বাঘের থাবা থেকে স্বামীকে বাঁচিয়ে আনা কুলতলির জোৎস্না শীকে সংবর্ধনা

0

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়নগর: গত ৪ এপ্রিল কুলতলির চিতুরির কাছে মাছ ধরতে গিয়ে বাঘের কবলে পড়েন মৈপীঠ ভুবনেশ্বরীর শংকর শী ও তাঁর স্ত্রী জোৎস্না শী। স্বামীকে বাঁচাতে নিজের জীবন বাজি রেখে তিনি বাঘের ঘাড়ের উপর উঠে বাঘের কান ধরে চড়চাপড় মেরে বাঘকে কাহিল করে নিজের স্বামীর জীবন বাঁচান। দীর্ঘ দিন হাসপাতাল-ঘর করে বর্তমানে বাঘে আক্রান্ত শংকর শী প্রতিবন্ধী অবস্থায় সরকারি সাহায্য ছাড়াই অতিকষ্টে জীবন যাপন করছেন। সুন্দরবনে বাঘের হাত থেকে নিজের স্বামীকে বাঁচিয়ে আনা সেই কুলতলির মৈপীঠ ভুবনেশ্বরীর জোৎস্না শীকে সংবর্ধনা দেওয়া হল জয়নগর টাউন হলে রাজ্য নাট্য অ্যাকাডেমির নাট্য উৎসবের শেষ দিনে।

টিম বিশ্বরঞ্জন চৌধুরি ও এষণা জয়নগরের সহায়তায় সংবর্ধনা নিতে রবিবার উপস্থিত ছিলেন জোৎস্না শীর সঙ্গে ছিলেন তাঁর স্বামী, বাঘে আক্রান্ত শংকর শী। এ দিন সাহসী মহিলার কাছ থেকে সে দিনের ঘটনা শুনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে এগিয়ে এলেন জয়নগরের বিধায়ক বিশ্বনাথ দাস, জয়নগর-১ বিডিও সত্যজিৎ বিশ্বাস, যুগ্ম বিডিও হাসনাত আলি, জয়নগর থানার আইসি অতনু সাঁতরা-সহ স্থানীয় কিছু মানুষ। বিধায়ক অর্থ সাহায্য ছাড়াও ওই পরিবারকে এক বছরের চাল দেওয়ার ও পাশে থাকার কথা বলেন।

এ ছাড়া সরকারি সাহায্য কী ভাবে ওই পরিবারের জন্য ব্যবস্থা করা যায় সেটা দেখবেন বলেও জানান বিধায়ক বলেন। এ ব্যাপারে বাঘে আক্রান্ত জোৎস্না শী বলেন, “আমরা সুন্দরবনের গরিব মৎস্যজীবী। আমাদের পরিবারের একমাত্র রোজগেরে মানুষ আজ বাঘের কামড় থেকে বেঁচে ফিরলেও সে পঙ্গু হয়ে গেছে। কি ভাবে বাঁচবো আমরা জানি না। পেনশন ও সরকারি সাহায্য পেলে খুব ভালো হয় আমাদের”।

এমনিতে সুন্দরবনে বাঘে-মানুষের লড়াই নিত্যদিনের সঙ্গী। বিকল্প কর্মসংস্থান না থাকায় সুন্দরবনের মৎস্যজীবীরা পেটের টানে জঙ্গলে মাছ কাঁকড়া বা কাঠ কাটতে গিয়ে প্রতিনিয়ত বাঘের হামলার শিকার হচ্ছেন। কেউ কেউ বাঘের হাত থেকে বেঁচে ফিরলেও অক্ষম হয়ে পড়ছেন। এঁদের বেশির ভাগই সরকারি কোনো সাহায্য পান না বলে দাবি। একটি পরিসংখ্যান থেকে জানা গেল, গত ৫ বছরে সুন্দরবনে বাঘে আক্রান্ত প্রায় শতাধিক মৎস্যজীবী। এ বছরে এখনও পর্যন্ত ১৯ জন বাঘে আক্রান্ত হয়েছেন।

Shyamsundar

এখানে ক্লিক করে ভিডিয়োয় দেখুন: স্বামীকে বাঘের থাবা থেকে রক্ষা করে সংবর্ধিত স্ত্রী

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন