খবরঅনলাইন ডেস্ক: জল্পনা যেটা ছিল, সেটাই হল। বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা নির্বাচিত হলেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। নতুন এই পদে উত্তীর্ণ হয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করারই বার্তা দিলেন ডিসেম্বরে দলবদল করে গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়া পূর্ব মেদিনীপুরের এই দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতা।

এ দিন বিজেপি পরিষদীয় দলের নেতা এবং বিরোধী দলনেতা নির্বাচিত হওয়ার পরে শুভেন্দু অধিকারী জানালেন, রাজ্য সরকারের গঠনমূলক পদক্ষেপগুলির ক্ষেত্রে সহযোগিতার নীতি নিয়েই চলবেন তিনি। সোমবার তিনি বলেন, ‘‘যখন ২৯ জন বিরোধী বিধায়ক ছিলেন, তখন আমি বিধানসভার সদস্য ছিলাম। ২৩৫-এর দম্ভ আমি দেখেছি। সেই পরিস্থিতি এখন নেই। আমার অঙ্গীকার হল, হিংসামুক্ত বাংলা। শান্তির বাংলা। যে কোনো গঠনমূলক কাজে সরকারের সহযোগিতা করব।’’

Loading videos...

তবে রাজ্য বিধানসভায় নয়া বিরোধী দলনেতা রাজ্য জুড়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এর পর সাংবাদিক বৈঠকে শুভেন্দু বলেন, ‘‘গঠনমূলক কাজে অংশগ্রহণের পাশাপাশি আমরা অত্যাচারের প্রতিবাদেও সরব হব।’’

ঐকমত্যের ভিত্তিতেই তিনি বিজেপি পরিষদীয় দল পরিচালনা করবেন জানিয়ে নন্দীগ্রামের বিধায়কের ঘোষণা, ‘‘দল আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে তা পালন করব। কোনো সিদ্ধান্ত শুভেন্দু একা নেবে না, সকলকে নিয়ে চলবে।’’

উল্লেখ্য, নেতা নির্বাচনের জন্য সোমবার সকালে বৈঠকে বসেছিল বিজেপির পরিষদীয় দল। বিধানসভায় তাদের দলনেতা বাছতে কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ এবং দলের অন্যতম সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ভূপেন্দ্র যাদবকে দায়িত্ব দিয়েছিল বিজেপি।

নাটকীয় ভাবে এ দিন, দলের বিধায়ক তথা বিজেপি-র সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায় শুভেন্দু অধিকারীর নাম প্রস্তাব করেন। ওই নামে আরও ২২ জন বিধায়ক সমর্থন করেন। বাকি বিধায়করা কোনো নাম প্রস্তাব করেননি। তাই শুভেন্দুকেই দলের নেতা হিসেবে নির্বাচিত করা হল।

আরও পড়তে পারেন West Bengal Cabinet: অমিত মিত্রর হাতেই অর্থ, শিক্ষায় ব্রাত্য, পরিবহণে ফিরহাদ, ৬টি দফতর রাখলেন মমতা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.