ্বিগুণ।

এই সাফল্যে বেজায় খুশি দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলা প্রশাসনের কর্তারা। এত দিন প্লাস্টিক ব্যবহারের কারণে এমনিতেই সুন্দরবন দূষিত হচ্ছিল। প্রাকৃতিক ভারসাম্যের কথা মাথায় রেখে ‘জিয়ো-জুটে’র মাধ্যমে নদী বাঁধের চরে চলতি বছরে ম্যানগ্রোভ চারা তৈরির কাজ করানো হয়েছে ‘জিয়ো-জুটে’র সাহায্যে। আর তাতেই সাফল্য পাওয়া গেছে অভাবনীয়।

পরিবেশবিদদের মতে, চটের প্যাকেটে তৈরি করা চারা সরাসরি তুলে চট-সহ বসিয়ে দিতে হবে। পরে চট পচে গিয়ে গাছের সার হিসাবেও ব্যবহার হবে। তাতে গাছ ও স্বাস্থ্যকর হবে এবং দ্রুত বৃদ্ধি ঘটবে।

‘জিয়ো-জুটের’ প্রসঙ্গে জেলারইজিএ’র দফতরের এক আধিকারিক বলেন, “সুন্দরবনে এই প্রথম পরীক্ষা মূলক ভাবে ‘ইকো-ফ্রেন্ডলি গ্রিন নার্সারি (জিয়ো-জুট) ব্যবহার করে ম্যানগ্রোভ নার্সারি করানো হয়েছে। এতে আমরা একশো শতাংশ সফল হয়েছি”।

তাঁর মতে, আগে প্ল্যাস্টিক পটে চারা তৈরি করা হতো। রোপণযোগ্য চারা তৈরি করতে সময় লাগত প্রায় ছ’মাস। জিয়ো-জুটে তৈরি চারা এক মাসের রোপণের উপযুক্ত হয়ে গিয়েছে। এই চারা বেশ সুস্থ সবল। তা ছাড়া বৃদ্ধিও ভালো।

আরও পড়তে পারেন: উম্পুন কেড়েছে পাখির আশ্রয়, সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভে কৃত্রিম বাসা তৈরি করছে সরকার

সুন্দরবনের ক্যানিং-১ ব্লকের নিকারী ঘাটা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার মাতলা নদীর চরে, গোসাবা ব্লকের রাঙাবেলিয়া ও ছোট মোল্লাখালিতে এই ‘জিয়ো-জুট’ ব্যবহারের মাধ্যমে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা এই চারগাছ তৈরির কাজ চালাচ্ছেন। এতে এক দিকে যেমন পরিবেশের দূষণ কমছে, অন্য দিকে সুন্দরবনের মহিলাদের কর্মসংস্থানও হচ্ছে।

Continue Reading
Advertisement
bangladesh foreign minister
বাংলাদেশ34 mins ago

সৌদিতে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দিতে বাংলাদেশকে চাপ

ক্রিকেট44 mins ago

বুমরাহ-বোল্টের দাপটে বিধ্বস্ত কেকেআর, লজ্জার হার দিয়ে আইপিএল যাত্রা শুরু

দেশ2 hours ago

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক মজবুত গাঁথুনির উপরে দাঁড়িয়ে, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান

রাজ্য4 hours ago

দৈনিক সংক্রমণ, মৃতের সংখ্যা প্রায় অপরিবর্তিত, সার্বিক ভাবে আশাপ্রদ রাজ্যের করোনা-পরিস্থিতি

কলকাতা4 hours ago

কলকাতার সিংহভাগ অভিভাবক চাইছেন না এখনই স্কুল খুলুক: অনলাইন সমীক্ষা

Currency
রাজ্য6 hours ago

রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ মেটাতে ফের সময়সীমা বেঁধে দিল স্যাট

LPG
দেশ6 hours ago

বিনামূল্যে এলপিজি সিলিন্ডার খুঁজছেন? মাত্র এক সপ্তাহ বাকি! প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার আওতায় কী ভাবে পাবেন, জেনে নিন

দঃ ২৪ পরগনা7 hours ago

সুন্দরবনে ম্যানগ্রোভ রোপণে এ বার পরিবেশ-বান্ধব ‘জিও-জুট’ পদ্ধতি

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা4 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা1 week ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা2 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা1 month ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

care care
কেনাকাটা1 month ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

নজরে