ফের বাঘের কামড়ে মৎস্যজীবীর মৃত্যু সুন্দরবনে

0

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, সুন্দরবন: আবারও সুন্দরবনে বাঘের কামড়ে মৃত্যু হল এক মৎস্যজীবীর। ঘটনাটি ঘটেছে সুন্দরবন পুলিশ জেলার পশ্চিম দ্বারিকাপুর অঞ্চলে।

মৃত মৎস্যজীবীর নাম শংকর ভক্ত (২১)। বাড়ি পাথরপ্রতিমা থানার পশ্চিম দ্বারিকাপুর অঞ্চলে। সোমবার কয়েকজন সঙ্গীকে নিয়ে বাড়ির কাছে নদীতে কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন তিনি। হঠাৎই বাঘের আক্রমণের মুখে পড়েন। পিছন থেকে ঘাড়ে কামড় দিয়ে একটি বাঘ টেনে নিয়ে যায় তাঁকে জঙ্গলের ভেতরে। আচমকা ঘটা এই ঘটনায় হতচকিত হয়ে পড়েন তাঁর সঙ্গীরা।

কিছু বোঝার আগেই বাঘ শংকরকে নিয়ে গভীর জঙ্গলে ঢুকে পড়ে। সঙ্গী-সাথীরা চেঁচামেচি করেও কোনো কাজ না হওয়ায় তাঁরা ফিরে এসে বন দফতরে খবর দেন।
মঙ্গলবার সকালে বন দফতরের কর্মীরা শংকরের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। আর এই খবর তাঁর বাড়িতে পৌঁছালে শোকের ছায়া নেমে আসে।
পেটের দায়ে বিকল্প কর্মসংস্থানের খোঁজে বারবার সুন্দরবনের জঙ্গলে গিয়ে বাঘের মুখে পড়ছেন বহু মৎস্যজীবী। এখনও পর্যন্ত এ বছরে ২২ জন মৎস্যজীবীর বাঘের কামড়ে মৃত্যু হয়েছে, বলে সূত্র মারফত জানা গিয়েছে।

এই সব অসহায় মৎস্যজীবীদের বিকল্প কর্মসংস্থানের জন্য লড়াই করে চলেছেন এপিডিআর। এপিডিআরের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সহ-সম্পাদক মিঠুন মণ্ডল বলেন, “সরকারি ক্ষতিপূরণ মৃত মৎস্যজীবীদের পরিবারকে দেওয়া হচ্ছে না। বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না থাকার ফলে পেটের দায়ে তাঁরা বারবার জঙ্গলে গিয়ে বাঘের কামড়ে প্রাণ হারাচ্ছেন। সরকারি ক্ষতিপূরণ দিতে হবে এঁদের পরিবারকে, এই দাবি রাখছি সরকারের কাছে”।

আজকের আরও কিছু উল্লেখযোগ্য খবর পড়ুন এখানে: 

কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য ১ জুলাই থেকে কার্যকর ৩১ শতাংশ ডিএ, জানাল অর্থমন্ত্রক

বম্বে হাইকোর্টে আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ এনসিবি-র

কর্মসংস্থানের একাধিক দিক তুলে ধরলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ফের সাক্ষীদের বয়ান নিয়ে জটিলতা, লখিমপুর খেরি হিংসা মামলায় ৮ নভেম্বর পর্যন্ত শুনানি স্থগিত সুপ্রিম কোর্টে

রাজ্যে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ গুটখা, তামাকজাত পান মশলা

এক সঙ্গে বাস করলে পথ দুর্ঘটনায় জামাইয়ের মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার অধিকারী শাশুড়িও, নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন