চিত্রশিল্পী-অঙ্কনশিক্ষক তন্ময় সাঁতরার স্মরণে মৌনী মিছিল জয়পুরে

0
banner in silent procession
মৌনী মিছিলে ব্যানার। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঁকুড়া: ছাত্রদরদী প্রিয় স্যারের অকাল মৃত্যুতে কালো ব্যাজ পরে মৌনী মিছিলে হাঁটল তাঁর ছাত্রছাত্রীরা।

বুধবার বাঁকুড়ার জয়পুরের হেতিয়া বাজারে এলাকার বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী ও অঙ্কনশিক্ষক সদ্যপ্রয়াত তন্ময় সাঁতরার স্মরণে এক মৌনী মিছিলের আয়োজন করা হয়। মিছিলে তন্ময়বাবুর ছাত্রছাত্রী ছাড়াও তাদের অভিভাবক ও স্থানীয় মানুষ মৌনী মিছিলে পা মেলান। মিছিলকারীদের হাতে ছিল ব্যানার, তাতে লেখা ছিল ‘তন্ময় স্যার – তুমি বেঁচে থাকবে আমাদের রং তুলিতে’।

আরও পড়ুন কবর খোঁড়ার কাজে যুক্ত প্রান্তিক মানুষদের সম্মাননা প্রদানের বাঁকুড়ার ক্লাবের

গত ২৩ মে ভোটগণণার দিন জয়পুরের হেতিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরামপুর গ্রামে একটি বিশেষ রাজনৈতিক দলের পতাকা লাগানোর সময় সংঘর্ষের ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দা ও বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী তন্ময় সাঁতরা আক্রান্ত হন। সেই সময় তাঁকে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে ছেড়ে দেওয়া হলেও গত বৃহস্পতিবার বাড়িতে ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তখন আবার তাঁকে ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। ছাত্রদরদী এই শিক্ষকের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকা জুড়ে শোকের ছায়া নেমে আসে।

প্রিয় স্যারের অকালমৃত্যুর যারা জন্য দায়ী তাদের কঠোরতম শাস্তি দাবি করে মৌনী মিছিলে যোগদানকারী ছাত্রছাত্রী-সহ সবাই। দুষ্কৃতীদের হাতে নিহত তন্ময় সাঁতরার প্রাক্তন ছাত্রী মেঘাশ্রী মণ্ডল বলেন, “ক্লাস টু থেকে স্যারের কাছে আঁকা শিখছি। গত বছর আঁকা শেখা বন্ধ করেছি। আমি কিছুই আঁকতে জানতাম না। স্যার নিজের মেয়ের মতো ভালোবেসে আঁকা শিখিয়েছেন।”

অভিভাবক শান্তনু দাসের কথায়, “আমাদের উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন তন্ময় সাঁতরা। তাঁর হাত ধরে অসংখ্য ছাত্র ছাত্রী একেবারে ছোটো বয়স থেকে আঁকা শিখে এসেছে। তাঁর মৃত্যুর পিছনে যে কারণই থাকুক না কেন যারা এই ঘটনায় যুক্ত তাদের কঠোরতম শাস্তির দাবি জানাই।”

প্রশাসন যাতে এ বিষয়ে দৃঢ় পদক্ষেপ নেয় তার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলে আবেদন জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here