mangpu rabindranath

দার্জিলিং: পাহাড়ে রবীন্দ্রনাথের প্রিয় জায়গা, অর্থাৎ মংপুতে খুব শীঘ্রই তৈরি হতে পারে একটি বিশ্ববিদ্যালয়। এমনই একটি সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে রাজ্য সরকার। সেই সঙ্গে রবীন্দ্র মিউজিয়ামটির ভোল বদলের জন্য তিন কোটি টাকা বরাদ্দও করেছে রাজ্য পর্যটন দফতর।

এই প্রসঙ্গে রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব বলেন, “এখানে একটা বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করার দাবি রয়েছে অনেক দিন ধরেই। সেই সঙ্গে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও চান দার্জিলিংকে শিক্ষার পীঠস্থানের তকমা ফিরিয়ে দিতে। খুব তাড়াতাড়িই এখানে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি হবে। সিঙ্কোনা চাষের জমি ব্যবহার করা হবে।”

দার্জিলিং-এর জেলাশাসক জয়শী দাশগুপ্ত বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য জমি হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। প্রথমে তিন একর জমি হস্তান্তর করা হবে। পরে আরও জমি দেওয়া হবে।”

রবীন্দ্রনাথের অন্যতম প্রিয় জায়গা এই মংপু। ১৯৩৮-এর ২১ মে এখানে পা রাখেন রবি-কবি। প্রথমে মাসখানেক এখানে ছিলেন। পরের বছর মে থেকে জুন এবং সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর এখানে ছিলেন তিনি। শেষ বার ১৯৪০-এর ২১ এপ্রিল এখানে পৌঁছোন রবীন্দ্রনাথ। সে বার তাঁর জন্মদিন এখানে উদযাপন হয়েছিল। এর পরেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ায় কলকাতায় ফিরে যান।

মংপুতে যে বাড়িতে থাকতেন, মনমোহন সেনের সেই বাড়িটিতে ১৯৪৪-এ ‘রবীন্দ্র স্মৃতি ভবন’ তৈরি হয়। ২০০৯-তে এখানে তৈরি হয় ‘রবীন্দ্র মিউজিয়াম।’ গৌতম দেব আরও বলেন, “মিউজিয়ামের সংস্কারের জন্য তিন কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে পর্যটন দফতর।”

এ ছাড়াও পাহাড়ে পর্যটনের উন্নয়নে আরও বেশ কিছু পদক্ষেপের কথাও বলেন গৌতমবাবু। কালিম্পং-এর হিল টপ টুরিস্ট লজ এবং মর্গ্যান টুরিস্ট লজ সংস্কার করা হবে। সেই সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ-সিকিম সীমান্ত অঞ্চলে রোপওয়ে তৈরি করার কথাও বলেন গৌতমবাবু।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here