উজ্জ্বল  বন্দ্যোপাধ্যায়, সুন্দরবন: এ বার সুন্দরবনে হয়ে গেল পাখিসুমারি। রাজ্য বন দফতরের উদ্যোগে জলের পাখিসুমারি শেষ  হয়েছে সোমবার।

রাজ্যের প্রধান মুখ্য বনপাল (বন্যপ্রাণ) বিনোদকুমার যাদব বলেন, রাজ্য বন দফতরের উদ্যোগে এই প্রথম রাজ্য জুড়ে এই জলের পাখিসুমারি করা হল। রাজ্য বন দফতর ১২ জানুয়ারি থেকে রাজ্যের বিভিন্ন জলাভূমি, নদীর তীর এবং বঙ্গোপসাগর উপকূলে পাখিসুমারির কাজ শুরু হয়েছিল।

Loading videos...

জেলা ডিএফও-দের তত্ত্বাবধানে এই কাজে বিভিন্ন পাখিপ্রেমী সংস্থা এবং পক্ষী পর্যবেক্ষকদের সাহায্য নেওয়া হয়েছে। প্রতি বছর ২ ফেব্রুয়ারির দিনটিকে আন্তর্জাতিক জলাভূমি দিবস হিসেবে পালন করা হয়। তাই এ বারের সুমারি পর্বে কলকাতার পাখি পর্যবেক্ষদের সংগঠন প্রকৃতি সংসদের সদস্যেরা সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের কোর এলাকায় ব্ল্যাক নেক্‌ড গ্রিবের সন্ধান পেয়েছেন। এটি একটি উল্লেখযোগ্য পর্যবেক্ষণ।

এ ছাড়া দক্ষিণ ২৪ পরগনা বন বিভাগের জম্বুদ্বীপে প্রায় তিন হাজার ‘গ্রেট নট’ প্রজাতির পাখির সন্ধানও পাওয়া গেল। এর আগে ভারতে কখনও এই ধরনের পরিযায়ী প্রজাতিটির এমন বিপুল সংখ্যায় উপস্থিতি দেখা যায়নি। তা ছাড়া সুমারির গোড়াতেই জম্বুদ্বীপে প্রায় ৩ হাজার গ্রেট নটের সন্ধান পান তাঁরা। পাশাপাশি সেখানে রাশিয়া থেকে উড়ে আসা স্তেপ গালও ক্যামেরাবন্দি করেন তাঁরা।

দক্ষিন ২৪ পরগনার ডিএফও মিলন মণ্ডল-সহ বিভিন্ন স্তরের আধিকারিকদের সহায়তায় ওই বনাঞ্চলে এই পাখিসুমারি করা হয়। ডিএফও বলেন, “দক্ষিণ ২৪ পরগনায় এই পাখিসুমারি এই প্রথম। বাঘ, কুমিরের পাশাপাশি এই পাখিসুমারির কাজ করা হল। এই কাজে অভূতপূর্ণ সাড়া পেয়ে আমরা খুশি”।

আরও পড়তে পারেন: নবম-দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য স্কুল চালু করতে চাইছে রাজ্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.