বাঘের সঙ্গে লড়াই করে সঙ্গীকে বাঁচিয়ে আনলেন সুন্দরবনের আরেক মৎস্যজীবী

0
আবারও বাঘের মুখ থেকে এক মৎস্যজীবীকে বাঁচিয়ে আনলেন সঙ্গী। প্রতীকী ছবি

উজ্জ্বল বন্দোপাধ্যায়, সুন্দরবন: কুলতলির পর বাসন্তী। এ বার বাঘের পিঠে চড়ে সঙ্গী মৎস্যজীবীকে বাঁচিয়ে ফিরিয়ে আনলেন আরেক সঙ্গী। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে বুধবার সন্ধ্যায় সুন্দরবনের হলদিবাড়ি এলাকার নদী খাড়িতে।

সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলে মাছ ও কাঁকড়া ধরতে যান মিহির সরদার ও বাবলু হালদার নামে দুই মৎস্যজীবী। বাসন্তীর ঝড়খালি ত্রিদিব নগরের বাসিন্দা তাঁরা। পরিবার সূত্রে জানা যায়, দিন সাতেক আগে সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলে মাছ ও কাঁকড়া ধরতে যান তাঁরা। বুধবার সন্ধ্যায় বাঘের হামলার খবর পায় পরিবার।

আহতকে তড়িঘড়ি উদ্ধার করে প্রথমে নিয়ে আসা হয় ঝড়খালি স্থানীয় চিকিৎসা কেন্দ্রে। সেখান তাঁর অবস্থার অবনতি হওয়ায় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। তবে ক্যানিং মহাকুমা হাসপাতালে তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় বৃহস্পতিবার তাঁকে কলকাতার চিত্তরঞ্জন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

পরিবার সূত্রের দাবি, মাছ ও কাঁকড়া ধরেই তাঁদের জীবন-জীবিকা নির্ভর করতে হয়। সেই কারণে গত সপ্তাহে মিহির সরদার ও বাবলু হালদার নৌকা নিয়ে মাছ ধরতে যান। তবে ঘটনাটি সম্পূর্ণ তদন্ত করছে বন দফতর। তাঁদের বৈধ অনুমতিপত্র আছে কি না, সেটাও খতিয়ে দেখার চেষ্টা চলছে। তবে বারংবার সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণ বেড়ে চলায় চিন্তিত মৎস্যজীবীরা।

আরও পড়তে পারেন:

পূর্বাভাস সত্যি করে ফের বৃষ্টি নামল কলকাতায়, শুক্রবার থেকেই বদলাবে আবহাওয়া

১৫ মাস পর ইতি কৃষক আন্দোলনে, সিংঘু সীমান্তের বিক্ষোভস্থল থেকে সরছে তাঁবু

দিল্লির রোহিণী আদালতে বিস্ফোরণ, উদ্ধার আইইডি

একই নামে একাধিক সিম কার্ড রাখা নিয়ে বড়োসড়ো সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের, সীমার বেশি হলে বিচ্ছিন্ন করা হবে সংযোগ

দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সব পড়ুয়াদের জন্য মিড ডে মিলের দাবি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন