Connect with us

রাজ্য

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় কি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন? ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হতেই নতুন করে জল্পনা

তা হলে কি এ বারের লড়াই বাংলার মেয়ে বনাম বাংলার ছেলে?

Published

on

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গ-সহ চার রাজ্য এবং একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বিধানসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। কয়েক ঘণ্টা পরেই বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে নিয়ে নতুন করে জল্পনা ছড়িয়েছে নেটদুনিয়ায়।

এর আগে একাধিক বার সৌরভের রাজনীতি-যোগের জল্পনা খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে। তবে মাঝে তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভরতি হওয়ার পর সেই জল্পনা সাময়িক ভাবে চাপা পড়ে। ফের ভোটের নির্ঘণ্ট প্রকাশিত হতেই নতুন করে জল্পনা ছড়িয়েছে।

Loading videos...

কেন জল্পনা?

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি অমদাবাদের মোতেরা স্টেডিয়ামের নামকরণ হয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নামে। ওই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেলেও সশরীরে উপস্থিত হতে পারেননি সৌরভ। তবে বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উদ্বোধন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের প্রশংসা করে টুইট করেছিলেন।

এ দিকে মার্চ-এপ্রিলে আট দফায় বিধানসভা ভোট পশ্চিমবঙ্গে। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল এবং বিরোধী বিজেপি- উভয় শিবিরই তার আগে সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের নিজের নিজের দলীয় পতাকার নীচে নিয়ে আসছে। সেই সূত্রেই শনিবার জল্পনা ছড়িয়েছে, সৌরভ বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন। তাঁকেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে তুলে ধরতে চাইছে পদ্ম-শিবির।

সৌরভ প্রথম বার হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার পর পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির কেন্দ্রীয় সহ-পর্যবেক্ষক এবং সর্বভারতীয় সম্পাদক অরবিন্দ মেনন বলেছিলেন, “আমাদের দরজা সব সময় খোলা। সৌরভ দলে এলে আমরা পালক-পাগড়ি দিয়ে তাঁকে স্বাগত জানাব”। পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়া শহরে বিজেপির ‘চায়ে পে চর্চা’ কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে তিনি আরও বলেন, “সৌরভ আন্তর্জাতিক মানের ক্রীড়াবিদ। বাংলার বাঘ। যেখানে থাকবেন, গর্জন করবেন”।

অন্যদিকে তৃণমূলনেত্রী এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়কের সম্পর্ক বেশ ভালোই। তাঁর বিজেপি-যোগের জল্পনার মধ্যেই হাসপাতালে গিয়ে সৌরভকে একাধিক বার দেখে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

শুরু সেই ২০১৯‌-এই

২০১৯ সালের অক্টোবরে বিসিসিআই সভাপতি হওয়ার পর থেকেই সৌরভের রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা আলোচনার বিষয়বস্তু হয়ে দাঁড়িয়েছিল। অমিত শাহ এবং কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর এই আকর্ষণীয় পদে সৌরভের নিয়োগে প্রধান ভূমিকা পালন করেছিলেন বলে জানা যায়।

বিসিসিআই-এর প্রেসিডেন্ট যেখানে সৌরভ, সেখানে সচিব খোদ অমিত শাহের ছেলে জয় শাহ এবং কোষাধ্যক্ষ অনুরাগের ভাই অরুণ ধুমল। তা হলে সমীকরণটা কী দাঁড়াল, সেই অঙ্কেই মশগুল হয় সম্ভাবনাময় রাজনীতি। তার পর থেকেই সৌরভ বিজেপিতে যোগ দেবেন কি না, তা নিয়ে ধারাবাহিক এই জল্পনা-কল্পনা চলছে। ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার পর তাতে বাড়তি ঘি ঢালছে রাজনৈতিক মহল!

আরও পড়তে পারেন: দু’মাস আগের টুইট মনে করিয়ে বিজেপির উদ্দেশে প্রশান্ত কিশোর বললেন, “বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়”

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

রাজ্য

Bengal Polls 2021: ভোটের দিনক্ষণ পালটাচ্ছে না, প্রচারে ‘নৈশ কার্ফু’ জারি নির্বাচন কমিশনের

শুক্রবার কমিশনের দফতরে সর্বদলীয় বৈঠক হয়।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রাজ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত কমাতে কিছুটা পদক্ষেপ করল নির্বাচন কমিশন। প্রচারে ‘নৈশ কার্ফু’ জারি করল তারা। অর্থাৎ, যে যে জায়গায় ভোট বাকি রয়েছে সেখানে সন্ধ্যা ৭টা থেকে পরের দিন সকাল ১০টা পর্যন্ত কোনো নির্বাচনী সভা বা সমাবেশ করা যাবে না। একই সঙ্গে, বাকি তিন দফার ক্ষেত্রেও ভোটের ৭২ ঘণ্টা আগে প্রচার বন্ধ করতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন।

এই সিদ্ধান্ত এমন একটা দিনে ঘোষণা করল কমিশন যে দিনও রাজ্যে করোনাবিধি উপেক্ষা করে যথারীতি রোড শো হয়েছে, জনসভাও হয়েছে। এবং সেই সব রোড শো ও জনসভায় জনসমাগমও হয়েছে প্রচুর। কিন্তু শেষ তিন দফা ভোটকে এক দফায় করার যে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল তাতে ‘না’ করে দিয়েছে কমিশন।      

Loading videos...

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, নির্বাচনী প্রচারাভিযানে যে কোভিড সুরক্ষাবিধি মানা হচ্ছে না তা লক্ষ করেছে কমিশন। কমিশন বলেছে, সমস্ত প্রার্থী ও রাজনৈতিক দলের কর্মীদের মাস্ক পরতেই হবে। সভার সংগঠকদের খেয়াল রাখতে হবে সবাই যেন মাস্ক পরেন, স্যানিটাইজার ব্যবহার করেন।

ভোটগ্রহণের ৪৮ ঘণ্টা আগে থেকে নির্বাচনী প্রচার বন্ধ করে দেওয়ার যে স্বাভাবিক বিধি রয়েছে তার ব্যতিক্রম ঘটেছে শনিবার পঞ্চম দফার ভোটের জন্য। আগামীকাল শনিবার যে সব জায়গায় ভোট নেওয়া হচ্ছে সে সব জায়গায় ৭২ ঘণ্টা আগেই প্রচার বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ৭২ ঘণ্টা আগে থেকে প্রচার বন্ধ করে দেওয়ার নিয়ম শেষ তিন দফা ভোটের জন্যও জারি থাকবে বলে জানিয়েছে কমিশন।

করোনার সংক্রমণ বাড়ার একটা অন্যতম কারণ যে নির্বাচনী রোড শো, জনসভা ইত্যাদি তাতে কোনো সন্দেহ নেই। রাজ্যে সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যেও প্রচারে জমায়েত কমানো যাচ্ছে না, এই অভিযোগ তুলে একাধিক জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। মঙ্গলবার এই ব্যাপারে শুনানিতে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, প্রচারের সময় যাতে কোভিড গাইডলাইন মেনে চলা হয়, সেটা নিশ্চিত করতে হবে কমিশনকে। মাস্ক পরা, নির্দিষ্ট দূরত্ব বিধি মেনে চলার মতো বিষয়গুলিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

আদালতের এই নির্দেশের পরেই কমিশনের তরফ থেকে শুক্রবার সর্বদল বৈঠক ডাকা হয়। তৃণমূল, বিজেপি, সংযুক্ত মোর্চার বিভিন্ন শরিক-সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা ওই বৈঠকে যোগ দেন।

আরও পড়ুন: Bengal Corona Update: প্রতি একশো টেস্টে পজিটিভ হচ্ছেন ১৭ জন, কলকাতায় আক্রান্ত ১৮৪৪ 

Continue Reading

রাজ্য

Bengal Corona Update: প্রতি একশো টেস্টে পজিটিভ হচ্ছেন ১৭ জন, কলকাতায় আক্রান্ত ১৮৪৪

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২,৮১৮ জন।

Published

on

Coronavirus Covid Kolkata

খবরঅনলাইন ডেস্ক: শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর প্রকাশিত বুলেটিনে সামান্য ইতিবাচক কিছু যদি থাকে সেটা হল সংক্রমণের হারের সামান্য বৃদ্ধি। গত কয়েকদিন ধরে এই হারটা যে ভাবে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছিল, এ দিন তেমনটা হয়নি। আর বাকি পুরোটাই নেতিবাচক। টেস্ট কমলেও নতুন সংক্রমণ বেড়েছে। কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগণা বাদে কিছু জেলার পরিস্থিতি ভয়ংকর। দৈনিক সুস্থতার সংখ্যাটি বাড়লেও সে ভাবে গতিপ্রাপ্ত হয়নি। ফলে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা মারাত্মক বাড়ছে।

রাজ্যের কোভিড-তথ্য

গত ২৪ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গে নতুন করে কোভিডে (Covid 19) আক্রান্ত হয়েছেন ৬,৯১০ জন। এর ফলে রাজ্যে মোট কোভিডরোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬ লক্ষ ৪৩ হাজার ৬৯৫।

Loading videos...

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২,৮১৮ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৯২ হাজার ২৪২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে। ফলত এ দিন মৃত্যুহার ছিল ০.৩৭ শতাংশ। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন মোট ১০ হাজার ৫০৬ জন।

রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৪১ হাজার ৪৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪,০৬৬ জন সক্রিয় রোগী বেড়েছে রাজ্যে। রাজ্যে সুস্থতার হার বর্তমানে ৯১.৯৯ শতাংশ।

দৈনিক সংক্রমণের হার ১৭ শতাংশ

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪০ হাজার ১৫৩টি। ফলে এ দিন সংক্রমণের হার ছিল ১৭.২০ শতাংশ। গত বছর জুলাইয়ে একটা সময়ে রাজ্যে সংক্রমণের হার ১৭ শতাংশে উঠে গিয়েছিল। শুক্রবার সংক্রমণের হার সেই রেকর্ডটি ছুঁয়ে ফেলল। বর্তমান ঢেউয়ে দেখা যাচ্ছে অনেক রাজ্যেই সংক্রমণের হার ২৫ শতাংশে গিয়ে থিতু হয়েছে। এমনকি পড়শি বাংলাদেশেও সংক্রমণের হার ২৫ শতাংশে উঠে গিয়েছিল। রাজ্যের পরিস্থিতি সেই রকম দিকেই যাচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে।

রাজ্যের সামগ্রিক সংক্রমণের হার বর্তমানে রয়েছে ৬.৬৩ শতাংশ। শুক্রবার পর্যন্ত মোট ৯৭ লক্ষ ১৫ হাজার ১১৫টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

হাসপাতাল শয্যা-তথ্য

কিছুটা নিশ্চিন্তের ব্যাপার হল সংক্রমণ যে ভাবে বাড়ছে, সেই তুলনায় শয্যা সে ভাবে ভরতি হচ্ছে না। বর্তমানে রাজ্যে কোভিড-শয্যার সংখ্যা ৭,৪২৮। বর্তমানে ৩৬.৫১ শতাংশ বেড ভরতি রয়েছে। যে পরিমাণে কোভিডরোগী রাজ্যে বাড়ছে, সেই তুলনায় শয্যা বেশি ভরতি হচ্ছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে এটাই একমাত্র আশার আলো।

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণার পরিস্থিতি

কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগণায় দৈনিক সংক্রমণ রেকর্ড করেই চলেছে। কলকাতায় নতুন করে আক্রান্ত ১,৮৪৪ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ১,৫৯২ জন। এই দুই জেলায় সুস্থ হয়েছেন যথাক্রমে ৬৭৯ এবং ৫৯৩ জন। কলকাতা ৯ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৭ জন কোভিডরোগীর মৃত্যু হয়েছে।

কলকাতায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ লক্ষ ৪৮ হাজার ৮০২, উত্তর ২৪ পরগণায় মোট আক্রান্ত ১ লক্ষ ৩৮ হাজার ৯৩৩। কলকাতায় বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১১ হাজার ৪৯৫ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৯ হাজার ৫০ জন। দুই জেলায় মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৩,১৯১ এবং ২,৭৮০ জনের।

রাজ্যের বাকি জেলার চিত্র

গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণচিত্র দেখে মনে হচ্ছে কয়েকটি জেলার পরিস্থিতি কলকাতার থেকেও খারাপ। কারণ স্বাভাবিক ভাবেই রাজ্যের জেলাগুলিতে বেশি পরিমাণে টেস্ট হয় না। সব থেকে বেশি টেস্ট কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগণাতেই হয়। কিন্তু বেশি টেস্ট না হওয়া সত্ত্বেও ওই কয়েকটি জেলায় সংক্রমণের যা তথ্য সামনে এসেছে, তা রীতিমতো ভয়ের।

রাজ্যে বাকি ২১টি জেলায় সংক্রমণ কেমন ছিল, তার তালিকা দেওয়া হল নীচে। সংশ্লিষ্ট জেলাগুলিতে এ দিন কত জন আক্রান্ত হয়েছেন, সেই তথ্য দেওয়া হল ব্র্যাকেটে।

১) হাওড়া (৪২০)

২) দক্ষিণ ২৪ পরগণা (৪০২)

৩) বীরভূম (৩৭৪)

৪) পশ্চিম বর্ধমান (৩৫৯)

৫) হুগলি (২৯৪)

৬) মালদা (২৭৬)

৭) নদিয়া (২২৭)

৮) মুর্শিদাবাদ (২০৩)

৯) পুরুলিয়া (১৫৭)

১০) পূর্ব বর্ধমান (১৩৬)

১১) বাঁকুড়া (১২০)

১২) দার্জিলিং (১২৬)

১৩) পূর্ব মেদিনীপুর (৯১)

১৪) জলপাইগুড়ি (৮৪)

১৫) পশ্চিম মেদিনীপুর (৬১)

১৬) উত্তর দিনাজপুর (৫৮)

১৭) কোচবিহার (৪৪)

১৮) দক্ষিণ দিনাজপুর (২৫)

১৯) কালিম্পং (৯)

২০) আলিপুরদুয়ার (৪)

২১) ঝাড়গ্রাম (৪)

Continue Reading

কোচবিহার

Bengal Polls 2021: শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে বিচারবিভাগীয় তদন্ত চাইল এপিডিআর, দোষীদের শাস্তি দাবি

নিহতদের পরিবারবর্গ ও আহতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি করেছে এপিডিআর।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু নিয়ে বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি জানাল গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষা সমিতি তথা এপিডিআর (APDR)। সেই সঙ্গে এই গুলিচালনার ঘটনায় দোষীদের শাস্তি এবং নিহতদের পরিবারবর্গ ও আহতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি করেছে তারা। শুক্রবার এপিডিআরের এক প্রেস বিবৃতিতে এই দাবি জানানো হয়েছে।     

গত ১০ এপ্রিল চতুর্থ দফার ভোট চলাকালীন কোচবিহারের শীতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রে পাঁচজন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয় এবং কয়েক জন আহত হন। অভিযোগ, শীতলকুচির ১২৬ নং বুথ আমতলী মাধ্যমিক শিক্ষাকেন্দ্রে সিআইএসএফ (CISF) জওয়ানদের গুলিতে চার গ্রামবাসী মারা যান। আর ২৬৫ নং বুথ পাঠানতলীতে ভোটের লাইনে দাঁড়াতে গিয়ে মৃত্যু হয় এক তরুণের।

Loading videos...

আমতলী ও পাঠানতলীর ঘটনা নিয়ে তথ্যানুসন্ধানের জন্য এপিডিআরের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার ওই দুই জায়গায় যাওয়া হয় বলে ওই প্রেস বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। স্থানীয় গ্রামবাসী এবং নিহত ও আহতদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে এপিডিআর-এর সামনে যে তথ্য উঠে এসেছে, তা তারা প্রেস বিবৃতিতে জানিয়েছে।         

আমতলীর ঘটনা

এপিডিআরকে গ্রামবাসীরা বলেছেন, সে দিন বুথ থেকে ২০০ মিটার দূরে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ১৪ বছর বয়সি জাহিদুল হককে সিআইএসএফ বাহিনী নির্মম ভাবে মারধর করে। এই ঘটনায় এলাকাবাসী সাময়িক ভাবে বিক্ষুব্ধ হলেও তারা কখনোই সেই সময় ১২৬ নং বুথ চত্বরে প্রবেশ করেনি এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘিরে কোনো জমায়েতও করেনি।

গ্রামবাসীরা বলেছেন, ৩০০-৩৫০ জন মহিলা ১২৬ নং বুথে জমায়েত করে তাদের ঘিরে ধরে অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল বলে কেন্দ্রীয় বাহিনী যে দাবি করেছে, তা আদৌ ঘটেনি। তারা আত্মরক্ষার্থে গুলি চালিয়েছিল বলে যে কথা বলছে তা পুরোপুরি মিথ্যে। গ্রামবাসীদের দাবি, সে দিন কোনো রকম প্ররোচনা ছাড়াই সিআইএসএফ গুলি চালিয়েছিল।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, নির্বাচনের জন্য আগের দিন থেকে কর্তব্যরত কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকা সত্ত্বেও হঠাৎ বাইরে থেকে আসা সিআইএসএফ জওয়ানরা এই গুলি চালায়। গুলি চালানোর আগে কোনো রকম ঘোষণা, লাঠি চালানো, কাঁদানে গ্যাস প্রয়োগ করা, রবার বুলেট ছোড়ার মতো কোনো উপযুক্ত পদ্ধতিগত সতর্কীকরণ করা হয়নি।

গুলি চালানোর প্রশাসনিক পদ্ধতিগত কোনো রকম নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল কিনা সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি বলে এপিডিআরের প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

ভোটের লাইনে হিন্দু, মুসলিম উভয় সম্প্রদায় মিলিয়ে প্রায় ৭০-৭৫ জন ভোটার দাঁড়িয়ে থাকা সত্ত্বেও সিআইএসএফ-এর গুলিতে কেবলমাত্র সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের চার জন কী ভাবে মারা গেল, সে নিয়ে এপিডিআরের প্রেস বিবৃতিতে প্রশ্ন তোলা হয়েছে।

এপিডিআরের প্রতিনিধিদের কাছে গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন, প্রথম বর্ষের এক কলেজপড়ুয়াকে মাটিতে ফেলে পায়ে চেপে বুকে গুলি চালানো হয়।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, বাইরে থেকে আসা সিআইএসএফ জওয়ানরা নিহত চার জনকে ওখানেই ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। রাজ্য পুলিশ বা ওই বুথে আগে থেকে  কর্তব্যরত কেন্দ্রীয় বাহিনী সাহায্য না করায় গ্রামের দুই যুবক টোটোতে করে তাদের দেহ মাথাভাঙা হাসপাতালে নিয়ে যায়। যাওয়ার পথে রাজ্য পুলিশ তাদের দু’জনকে মাথাভাঙা থানায় তুলে নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে ও পাঁচ ঘণ্টা আটকে রাখে।

এপিডিআর বলেছে, ওই বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও গ্রামবাসীদের কথা অনুযায়ী ওই গ্রামে হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রয়েছে। বিদ্যালয়ের সরস্বতীপুজোয় সকলে একসঙ্গে যোগ দেয়। গ্রামে কোনো রকম সাম্প্রদায়িক অশান্তি নেই।

পাঠানতলীর ঘটনা

এপিডিআরের সহ-সম্পাদক আলতাফ আমেদের জারি করা ওই প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পাঠানতলীতে ২৬৫ নং বুথে ভোট চলাকালীন আনন্দ বর্মন নামে যে তরুণের মৃত্যু হয়, তিনি দলীয় হিংসার বলি। আনন্দ ছাড়াও সে দিন বেশ কয়েক জন আহত হন। এই ঘটনাটিকে হাতিয়ার করে একটি রাজনৈতিক দল পাঠানতলী এলাকায় সাম্প্রদায়িক বিভাজনের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে এপিডিআরের অভিযোগ।

শীতলকুচির ঘটনা সম্পর্কে অনুসন্ধান চালিয়ে এপিডিআর যে তথ্য পেয়েছে, তার ভিত্তিতে তারা পুরো ঘটনার সার্বিক বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি করেছে। তাদের আরও দাবি, যে সব জওয়ান গুলি চালিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় মামলা রুজু করতে হবে এবং দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার করতে হবে।

নিহতদের পরিবারবর্গকে ন্যূনতম ২০ লক্ষ টাকা ও আহতদের পাঁচ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি করেছে এপিডিআর।

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
বাংলাদেশ5 hours ago

Mujibnagar Day: ঠিক ৫০ বছর আগের ১৭ এপ্রিল যিনি গার্ড অব অনার দিয়েছিলেন সেই মাহবুব উদ্দিন বীর বিক্রমের স্মৃতিচারণ

বাংলাদেশ6 hours ago

Bangladesh Corona Update: একদিনে শতাধিক মৃত্যুর রেকর্ড, আক্রান্তের শীর্ষে যুবকরা হলেও মৃত্যুর দিক দিয়ে বয়স্ক মানুষ

শিক্ষা ও কেরিয়ার7 hours ago

ICSE And ISC Exams: দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা পিছিয়ে দিল আইসিএসই বোর্ড

ক্রিকেট8 hours ago

IPL 2021: দীপক চাহরের বিধ্বংসী বোলিং, চেন্নাইয়ের সামনে মুখ থুবড়ে পড়ল পঞ্জাব

দেশ10 hours ago

Nirav Modi’s Extradition: নীরব মোদীকে ভারতের হাতে তুলে দিতে সম্মতি ব্রিটিশ সরকারের

রাজ্য11 hours ago

Bengal Polls 2021: ভোটের দিনক্ষণ পালটাচ্ছে না, প্রচারে ‘নৈশ কার্ফু’ জারি নির্বাচন কমিশনের

Coronavirus Covid Kolkata
রাজ্য11 hours ago

Bengal Corona Update: প্রতি একশো টেস্টে পজিটিভ হচ্ছেন ১৭ জন, কলকাতায় আক্রান্ত ১৮৪৪

শরীরস্বাস্থ্য17 hours ago

Covid Infection: ছোঁয়াচে রোগে পুরুষদের বেশি সংক্রমিত হওয়ার কারণ কি টেস্টোস্টেরোন?

শিক্ষা ও কেরিয়ার3 days ago

CBSE Exam 2021: দশম শ্রেণির পরীক্ষা বাতিল করল সিবিএসই, স্থগিত দ্বাদশের পরীক্ষা

ক্রিকেট3 days ago

IPL 2021: জেতা ম্যাচ লজ্জাজনক ভাবে হাতছাড়া কেকেআরের, দলের হয়ে সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাইলেন শাহরুখ

দেশ3 days ago

Kumbh Mela 2021: কুম্ভের হরিদ্বারে গত দু’দিনে আক্রান্ত ১ হাজার, মুখ্যমন্ত্রী বললেন, ‘মারকাজের সঙ্গে তুলনা অর্থহীন’

রাজ্য2 days ago

স্বাগত ১৪২৮, জীর্ণ, পুরাতন সব ভেসে যাক, শুভ হোক নববর্ষ

কলকাতা3 days ago

Bengal Corona Update: সংক্রমণের প্রথম চূড়াকে পেরিয়ে গেল কলকাতা, পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে

পয়লা বৈশাখ
কলকাতা2 days ago

মাস্ক থাকলেও কালীঘাট-দক্ষিণেশ্বরে শারীরিক দুরত্ব চুলোয়, গা ঘেষাঘেঁষি করে হল ভক্ত সমাগম

দেশ2 days ago

ফের লকডাউনের আশঙ্কায় ভীত-সন্ত্রস্ত অভিবাসী শ্রমিকরা, কন্ট্রোল রুমে ফোনের পর ফোন ঝাড়খণ্ডে

রাজ্য2 days ago

Bengal Polls 2021: ভয়াবহ কোভিড সংক্রমণের মধ্যে কী ভাবে ভোট, শুক্রবার জরুরি সর্বদল বৈঠক ডাকল কমিশন

ভোটকাহন

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 weeks ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা3 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে