Connect with us

দঃ ২৪ পরগনা

সরকারি ত্রাণের জন্য অপেক্ষা না করে পুনর্গঠনের কাজ নিজেরাই শুরু করেছেন সুন্দরবনের গ্রামবাসীরা

Published

on

খবর অনলাইনডেস্ক: ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় উম্পুন (Cyclone Amphan) হানা দিয়েছে এক সপ্তাহ হল, কিন্তু তার ভীতি কিছুতেই কাটিয়ে উঠতে পারছে না সুন্দরবন (Sunderbans)। গত দশ বছরে আয়লা-সহ চারটে ঘূর্ণিঝড় দেখে ফেলেছে এখানকার বাসিন্দারা। তাদের মধ্যে উম্পুনই যে সব থেকে ভয়াবহ আর ধ্বংসাত্মক ছিল, সে ব্যাপারে একমত সবাই।

সুন্দরবনের অন্যতম ‘গেটওয়ে’ ঝড়খালি (Jharkhali)। কলকাতা থেকে বাসন্তী এক্সপ্রেসওয়ে ধরে গেলে ১০১ কিলোমিটার। এই ঝড়খালির বাসিন্দারা গত এক দশকে আয়লা, ফণী, বুলবুলের মতো ঘূর্ণিঝড় দেখে ফেললেও, উম্পুন বাকিদের থেকে একদমই আলাদা।

Loading videos...

ঘণ্টায় ১৫০-১৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের দাপটে অধিকাংশ বাসিন্দারই কাঁচা বাড়ি ভেঙে পড়েছে। এখনও পর্যন্ত সরকারি ত্রাণ পৌঁছোয়নি। ফলে সব কিছু নতুন করে তৈরি করতে নিজেরাই হাত লাগিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

ঝড়খালির লস্করপুরের বাসিন্দা সঞ্জয় মৃধা বলেন, “আমরাই নিজেদের সাহায্য করছি। লকডাউনের (Lockdown) কারণে বেশির ভাগ গ্রামবাসীই এখন নিজেদের বাড়িতে রয়েছেন। আমরা ঝড়ের পর গাছ সরিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করেছি। ঝড়ের সময়ে আমরাই আমাদের বাঁধ রক্ষা করেছি, এখনও করছি।”

ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া বাঁধ বালির বস্তা দিয়ে নতুন করে তৈরি করতে করতে সঞ্জয় বলেন, “পরের ঘূর্ণিঝড় কবে আসবে আমরা কেউ জানি না। কিন্তু প্রশাসনের সাহায্যের অপেক্ষায় বসেও তো থাকতে পারি না।”

তবে গাছ সরিয়ে দিলেও, বিদ্যুতের খুঁটিতে হাত লাগাচ্ছেন না গ্রামবাসীরা। প্রশাসনিক আধিকারিক এবং বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীরাই সেই কাজটা করবেন।

উম্পুন যে পরিমাণ তাণ্ডব দক্ষিণ আর উত্তর ২৪ পরগণা জুড়ে চালিয়েছে, তাতে ব্যাপক প্রভাব পড়েছে বিদ্যুৎ পরিষেবায়। শয়ে শয়ে বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে গিয়েছে। ট্রান্সফরমার জ্বলে গিয়েছে।

দিন-রাত এক করে বিদ্যুৎ সংযোগ ফিরিয়ে দেওয়ার কাজ করছেন বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীরা। কিন্তু সেটা যে আদৌ সহজ কাজ নয়, সেই কথাই বলেন আব্দুল গফ্‌ফর। তিনি বলেন, “আমার দলে চার জন রয়েছে। যে পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা ভাবনারও বাইরে। একটা সমীক্ষা করে আমরা দেখেছি যে শুধুমাত্র ভাঙড় এলাকাতেই ৭৫০টি খুঁটি উপড়ে গিয়েছে।”

ঝড়খালির সর্দারপাড়ার বাসিন্দা, ৫২ বছরের লক্ষ্মণ স্বর্ণকার বলেন, “তাণ্ডব চালালেও আমরা আয়লার হাত থেকে বেঁচে গিয়েছিলাম। কিন্তু উম্পুন একদমই আলাদা ছিল। বিকেল চারটের পর ঝড়ের যে গতি দেখলাম, তাতে বুঝে গেলাম যে এ রকম ঝড় এর আগে কোনো দিনও দেখিনি।”

তিনি বলে চলেন, “জল ক্রমশ বাড়ছিল। বড়ো বড়ো ঢেউ আছড়ে পড়ছিল। বাঁধ ভাঙার উপক্রম হয়েছিল। আমরা অন্তত একশো জন মিলে বাঁধ বাঁচাতে নামি। বালির বস্তা দিয়ে কোনো রকমে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়। গ্রামের বাকিরা কাছের ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রে চলে গিয়েছিল।

উল্লেখ্য, দক্ষিণ ২৪ পরগণার ১৪টি ব্লকে এ রকম শ’ দেড়েক ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র রয়েছে। তিন-চার তলা পাকা বাড়ি এগুলো। ভেতরে রয়েছে হল জাতীয় ঘর এবং কমন বাথরুম। ঘূর্ণিঝড়ের সময়ে গ্রামবাসীরা অন্তত মাথা গোঁজার ঠাঁইটা পাবেন।

তবে অন্য বারের থেকে এ বার পরিস্থিতি ভিন্ন ছিল। চার দিকে করোনার হুমকি। শারীরিক দূরত্ববিধি মেনে চলার কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু সেটা কি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রগুলিতে আদৌ সম্ভব!

এই পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও (Narendra Modi)। আকাশপথে পশ্চিমবঙ্গের ঝড়বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করে বসিরহাট কলেজে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, “বাংলাকে দু’ দিক থেকে বিপদের মুখোমুখি হতে হয়েছে। এক দিকে আমরা মানুষকে বলছি বাড়ি থেকে না বেরোতে, আবার অন্য দিকে আমরাই তাদের বাড়ি থেকে বের করে আনছি, ঘূর্ণিঝড় আসছে বলে।”

এ দিকে চার চারটে ঘূর্ণিঝড়ের মুখোমুখি হলেও সমুদ্রের সঙ্গেই বাঁচতে শিখেছেন এখানকার মৎস্যজীবীরা। কিন্তু এ বার তাঁরা যে আতান্তরে পড়েছেন, সে রকম পরিস্থিতিতে বোধহয় আগে কখনও পড়েননি।

সঞ্জয় মৃধা বলেন, “আয়লার পর এক মাস গ্রামে জল ছিল। সেই নিয়েই আমাদের বাঁচতে হয়েছিল। জল কমার পর আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাপন শুরু হয়। কিন্তু এ বার জল কবে নামবে? বিদ্যুৎ না থাকলে তো পাম্পও চলবে না। প্রকৃতির দয়াতেই আমাদের বাঁচতে হচ্ছে।”

এখানকার চাষের জমি এখন জলে ডুবে রয়েছে। বোরো ধান নষ্ট হয়ে গিয়েছে। সেই জমিতেই জাল ফেলছেন মৎস্যজীবীরা।

উম্পুনের দাপটে ঝড়খালির ‘টাইগার রেসকিউ সেন্টার’-এ থাকা একটি বাঘ মারা গিয়েছে বলে জানালেন সর্দারপাড়াই বাসিন্দা সনৎ স্বর্ণকার। তিনি বলেন, “অনেক পশুপাখি মারা গিয়েছে ঝড়ে। আমরা জলের মধ্যে প্রচুর কঙ্কাল ভেসে যেতে দেখেছি।”

বুধবার ঝড়ের পরেই নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলনে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন দুই ২৪ পরগণা ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। কোভিড ১৯ মোকাবিলা করার সময়ে এই ঘূর্ণিঝড়ের কারণে পরিস্থিতি যে আরও খারাপ করে তুলেছে, সেটা ফুটে উঠেছিল মুখ্যমন্ত্রীর কথাতেই।

ঝড়ের কারণে ক্ষয়ক্ষতি কত হয়েছে, সেটা হিসেব করতে অন্তত সাত দিন সময় লাগবে বলে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে সেই সঙ্গে তিনি বলেন, সুন্দরবনে ম্যানগ্রোভের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবং অন্তত তিন কোটি ম্যানগ্রোভ নতুন করে লাগানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ দিকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ত্রাণ নিয়ে ক্ষোভ বাড়ছে মানুষের মধ্যে। কলকাতার মতো শহরেই এখনও অনেক জায়গায় বিদ্যুৎ আসেনি। বিক্ষোভ-প্রতিবাদ হচ্ছে। কিন্তু সুন্দরবনের এই ঝড়খালিতে সরকারের আশায় বসে থাকতে চায় না কেউ। তারা নিজেরাই হাত লাগিয়েছে সব কিছু নতুন করে গড়ে তুলতে। পরের ঘূর্ণিঝড়ে আর কোনো ক্ষয়ক্ষতি যেন না হয়, এটাই তাদের পণ।

খবর সৌজন্য: দ্য প্রিন্ট

দঃ ২৪ পরগনা

কোভিডরোগীদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা চালু করল জয়নগর মজিলপুর পুরসভা

বৃহস্পতিবার থেকে এই কোভিড অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা শুরু করল পুরসভা।

Published

on

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়নগর: করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেড়ে চলেছে সংক্রমিতের সংখ্যা। কোভিডরোগীদের সেবায় এ বার এগিয়ে এল জয়নগর মজিলপুর পুরসভা।

পুরসভার তিনটি অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে একটিকে কোভিডরোগীদের কাজে এ বার থেকে ব্যবহার করা হবে বলে পুরসভা সূত্রে জানা গেল। বৃহস্পতিবার থেকে এই কোভিড অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবার কাজ শুরু করল পুরসভা।

Loading videos...

উল্লেখ্য, দেড়শো বছর পার করা জেলার সবচেয়ে প্রাচীন পুরসভা এই জয়নগর মজিলপুর। ১৪টি ওয়ার্ডের পুরসভার প্রশাসক মণ্ডলীর চেয়ারম্যান সুজিত সরখেল বলেন, এই কঠিন সময়ে আমরা বসে থাকতে পারি না। তাই করোনা সংক্রান্ত কাজে আমরা এগিয়ে এসেছি। কোভিডরোগীদের যাতে ঠিক সময়ে হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়া যায়, তাঁর জন্য এই কোভিড অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা চালু করা হলো।

পুরসভার করোনা সহায়তা কন্টোল রুমে ফোন করে এই সুবিধা পেতে পারবেন এলাকার বাসিন্দারা। আর এই পরিষেবা চালু হওয়ায় খুশি সাধারণ মানুষ।

আরও পড়তে পারেন: কোভিড থেকে নিজেকে এবং অন্যদের সুরক্ষিত রাখতে কী করবেন

Continue Reading

দঃ ২৪ পরগনা

ভোট মিটতেই বিরোধী দল থেকে কয়েকশো কর্মীর তৃণমূলে যোগদান কুলতলিতে

এলাকায় এ বার উন্নয়নের বন্যা বইবে, দাবি তৃণমূল বিধায়কের!

Published

on

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, কুলতলি: বিধানসভা ভোটের ফলাফল বের হওয়ারর পর থেকে শুরু হয়েছে বিভিন্ন দল থেকে তৃণমুলে যোগদান কর্মসূচি।

দীর্ঘ ৪৪ বছর পর বিরোধী দলের হাতে থাকা কুলতলি বিধানসভা এ বার শাসক দলের বিধায়ক পেয়েছে। সেই ঘটনার রেশ ধরেই কুলতলিতে বিরোধী দলের কর্মীরা এখন যোগদান করছে তৃণমূলে।

Loading videos...

বুধবার কুলতলি ব্লকের গোপালগঞ্জ,গুড়গুড়িয়া ভুবনেশ্বরী গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপি ও এসইউসির পঞ্চায়েত সদস্য-সহ প্রায় এক হাজার কর্মী তৃণমূলে যোগদান করেন বলে জানিয়েছেন শাসক দলের স্থানীয় নেতৃত্ব।

এ দিন জামতলায় তৃণমূলের দলীয় অফিসে এই সব কর্মীদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন কুলতলির বিধায়ক গণেশচন্দ্র মণ্ডল। তিনি বলেন, “কুলতলি এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের কর্মকাণ্ডের সঙ্গী হতে এঁরা তৃণমূলে যোগদান করলেন। পিছিয়ে পড়া কুলতলিতে এ বার উন্নয়নের বন্যা বইবে”।

প্রসঙ্গত এই প্রথম মিরাকেল ঘটে গিয়েছে কুলতলিতে। স্রোতের বিপরীতে গিয়ে এই প্রথম সুন্দরবনের কুলতলিতে জয় পেয়েছে তৃণমূল। ১৯৭৭ সাল থেকে গত ৪৪ বছর বিরোধী দলের হাতে থাকা কুলতলি বিধানসভায় এই প্রথম ঘাসফুল ফুটেছে। ১৯৭৭ সাল থেকে টানা ৩৪ বছর এসইউসির হাতে ছিল এই আসনটি। ২০১১ সালে প্রবল পরিবর্তনের ঝড়েও তৃণমূল এখানে জোড়া ফুল ফোটাতে পারেনি। গত ১০ বছর এই আসনটি সিপিএমের হাতে ছিল।

জয়ের পরে নবনির্বাচিত বিধায়ক গণেশচন্দ্র মণ্ডল বলেন, “তৃণমূলনেত্রী ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে মিথ্যা নাটক মানুষ ভালো মনে নেয়নি। আর তাই জনগণ বিপুল ভোটে তৃণমূল প্রার্থীদের আবার জয়ী করে তৃতীয় বারের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্বে বসিয়েছেন। এখন আমার প্রথম কাজ হবে পিছিয়ে পড়া সুন্দরবনের কুলতলিতে উন্নয়ন। এত দিন বিরোধীদের হাতে থেকে কোনো কাজ হয়নি এলাকায়। তাই কুলতলির মানুষকে সঙ্গে নিয়ে এবার কুলতলির উন্নয়ন করব”।

আরও পড়তে পারেন: টিকার কারখানার জন্য জমি দিতেও তৈরি, প্রধানমন্ত্রীকে চিঠিতে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

Continue Reading

দঃ ২৪ পরগনা

সুন্দরবনের পিঁপড়েখালি সেতু ভেঙে গুরুতর জখম ১

ভেঙে গেল দুই ২৪ পরগনার মধ্যে সংযোগকারী সুন্দরবনের পিঁপড়েখালি সেতু।

Published

on

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, সুন্দরবন: আচমকাই ভেঙে পড়ল উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার মধ্যে সংযোগকারী সুন্দরবনের পিঁপড়েখালি সেতু। শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী থানার চড়াবিদ্যা গ্রাম পঞ্চায়েতের ৯ নম্বর কুমড়োখালিতে।

উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালি থানার অন্তর্গত রামপুরবাজার সংলগ্ন বিদ্যাধরী নদীর শাখা নদী এই পিঁপড়েখালি। যোগাযোগের পথকে সুগম করতে এই পিঁপড়েখালি নদীর উপর একটি লোহার সেতু তৈরি করা হয়েছিল ১৯৯৯ সালে বাম আমলে। ২০০০ সালে এই সেতুটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন তৎকালীন মন্ত্রী গণেশ মণ্ডল, কান্তি গঙ্গোপাধ্যায় এবং তৎকালীন বাসন্তীর বিধায়ক সুভাষ নস্কর।

Loading videos...

রামপুরবাজার সংলগ্ন পিঁপড়েখালি সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন পাঁচ হাজারেরও বেশি মানুষ যাতায়াত করেন। এ ছাড়া সাইকেল ও ভ্যান যোগে বহু মানুষ যাতায়াত করেন এই সেতু দিয়ে। আচমকা এই গুরুত্বপূর্ণ সেতুটি ভেঙে পড়ায় চরম অসুবিধায় পড়লো দুই জেলার মানুষ।

সেতু ভেঙে কুমড়োখালি গ্রামের বাসিন্দা অশোক মুখোপাধ্যায় গুরুতর জখম হন। স্থানীয় মানুষ গুরুতর জখম অশোকবাবুকে উদ্ধার করে স্থানীয় সরবেড়িয়া শ্রমজীবী হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভরতি করেন।

এই ঘটনার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে চলে আসেন বাসন্তী থানার আইসি আবদুর রব খান-সহ ব্লক প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিরা। শনিবার সকালেই ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন রাজ্যের প্রাক্তন সেচমন্ত্রী তথা বাসন্তীর প্রাক্তন বিধায়ক সুভাষ নস্কর। ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে সুভাষবাবু বলেন, “দীর্ঘদিন কোনো মেরামতি না হওয়ার ফলে সেতুটি ভেঙে পড়েছে। এখন নৌকায় করে মানুষজন পারাপার হচ্ছে দেখলাম। মঙ্গলবার ও শনিবার রামপুর বাজারে হাট বসে। বহু দূর-দূরান্ত থেকে মানুষজন মালপত্র নিয়ে এই হাটে আসেন। তবে রামপুর বাজারে মালপত্র নিয়ে যেতে সাধারণ মানুষের খুবই অসুবিধা হচ্ছে। আমি এ বিষয়ে প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলেছি, সেতুটি আবার নতুন করে তৈরি করার কথা হয়েছে”।

তবে আপাতত সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য একটি কাঠের সেতু তৈরির করা হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

আরও পড়তে পারেন: হাসপাতালে ভরতির জন্য রোগীর কোভিড পজিটিভ রিপোর্টের দরকার নেই, নতুন নির্দেশিকা

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
বিজ্ঞান1 hour ago

প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজে ২টো আলাদা ভ্যাকসিন নিলে কী ঘটবে, জানাল গবেষণা

রাজ্য2 hours ago

Bengal Corona Update: রাজ্যে আরও বাড়ল সংক্রমণ, তবে কলকাতা-সহ ১০ জেলায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যায় পতন

দঃ ২৪ পরগনা2 hours ago

কোভিডরোগীদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা চালু করল জয়নগর মজিলপুর পুরসভা

sputnik v vaccine
দেশ3 hours ago

Sputnik V: আগামী সপ্তাহেই ভারতের বাজারে তৃতীয় কোভিড ভ্যাকসিন, জানাল কেন্দ্র

দেশ4 hours ago

অমিত শাহকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না? দিল্লি পুলিশে ‘নিখোঁজ ডায়েরি’

ক্রিকেট4 hours ago

ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে হার কেন? অদ্ভুত যুক্তি দিলেন টিম পেইন

মুর্শিদাবাদ5 hours ago

অনাস্থার আগেই মুর্শিদাবাদের জেলা সভাধিপতির পদ থেকে পদত্যাগ শুভেন্দু-ঘনিষ্ঠর

রাজ্য5 hours ago

কোভিডে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত মরণোত্তর দেহ ও অঙ্গদান আন্দোলনের পথিকৃৎ ব্রজ রায়

Madhyamik examination west bengal
শিক্ষা ও কেরিয়ার2 days ago

Madhyamik 2021: আপাতত সম্ভব নয় মাধ্যমিক পরীক্ষা, সরকারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় পর্ষদ

বিজ্ঞান2 days ago

জানেন কি, কোভিড থেকে সুস্থ হওয়ার পর অ্যান্টিবডিগুলি কত দিন পর্যন্ত রক্তে থেকে যায়

দেশ3 days ago

Covid Crisis: সংক্রমণের ধার কমাতে একটি বিশেষ ওষুধে ছাড়পত্র দিল গোয়া, খেতে হবে সবাইকে

শরীরস্বাস্থ্য1 day ago

করোনার এই দুঃসহ সময়ে অক্সিজেন বিপর্যয়ের সহজ সমাধান দিলেন বিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল

বিজ্ঞান2 days ago

রক্তের গ্রুপের উপর কি কোভিড আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, গবেষণায় জানাল সিএসআইআর

প্রযুক্তি2 days ago

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কোভিড অ্যাপ, সহজে জানা যাবে যাবতীয় তথ্য

দেশ2 days ago

Corona Update: দৈনিক সংক্রমণকে ছাপিয়ে গেল সুস্থতা, দু’মাস ধরে টানা বৃদ্ধির পর অবশেষে কমল সক্রিয় রোগী

সম্পর্ক1 day ago

Corona Crisis: এই কঠিন সময়ে কিছু সাধারণ নিয়ম মেনে চললেই সম্পর্ক অটুট থাকবে

ভিডিও

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 months ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা4 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা4 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা4 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা4 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা4 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে