kolkata high court panchayat

কলকাতা: হাইকোর্টে জোর ধাক্কা খেল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। এবং সেই সঙ্গে রাজ্য সরকারও। পিছিয়ে গেল পঞ্চায়েত ভোট। হাইকোর্টের নির্দেশের ফলে ১ মে শুরু হচ্ছে না নির্বাচন। পঞ্চায়েত ভোটের জন্য নতুন দিন ঘোষণা করার জন্য সাফ নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চের বিচারপতি সুব্রত তালুকদার। সেই সঙ্গে মনোনয়নপত্র জমা নেওয়ার জন্য আরও একটি দিন ধার্য করার জন্য কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত। কমিশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, রায় হাতে পাওয়ার পরই তারা তাদের পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করবে। বিরোধী পক্ষের আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, হাইকোর্টের নির্দেশ কমিশন না মানলে, তাঁরা আবার আদালতে যাবেন।

শুক্রবার পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে রায় দিতে গিয়ে কমিশনের জারি করা ১০ এপ্রিলের নির্দেশিকাটি খারিজ করে দিয়েছে আদালত। উল্লেখ্য, মনোনয়নপত্র পেশের জন্য আরও একটা দিন বাড়িয়ে নির্বাচন কমিশন গত ৯ এপ্রিল রাতে নির্দেশিকা জারি করে। তবে তার পরের দিনই আরও একটি নির্দেশিকা জারি করে আগের নির্দেশিকা বাতিল করে দেয় কমিশন। হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চ এ দিন সাফ জানিয়ে দিয়েছে, নতুন করে মনোনয়নের দিন ঘোষণা না করা পর্যন্ত নির্বাচনী প্রক্রিয়া শুরু করা যাবে না।

বিচারপতি তাঁর রায়ে প্রশ্ন তুলেছেন, নির্বাচন কমিশন যদি মনোনয়নপত্র পেশের সময়সীমা এক দিন বাড়াতে পারে, পরে আবার তা বাতিল করে নতুন নির্দেশিকা জারি করতে পারে, তা হলে আবার নতুন করে মনোনয়নপত্র জমা নেওয়ার জন্য নির্দেশিকা জারি করতে পারবে না কেন?

এই মামলার এক পক্ষে ছিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন, রাজ্য সরকার এবং অন্য পক্ষে ছিল সিপিএম, বিজেপি, কংগ্রেস এবং পিডিএসের মতো বিরোধী দলগুলি। প্রথম পক্ষের বক্তব্য ছিল, একবার নির্বাচনী বিজ্ঞপ্তি জারি হয়ে গেলে হাইকোর্ট আর তাতে হস্তক্ষেপ করতে পারে না। কিন্তু সিঙ্গল বেঞ্চ সেই বক্তব্য খারিজ করে দিয়ে জানিয়ে দেয়, পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে বিরোধী দলগুলির আবেদন মামলা হিসাবে গ্রহণযোগ্য।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here