উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়নগর: বেলাগাম হারে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছেন অটো চালকেরা। অটো ইউনিয়ন নির্বাক দর্শকের ভূমিকায়। আর এই নিয়ে প্রায় সময় তর্কাতর্কি থেকে শুরু করে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটছে। এ রকম ঘটনাই ঘটে চলেছে জয়নগর -সাউথ বিষ্ণুপুর রুটে।

আইএনটিটিইউসি পরিচালিত প্রায় আড়াই হাজারের উপর অটো চলাচল করে এই রুটে। অভিযোগ, লকডাউন ও খারাপ রাস্তার অজুহাতে এই রুটের অটো চালকেরা দ্বিগুণ-তিনগুণ হারে ভাড়া বেশি নিচ্ছেন যাত্রীদের কাছ থেকে। যেখানে জয়নগর থেকে গোচরণ অবধি লকডাউনের আগে ভাড়া ছিল ২০ টাকা এখন সেখানে নেওয়া হচ্ছে ৫০ টাকা, তাও আবার সন্ধ্যার পরে ৭০ থেকে ১০০ টাকা হয়ে যাচ্ছে।

Loading videos...

একই ভাবে জয়নগর থেকে দক্ষিণ বারাশত লকডাউনের আগে ভাড়া ছিল ১৫ টাকা এখন সেটা নেওয়া হচ্ছে ৩০ টাকা। আগে ন্যূনতম ভাড়া যেটা ছিল ৭ টাকা এখন সেটা নেওয়া হচ্ছে ১০ টাকা করে। আগে এই রুটে যাএী নেওয়া হতো ৬ জন করে আর এখন সেখানে যাত্রী সংখ্যা সেই একই আছে, অথচ ভাড়া দ্বিগুণ থেকে তিনগুণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে জয়নগরে কয়েকজন নিত্যযাত্রী বলেন, লকডাউনের দীর্ঘ সময় ধরে এখানে লোকাল ট্রেন পরিষেবা বন্ধ আছে,কাজের তাগিদে আমাদের কলকাতায় যেতে হচ্ছে অথচ প্রতিদিন দ্বিগুণ থেকে তিনগুণ ভাড়া দিয়ে আমাদেরকে যেতে হচ্ছে কলকাতায়। জয়নগর থেকে গোচরন আবার গোচরন থেকে বারুইপুর এই ভাবেই বেশি ভাড়া দিয়ে আমাদের কাজ করতে যেতে হচ্ছে। প্রতিদিন ১০০ টাকা করে বাড়তি ভাড়া দেওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। যেখানে রাজ্য সরকার লকডাউনের এই কঠিন সময়ে কোনো ভাড়া বাড়ানো যাবে না বলে ঘোষণা করেছে, সেখানে তৃণমূল শ্রমিক ইউনিয়ন পরিচালিত অটো ইউনিয়নের চালকেরা কী করে এত বেশি ভাড়া নিচ্ছেন, এর জবাব কে দেবে।

অটো ইউনিয়নকে বারবার বলা সত্বেও কোনো কাজ হচ্ছে না। এ ব্যাপারে জয়নগর ট্রাফিক সার্জেন্ট সুভাষ পাল বলেন, “আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অটো ইউনিয়নকে জানিয়ে দিয়েছি যে পিছনে তিন জন ও সামনের বাঁ দিকের দুইজন চালকের পাশে বসে চলাচল করতে পারবে এবং সে ক্ষেত্রে দ্বিগুণ -তিনগুণ হারে কোনো ভাড়া নেওয়া যাবে না এবং ডান দিকে কোনো যাত্রী তোলা যাবে না। এর অন্যথা হলে সেই গাড়ির বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর জন্য ইতিমধ্যে ধর পাকড়ও শুরু হয়ে গিয়েছে”।

এই রুটের বেশ কয়েক জন অটো চালক বলেন, “রাস্তা খারাপ হওয়ার কারনে প্রতি দিন গাড়ির যন্ত্রাংশের ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে। তাই আমাদের বেশি পয়সা নেওয়া ছাড়া কোনো উপায় নেই, সেখানে ইউনিয়ন কী করছে না করছে আমাদের জানার প্রয়োজন নেই। আমাদের গাড়িতে উঠতে গেলে দ্বিগুণ ভাড়া গুণতে হবে”।

এ প্রসঙ্গে সাউথ বিষ্ণুপুর -গোচরণ অটো ইউনিয়নের সম্পাদক মান্নান সরদার বলেন, এই ভাবে বেশি হারে ভাড়া নেওয়া যাবে না তা সত্ত্বেও যে সব গাড়ি এই ধরনের ভাড়া নিচ্ছে এবং যাত্রীদের সঙ্গে বাজে ব্যবহার করছে যাত্রীদের কাছে অনুরোধ তাঁরা যেন সেই গাড়ির নম্বর সহ ইউনিয়ন অফিসে বা থানায় জানাতে পারেন। তা হলে সেই গাড়ির বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা সহ আঞ্চলিক পরিবহণ আধিকারিক (বারুইপুর) প্রবীর চক্রবর্তী বলেন, “সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী কোনো যাত্রী বহনকারী গাড়ি বেশি হারে ভাড়া নিতে পারবে না। আর ওই রুটে কী হচ্ছে আমি জেনে দেখছি”।

আরও পড়তে পারেন: বিধানননগরে মোট কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজার পার!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.