পণের দাবিতে গৃহবধূকে পুড়িয়ে খুন, গ্রেফতার স্বামী ও শ্বশুর

0

সোনারপুর: পণের দাবিতে গৃহবধূকে পুড়িয়ে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামী আর শ্বশুরের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার সোনারপুরে।

মৃতার বাপের বাড়ির সদস্যদের অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই বধূর স্বামী ও শ্বশুরকে গ্রেফতার করেছে সোনারপুর থানার পুলিশ।

বছর চারেক আগে সোনারপুরের লাঙলবেড়িয়ার বাসিন্দা স্বপন সরকারের সঙ্গে বিয়ে হয় যাদবপুরের বাসিন্দা মৌসুমি সরকারের। একটি সন্তানও রয়েছে ওই দম্পতির।

স্থানীয় সূত্রের খবর, বিয়ের পর থেকেই পণের জন্য বধূর উপর অত্যাচার করত স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। মাঝে মধ্যেই বাপের বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আসতে বলা হত বধূকে। না আনলে বেধড়ক মারধরও করা হত তাঁকে। শ্বশুরবাড়ির দাবি মেনে কিছুদিন আগেই ৫০ হাজার টাকা নিয়ে আসেন মৌসুমিদেবী।

আরও পড়ুন উত্তপ্ত পরিস্থিতি, কলকাতা থেকে অসমগামী একাধিক উড়ান, ট্রেন বাতিল

বুধবার সকালে হঠাৎই শ্বশুরবাড়ি থেকে বাপের বাড়িতে ফোন করা হয়। জানানো হয় যে, গুরুতর অসুস্থ মৌসুমি। সেখানে গিয়ে মৃতার পরিবারের সদস্যরা দেখতে পান যে, দগ্ধ অবস্থায় বিছানায় পড়ে রয়েছেন মৌসুমি। শরীরে অধিকাংশই পুড়ে গিয়েছে।

এরপরই তাঁরা স্বপন ও তার বাবার বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেন। বাপের বাড়ির সদস্যদের অভিযোগ, পণের দাবিতেই পুড়িয়ে বধূকে হত্যা করেছে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

------------------------------------------------
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.