Sitaeam Yeachury and Mamata Banerjee

কলকাতা: বিজেপির রথযাত্রা নিয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, “সিপিএম পার্টিটা বিজেপির কাছে বিকিয়ে গিয়েছে। রাম আর বাম একই”। মমতার এহেন কড়া মন্তব্যের পর দিনই সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি পক্ষান্তরে বুঝিয়ে দিলেন- যে যাই বলুন, বিজেপি-বিরোধিতার পথ থেকে তাঁরা এক চুলও নড়ছেন না। যে কারণে আশ্চর্যজনক ভাবে সিবিআই প্রসঙ্গে তিনি পাশে দাঁড়ালেন সেই তৃণমূল নেত্রীরই।

শনিবার নয়াদিল্লিতে একটি সাংবাদিক বৈঠকে ইয়েচুর বলেন, “সিবিআইকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে ব্যবহার করছে কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি। সিবিআইয়ের এই অপব্যবহার নিয়ে আমাদের দলও যথেষ্ট সচেনত। ফলে বিভিন্ন বিরোধী দল যে পদ্ধতিতে সিবিআই প্রসঙ্গে বিজেপির সমালোচনা করছে, তা এক কথায় সঠিক। আইনশৃঙ্খলা রাজ্যের অভ্যন্তরীণ বিষয়। যে কারণে সিবিআই রাজ্যের অনুমতি ব্যতীত কোনো রাজ্যে তদন্তে যেতে পারে না”।

অর্থাৎ, তেলঙ্গনার মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডু এবং বাংলার মুখ্যমন্ত্রী সিবিআইয়ের তদন্ত সংক্রান্ত পুরনো অনুমতি খারিজ করে দিয়ে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তাকে স্বাগত জানিয়েছেন ইয়েচুরি। একই ভাবে রাজ্যের বিভিন্ন প্রভাবশালী শাসক দলের নেতা-নেত্রীর বিরুদ্ধে চলা সিবিআই তদন্তের ব্যাপারেও খোলসা করে নিজের মত ব্যক্ত করেছেন তিনি। ইয়েচুরি সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, “বাংলায় যেসব ঘটনায় সিবিআই তদন্ত হচ্ছে, তা আদালতের নির্দেশ মেনেই হচ্ছে। ফলে অযথা এ ব্যাপারে আমার মন্তব্য করা উচিত নয়”।


আরও পড়ুন:কাস্তে-হাড়ুড়ির ছবি দেওয়া পণ্যসামগ্রীর বিক্রি বন্ধে অনলাইন বিক্রেতা আমাজনকে চিঠি!


আইন বিশারদদের মতও কতকটা সে রকমই। কারণ, দেশের সর্বোচ্চ তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই কোনো রাজ্যে যে দুর্নীতিগুলির তদন্ত করছে তা আদালতের নির্দেশেই করছে। এতে স্বত‌ঃপ্রণোদিত হয়ে তদন্ত করার কোনো নজির নেই। ওই দুর্নীতিতে সিবিআই তদন্ত চেয়ে কোনো আবেদনকারী আদালতে যাওয়ার পর তা মঞ্জুর হওয়ার পরই সিবিআই সেই দুর্নীতির তদন্তে নামে বলে আইনবিশারদদের অভিমত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here