দু’-একজন চেয়ারের লোভে তৃণমূলে চলে যেতে পারেন! ইঙ্গিত বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্তার

0
বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্তা। ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: পশ্চিমবঙ্গে ঘুরিয়ে রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানালেন দার্জিলিংয়ের সাংসদ রাজু বিস্তা। শিলিগুড়িতে নিজের বাসভবন বারসানায় যুব মোর্চার এক বৈঠক করেন দার্জিলিংয়ের সাংসদ।

প্রসঙ্গ: রাষ্ট্রপতি শাসন

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি রাষ্ট্রপতি শাসন নিয়ে প্রশ্নের উত্তরে জানান, এই বিষয়ে তিনি কোনো কথা বলতে চান না। বিষয়টি কেন্দ্রীয় সরকারের। তবে এর পরই তিনি বলেন, “পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্র টর্চলাইট ও লণ্ঠনের আলো দিয়ে খুঁজতে হচ্ছে। মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকার পুলিশকে কাজে লাগিয়ে পুলিশের শাসন চালাচ্ছে রাজ্য জুড়ে। নেতারা মজা করছেন আর রাজ্যের জনতার টাকা লুঠ করছেন”।

তাঁর কথায়, “রাজ্যের জনতা সব রকম সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। পশ্চিমবঙ্গে ভারতের সংবিধানের কোনো গুরুত্ব নেই, তবে সংবিধান কেন আপনাকে গুরুত্ব দেবে”?

তিনি জানান, “কেন্দ্রের সরকার সংবিধান মেনে চলে, আফগানিস্তানের মতো তালিবানি শাসনে বিশ্বাসী নয়। পশ্চিমবঙ্গে মন মর্জিমতো সরকার চলছে, যা উচিত নয়। ভারতের সংবিধান তা মেনে নেবে না”।

বিধায়কদের দল ছাড়ার প্রশ্নে

গত বুধবার বিজেপির বৈঠকে যোগ না দেওয়া বিধায়কদের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “বিভিন্ন কারণে পাঁচ বিধায়ক বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি। তবে এটা ভাবার কোনো কারণ নেই যে, বৈঠকে না আসা মানে তৃনমূলে যোগদান সম্ভবনা। তৃণমূল সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে অনেককিছু রটিয়ে থাকে, বিজেপি নিজস্ব নীতি নিয়ে চলে, আমরা সেটা মেনে চলি। উত্তরবঙ্গের সমস্ত সাংসদ-বিধায়করা এক সঙ্গে আছি ও থাকব। তবে দু’-একজন চেয়ারের লোভে তৃণমূলে চলে গেলে, তাতে বিজেপির কোনো ক্ষতি হবে না”।

প্রসঙ্গত, বুধবার উত্তরবঙ্গের উন্নয়ন নিয়ে ‘রুট ম্যাপ’ তৈরি করে বৈঠকে বসে বিজেপি। বুধবার শিলিগুড়ির একটি বেসরকারি ভবনে উত্তরবঙ্গের সব বিজেপি বিধায়ক ও সাংসদদের নিয়ে বৈঠকে বসেন বিজেপি নেতৃত্ব। তবে ৩১ জন বিধায়কের মধ্যে পাঁচজন ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না বলেই জানা যায়।

ভিডিয়োয় দেখুন এখানে ক্লিক করে: চেয়ারের লোভ

আরও পড়তে পারেন:

উত্তরবঙ্গের উন্নয়নে ‘রুট ম্যাপ’ তৈরি করে বৈঠকে বসল বিজেপি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন