৬ বছর ধরে নিখোঁজ বৃদ্ধাকে ঘরে ফেরাল জয়নগর

0

স্থানীয় কিছু যুবক ও পুলিশের সহায়তায় ৬ বছর ধরে নিখোঁজ এক বৃদ্ধা জয়নগর থেকে ঘরে ফিরলেন শুক্রবার!

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়নগর: স্থানীয় কিছু যুবক ও পুলিশের সাহায্যে ছ’বছর ধরে নিখোঁজ থাকা ৬৫ বছরের এক বৃদ্ধা অবশেষে ঘরে ফিরলেন। ঘটনাটি ঘটেছে বারুইপুর পুলিশ জেলার জয়নগর থানা এলাকার শ্রীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের কাশিমপুর এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেল, জয়নগর থানার শ্রীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের কাশিমপুর এলাকায় বুধবার লক্ষ্মীপুজোর দিন স্থানীয় যুবকরা এক বৃদ্ধাকে এ দিক-ও দিক ঘোরাঘুরির করতে দেখেন। স্থানীয় একটি দোকানের সামনে রাত কাটান ওই বৃদ্ধা। পরের দিন, বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় যুবকরা পাড়ার ‘আমরা সবাই সমিতি’তে নিয়ে আসেন ওই বৃদ্ধাকে। সেখানে দুপুরবেলা মধ্যাহ্নভোজের ব্যবস্থাও করেন তাঁরা।

সেখানে বৃদ্ধার নাম-ঠিকানা জিজ্ঞাসা করা হয় সমিতির পক্ষ থেকে। কিন্তু তিনি কিছুই বলতে পারছিলেন না। শেষে কাগজ-কলম দিয়ে লিখতে বলা হলে সেখানে তিনি নিজের নাম, স্বামীর নাম ও ঠিকানা লেখেন। তখন জানা যায় বৃদ্ধার নাম দৌপ্রদীবালা প্রামাণিক (৬৫), বাড়ি বাঁকুড়ার তালডাংরা এলাকায়।

ক্লাবের ছেলেরা কাল বিলম্ব না করে ইন্টারনেট থেকে বাঁকুড়ার তালডাংরা থানার ফোন নম্বর জোগাড় করেন। তালডাংরা থানায় এ ব্যাপারে কথা বলে সেখান থেকে বৃদ্ধার পরিবারের খোঁজ পান তাঁরা। এ ছাড়া ক্লাবের পক্ষ থেকে জয়নগর থানার আইসি অতনু সাঁতরাকেও ব্যাপারটি জানানো হয়।

এর পরে জয়নগর থানার পক্ষ থেকে তালডাংরা থানায় যোগাযোগ করা হয়। ও দিকে আমরা সবাই সমিতির যুবকেরা ওই বৃদ্ধার মেয়ের সাথে যোগাযোগ করেন। মেয়ে উমা মণ্ডল ও নাতনি অনামিকা মণ্ডলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তাঁরা। বৃহস্পতিবার রাতে জয়নগর থানার পক্ষ থেকে জয়নগর থানায় নিয়ে আসা হয় ওই বৃদ্ধাকে এবং তাঁর মেয়েকেও খবর দেওয়া হয় থানার পক্ষ থেকে শুক্রবার সকালে জয়নগর থানার আসার জন্য।

সেই মতো শুক্রবার সকালে জয়নগর থানায় এসে পৌঁছোয় ওই বৃদ্ধার মেয়ে উমা মণ্ডল ও নাতনি অনামিকা। জানা যায়, তাঁদের আসল বাড়ি বাঁকুড়ার তালডাংরায়। গত বিশ বছর ধরে তাঁর মা মানসিক ভারসাম্যহীন। তাঁরা বর্তমানে উত্তর ২৪ পরগনার নিমতা থানার বিরাটি সরদার পাড়া এলাকায় থাকেন। তাঁর বাবা মদন প্রামাণিক কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী ছিলেন। গত তিন বছর আগে তিনি প্রয়াত হন। আর তাঁর আগে থেকেই তাঁর মা দ্রৌপদী নিখোঁজ হয়ে যান নিমতা থেকে।

গত ২০১৫ সালের ৯ সেপ্টেম্বর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন এবং এ ব্যাপারে নিমতা থানায় তাঁরা নিখোঁজের ডায়েরিও করেছিলেন। বৃদ্ধার একটি মাত্র মেয়ে।

এ দিন জয়নগর থানায় মাকে নিতে এসে মাকে পেয়ে খুব খুশি মেয়ে উমা ও নাতনি অনামিকা। কাশিমপুর আমরা সবাই সমিতির সদস্য উদ্ধারকারী যুবক শোভন কয়াল বলেন, “উনি স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারছিলেন না। আমাদের দেখে সন্দেহ হয় যে উনি কোন ভালো পরিবার থেকে চলে এসেছেন। আমরা অনেক চেষ্টা করেও কিছু জানতে না পেরে কাগজ ও পেন দিলে উনি নাম-ঠিকানা লিখে দেন এবং আমরা বিভিন্ন সূত্র মারফত যোগাযোগ করি ওনার মেয়ে ও নাতনির সঙ্গে। ভিডিও কলে কথা বলানো হয় মা ও মেয়ের সঙ্গে। বৃদ্ধাকে তাঁর পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে”।

জয়নগর থানার আইসি অতনু সাঁতরা এ ব্যাপারে বলেন, “৬ বছর ধরে নিখোঁজ থাকা একজন বৃদ্ধাকে তাঁর পরিবার হাতে তুলে দিতে পেরে সত্যিই খুব ভালো লাগছে। আমার থানা এলাকার যুবকদের এই কাজ আরও মানুষের কাজে লাগবে”।

আরও পড়তে পারেন: 

ত্রিপুরায় আক্রান্ত তৃণমূল সাংসদ সুস্মিতা দেব, গাড়ি ভাঙচুর

হোয়াটসঅ্যাপ চ্য়াট যদি সত্যিই ‘এন্ড টু এন্ড এনক্রিপ্ট’ করা হয় তা হলে বলিউডের চ্যাট কী ভাবে ফাঁস হয়ে যায়

অতিরিক্ত চিন্তা ফেলতে পারে বড়ো বিপদে, জানুন কী ভাবে মুক্তি পাবেন

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন