Connect with us

বিনোদন

‘ভবিষ্যতের ভূত’: সৌমিত্র বললেন, ‘এ তো যথেচ্ছাচার’

soumitra chattopadhyay

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘হায়ার অথরিটির নির্দেশ’ বলে মুক্তি পাওয়ার দেড় দিনের মধ্যে অনীক দত্তের ‘ভবিষ্যতের ভূত’ সিনেমা হল থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার এ প্রসঙ্গে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বললেন, “এ তো যথেচ্ছাচার।”

‘ভবিষ্যতের ভূত’ সিনেমা হল থেকে সরিয়ে নেওয়ার প্রতিবাদে অবস্থান বিক্ষোভ চলছেই।

সোমবার মেট্রো চ্যানেলের পর মঙ্গলবার অ্যাকাডেমি অফ ফাইন আর্টস চত্বরে অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হলেন বাংলা চলচ্চিত্রশিল্পী ও কলাকুশলীরা।

sabyasachi chakraborty

প্রতিবাদে শামিল সব্যসাচী চক্রবর্তী।

সেই প্রতিবাদ সভায় যোগ দিয়ে সৌমিত্র বলেন, “আমার প্রথম থেকেই অদ্ভুত লাগছে। কখনও তো হয়নি এ রকম, হায়ার অথরিটি নাকি বলেছে এই ছবির বিষয় থেকে গোলযোগ তৈরি হতে পারে। এ তো যথেচ্ছাচার। এ ক্ষেত্রে কি কোনো প্রতিহিংসামূলক আচরণ কাজ করছে?’’

সভায় পরিচালক অনীক দত্ত বলেন, “‘ভবিষ্যতের ভূত’ সিনেমা হল থেকে সরিয়ে নেওয়ার প্রতিবাদে সৌমিত্রদা কড়া ভাষায় চিঠি দিয়েছেন। আমরা বলেছিলাম, আজ আপনি আসতে পারলে ভালো হয়। আমরা ছবিটা সরিয়ে নেওয়ার কারণ জানতে চাই। যে সব দর্শক দেখতে গিয়েছিলেন তাঁদের বলা হয়েছে, হায়ার অথরিটির নির্দেশ। কিন্তু কেউ কোনো লিখিত নির্দেশ দেখাতে পারেনি।’’

আরও পড়ুন ভবিষ্যতের ভূত: প্রতিবাদে মুখর পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, কলম ধরলেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য

অনীক বলেন, “সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে ছবিটি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা আইনি পথে হাঁটব। সেজন্য ইমপা-র সদস্যদের সমর্থনও মিলেছে।” দরকার হলে তাঁরা সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত যাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সৌমিত্র, অনীক ছাড়াও এ দিনের সভায় সব্যসাচী চক্রবর্তী, বরুণ চন্দ, বাদশা মৈত্র, কৌশিক সেন, দেবলীনা দত্ত, চান্দ্রেয়ী ঘোষ প্রমুখ যোগ দেন। সভায় শামিল হন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়, এসআরএফটিআই-এর ছাত্রছাত্রীরাও। সভা থেকে আওয়াজ ওঠে, আইনি পথেই প্রতিরোধ হবে এই অবিচারের।

deblina dutta, badshah moitra

রয়েছেন দেবলীনা দত্ত, বাদশা মৈত্র প্রমুখ।

গত শুক্রবার মুক্তি পায় অনীক দত্ত পরিচালিত ‘ভবিষ্যতের ভূত’ ছবিটি। কিন্তু শনিবার থেকে কলকাতা-সহ পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত হল ও মাল্টিপ্লেক্সে ছবিটির প্রদর্শন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এখনও সে ছবি সিনেমা হলে ফেরেনি। এমনকি হল থেকে কেন এই সিনেমা সরিয়ে নেওয়া হল, প্রমাণ-সহ তার নির্দিষ্ট কোনো কারণ দেখাতে পারেনি হল কর্তৃপক্ষ।

সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পাওয়ার পর হল থেকে কোনো সিনেমা সরিয়ে নেওয়ার যায় না বলে দাবি করেছেন ‘ভবিষ্যতের ভূত’-এর জড়িত অনেকেই। সে কারণেই এই ছবির প্রযোজক কল্যাণময় চট্টোপাধ্যায় বিভিন্ন হল-মালিকের কাছে সিনেমাটি সরিয়ে দেওয়ার সঠিক কারণ জানতে চেয়ে একটি লিখিত নোটিস পাঠিয়েছেন।

বিনোদন

বলিউডে আবার শোকের ছায়া, ৪২ বছরেই প্রয়াত সংগীত পরিচালক ওয়াজিদ খান

খবর অনলাইনডেস্ক: ইরফান খান, ঋষি কপুরের পর বলিউডে ফের মৃত্যুসংবাদ। মাত্র ৪২ বছরেই মারা গেলেন সংগীত পরিচালক ওয়াজিদ খান (Wazid Khan)।

কিছু দিন আগেই সলমান খানের দু’টি গানের সংগীত পরিচালনা করেছিলেন বলিউডের বিখ্যাত এই সাজিদ-ওয়াজিদ জুটি।

সংগীত পরিচালক সেলিম মার্চেন্ট ওয়াজিদ খানের মৃত্যুসংবাদ সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। টুইটারে তিনি লেখেন, “আমার ভাই ওয়াজিদের এমন আচমকা মৃত্যুতে আমি শোকস্তব্ধ। আল্লা ওঁর পরিবারকে এই দুঃসময়ে লড়াই করার শক্তি দিন। সাবধানে যেও ভাই… বড্ড তাড়াতাড়ি চলে গেলে। আমাদের জন্যে এক বড় ক্ষতি হয়ে গেল। ভেঙে পড়েছি…”

কিডনির অসুখ ছিল ওয়াজিদের। সংবাদসংস্থা পিটিআইকে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে এমনই জানিয়েছেন সেলিম মার্চেন্ট। কিছু দিন আগেই তাঁর কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। সম্প্রতি জানতে পারেন কিডনিতে সংক্রমণ হয়েছে। গত চার দিন তাঁকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছিল। দ্রুত অবস্থার অবনতি ঘটে।

ওয়াজিদের মৃত্যুতে সোশ্যাল মিডিয়ায় শোক প্রকাশ করেছেন তারকারা।

১৯৯৮ সালে সলমান খানের ছবি ‘প্যার কিয়া তো ডরনা কয়্যা’ দিয়ে বলিউডে সফর শুরু হয়ে সাজিদ-ওয়াজিদ জুটির। এর পর সলমান অভিনীত বহু ছবিরই সংগীত পরিচালনা করেন তাঁরা।

Continue Reading

বিনোদন

অমৃতার সঙ্গে পুরনো ছবি দেখে আবেগপ্রবণ করিনা কপূর খান

ওয়েবডেস্ক: লকডাউনে বলিউড সেলেবদের নতুন কাজের চাপ নেই। তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁরা প্রায়শই পুরনো ছবি-ভিডিও পোস্ট করছেন।

কেউ পোস্ট করছেন নিজের শৈশবের ছবি, তো কেউ অনুরাগীদের সঙ্গে ভাগ করে নিচ্ছেন নিজের কিছু স্মরণীয় মহূর্তের ছবিও। কেউ আবার লকডাউনে রান্নাবান্না, ঘর পরিষ্কারের ছবিও দিতে বাদ দিচ্ছেন না। করিনা, করিশ্মা, মালইকা অরোরা অথবা অমৃতা অরোরার মতো স্টাইলিশ নায়িকাদের পুরনো ছবি কখনও কখনও সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চার বিষয়ও হয়ে উঠছে।

View this post on Instagram

😂😂😂❤️

A post shared by Kareena Kapoor Khan (@therealkareenakapoor) on

অন্য দিকে ইন্ডাস্ট্রির নায়িকাদের সঙ্গে গভীর বন্ধুত্বের জন্য যথেষ্ট সুনাম রয়েছে করিনা কপূর খানের (Kareena Kapoor Khan)। তবে কারও কারও সঙ্গে বৈরিতাও প্রকাশ্যে এসেছে মাঝেমধ্যে।

তা যাইহোক, এ দিন অমৃতা অরোরার (Amrita Arora) সঙ্গে ছবিটি সম্পর্কে করিনা লিখেছেন, ছবিটা দেখে তিনি এক নিমেষে কতটা নস্টালজিক হয়ে পড়ছেন। সে দিনের সেই অনুভূতি আজও টাটকা রয়েছে।

ছবিতে করিনাকে একটি নেট হাল্টার পার্টি টপ পরা অবস্থায় দেখা যাচ্ছে, অন্য দিকে অমৃতা একটি সুন্দর প্রিন্টেড টিউব টপ পরেছেন। প্রথমবার দেখে মনে হয়, কোনো জায়গায় ঘুরতে গিয়ে তাঁদের দেখা হয়ে যায়। দু’জনের ঠোঁটেই সেই আনন্দঘন মুহূর্তের হাসি খেলছে।

প্রসঙ্গত, শেষবার করিনাকে দেখা গিয়েছিল প্রয়াত ইরফান খানের সঙ্গে ‘আংরেজি মিডিয়াম’ ছবিতে। তার আগে অক্ষয় কুমারের সঙ্গে ‘গুড নিউজ’-এ দেখা যায় তাঁকে। পরের ছবি আমির খানের সঙ্গে তাঁকে দেখা যাবে ‘লাল সিং চাড্ডা’য়।

Continue Reading

বিনোদন

সোনু সুদের লোকাল ট্রেনের মান্থলি ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

খবর অনলাইন ডেস্ক: সোশ্যাল মিডিয়ায় দু’টি ছবি ভাইরাল হয়েছে। একটি, মুম্বইয়ের লোকাল ট্রেনের মান্থলি পাস। পাস ইস্যু করা হয়েছে বরিভলি থেকে চার্চগেট যাতায়াতের জন্য। মান্থলির মূল্য ৪২০ টাকা, পাসের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ১৯৯৮-এর মার্চে। আর একটি, পশ্চিম রেলের ইস্যু করা ছবি-সহ আইডি। এটি ইস্যু করা হয়েছে ১৯৯৭-এর জুলাইয়ে। দু’টিরই মালিক ২৪ বছর বয়স্ক সোনু সুদ।

হ্যাঁ, ঠিকই ধরেছেন এই সোনু সুদই বলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা, যিনি অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য সক্রিয়তায় আজ সংবাদের শিরোনামে। দু’টি ছবিই এক সোনু-ভক্ত টুইটারে শেয়ার করতেই ঝড় উঠেছে। যিনি সোনুর ছবি শেয়ার করেছেন, তিনি মন্তব্য করেছেন, “বাস্তবে যিনি সংগ্রাম করেছেন, তিনিই একমাত্র অন্যের ব্যথা বুঝতে পারেন।” জবাবে সোনু শুধু বলেছেন, “জীবন একটি সম্পূর্ণ বৃত্ত।”

দেশব্যাপী লকডাউনের ফলে বিভিন্ন জায়গায় আটকে পড়েছেন অভিবাসী শ্রমিকেরা। পরিবারের কাছে তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য নানা ভাবে নিরন্তর চেষ্টা করে চলেছেন সোনু সুদ। আজকের দিনে সবাই তাঁকে ‘রিয়্যাল হিরো’ বলে সম্মান জানাচ্ছে। 

লকডাউন চালু হওয়ার পর থেকে যে সব অভিবাসী শ্রমিক হেঁটে নিজেদের দেশ-বাড়িতে ফেরার চেষ্টা করছেন, তাঁদের জন্য বাসের ব্যবস্থা করে দিচ্ছেন সোনু। শুধু তা-ই নয়, খাবারেরও বন্দোবস্ত করে দিচ্ছেন। অভিবাসী শ্রমিক সাহায্য করার জন্য চালু করেছেন টোল ফ্রি হেল্প লাইন নম্বর। শুধু তা-ই নয়, তাঁর কাছে কোনো বার্তা এলে দ্রুত তার জবাব দিচ্ছেন টুইটারে। জানতে চাইছেন সাহায্যপ্রার্থীদের বিশদ তথ্য, যাতে তিনি তাঁদের কাছে পৌঁছোতে পারেন এবং তাঁদের দ্রুত বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করতে পারেন।

নানা ধরনের কৌতূহলোদ্দীপক কথাবার্তায় তাঁর টুইটার ভরতি। তাঁর এক ভক্ত জানতে চেয়েছিলেন, তিনি তো সমস্ত বার্তার দ্রুত জবাব দেন, তা হলে তিনি ঘুমোন কখন? জবাবে সোনু বলেন, এক বার সবাই ঘরে পৌঁছে যাক, তার পর আরাম করে শোব।

‘দাবাং’-এর অভিনেতাকে টুইটারে প্রশ্ন করা হয়েছিল, তাঁকে কি চলচ্চিত্র শিল্পের পরবর্তী রজনীকান্ত বলা যায়? “আমি সব সময় একজন সাধারণ মানুষই থাকতে চাই”, এই জবাব দিয়ে সোনু সকলের হৃদয় জয় করে নেন।

লকডাউন চলছে, আমাকে পার্লারে যাওয়ার জন্য একটা গাড়ির ব্যবস্থা করে দিতে পারেন? এক ইউজারের এই আবদারের জবাবে সোনু যা বলেছিলেন, তা রীতিমতো ঝড় তুলেছিল। সোনু বলেছিলেন, “সেলুনে গিয়ে কী করবেন? সেলুনকর্মীদের তো আমি ওঁদের গাঁয়ে ছেড়ে দিয়ে এসেছি। ওঁদের পিছনে পিছনে ওঁদের গাঁয়ে যাবে তো বলো।”

স্বাস্থ্যের কাজে জড়িত পেশাদারদের থাকার জন্য মুম্বইয়ে তাঁর হোটেলটি ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন সোনু। সম্প্রতি কোচিতে আটকে পড়া ১৭৭ জন মেয়েকে ভুবনেশ্বরে পৌঁছে দেওয়ার জন্য বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন সোনু সুদ।

সূত্র: এনডিটিভি

Continue Reading

ট্রেন্ড্রিং