অ্যাডভেঞ্চারের পাশাপাশি বিশ্বরেকর্ড করার নেশা। নেশা, যে ভাবেই হোক ‘গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড’-এ জায়গা করে নিতেই হবে। এক বার ওঁরা রেকর্ড করেন, তো অন্য কেউ সেই রেকর্ড ভেঙে দেন। আবার রেকর্ড করেন, অন্য এক টিম সেই রেকর্ড টপকে যায়। কিন্তু ওঁরা তো দমে যাওয়ার পাত্র নন। তাই আবার পথে নেমেছেন ওঁরা। ফের নতুন রেকর্ড গড়ার নেশায় বেরিয়ে পড়েছেন লাদাখের ভয়ঙ্কর দুর্গম পথে মোটরবাইক নিয়ে। যাত্রা করেছেন কলকাতা থেকে। ওঁরা মানে ছ’ জন — ইন্দ্রদেব চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বরাই, মানব সেন, অচিন্ত্য কুমার সাহা, শ্রীকৃষ্ণ বিশ্বাস ও শান্তনু রায়চৌধুরী। ওঁরা ‘নর্থ ক্যালকাটা দিশা মোটরসাইকেল ক্লাব’-এর ডাকাবুকো ছয়।

ওঁরা শুরু করেছেন সেই ১৯৯৪ সাল থেকে। মোটরবাইকে সওয়ার হয়ে পর্বতারোহণ করা। গিয়েছেন সান্দাকফু, গিয়েছেন লাদাখ, গিয়েছেন তিব্বত। নর্থ কল দিয়ে এভারেস্টের পথেও গিয়েছেন অনেকটা। ২০০৮ সালে তাঁরা মোটরবাইকে উঠেছিলেন ২০৪৮৮ ফুট ৯ ইঞ্চি, ভারত-চিন সীমান্তের চাংচেমনো রেঞ্জে। নাম উঠল গিনেসে। কিন্তু সেই নাম বেশি দিন থাকল না সেই বইয়ের পাতায়। চিলির একটা টিম ২১২৩০ ফুট উঠে তা ভেঙে দিল।

এ বার ‘দিশা’র পালা। ২০১৪ সালে লাদাখ অঞ্চলে ২১৫০০ ফুট উচ্চতায় গিয়ে আবার গিনেসে নাম তোলেন এঁরা। আবার মুছে গেল সেই রেকর্ড। না চিলি নয়, এ বার ইতালির একটা টিম মোটরবাইকে পর্বতারোহণের নতুন রেকর্ড গড়ে ফেলল। “কিন্তু আমরা চাই না, গিনেস বুক থেকে আমাদের নাম মুছে যাক। তাই আবার চলেছি আমরা। সেই লাদাখের পথে। এ বার রুপশু উপত্যকায়। চেষ্টা করব ২১৭৫০ ফুট পর্যন্ত চড়তে। রাস্তা একেবারেই মোটরবাইক চালানোর যোগ্য নয়। তবে মোটরবাইকগুলো যতটা সম্ভব ওই রাস্তার উপযোগী করে নেওয়ার চেষ্টা করেছি” – বলছিলেন ক্লাবের সম্পাদক প্রায় সাড়ে ছ’ ফুট লম্বা শান্তনু।

দিশার এই অভিযানে বাজেট ধরা হয়েছে ১৬ লক্ষ টাকা। ইন্ডিয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ফাউন্ডেশন এই অভিযান অনুমোদন করেছেন। তা ছাড়া এই অভিযানে ওঁরা পাশে পেয়েছেন রাজ্য সরকারকেও। লাদাখের পথে রওনা হলেন বুধবার, সঙ্গে জাতীয় পতাকা, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেওয়া বিশ্ববঙ্গ-এর লোগো দেওয়া পতাকা এবং মোহনবাগান ক্লাবের পতাকা।

সাবধানে গাড়ি চালালে যে প্রাণ বাঁচে তা প্রমাণ করার পরিকল্পনাও রয়েছে এই তরুণ দলটির। তাই অভিযানের মধ্যে দিয়ে ‘সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ’ স্লোগানকেও প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্য নিয়েছেন এঁরা।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here