সুন্দরবনে হদিশ মিলল অস্ত্র কারখানার, ধৃত ২

0

ঢোলাহাট (দক্ষিণ ২৪ পরগনা): বড়োসড়ো অস্ত্র কারখানার হদিশ মিলল সুন্দরবনে। ঢোলাহাট থানার আমিরপুর গ্রামের একটি বাড়িতে লুকিয়ে চলছিল ওই অস্ত্র কারখানা। বুধবার সেখানে হানা দিয়ে, প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশি তল্লাশিতে আগ্নেয়াস্ত্র ছাড়াও মিলেছে বোমা তৈরির মশলা। গ্রেফতার করা হয়েছে বেআইনি অস্ত্রের দুই কারবারিকে।

ঢোলাহাট থানা থেকে মাত্র আট কিলোমিটার দূরে রমরমিয়ে চলছিল এই অস্ত্র কারখানা। অথচ স্থানীয় গ্রামবাসী এবং পুলিশ কিচ্ছুটি টের পায়নি।

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে আমিরপুর গ্রামেই একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সেই সংঘর্ষে দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক বোমাবাজিও হয়েছিল। ঘটনার তদন্তে নামে ঢোলাহাট থানার পুলিশ জানতে পারে, গ্রামেরই এক বাড়িতে বোমা ও আগ্নেয়াস্ত্র তৈরির কারখানা রয়েছে। সেখান থেকেই বোমাগুলি কেনা হয়েছিল।

আরও পড়ুন সাধ্বী প্রজ্ঞাকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য রাহুল গান্ধীর

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই বেআইনি অস্ত্র কারখানা থেকে দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন এলাকায় আগ্নেয়াস্ত্র এবং বোমা-গুলি সরবরাহ করা হত। ঢোলাহাট থানার পুলিশের সঙ্গে সুন্দরবন জেলা পুলিশের একটি বিশেষ দল যৌথ ভাবে অভিযান চালিয়ে ওই অস্ত্রকারখানার হদিশ পায়।

তল্লাশি অভিযানে তিনটে বড়ো রাইফেল, একটি ছোটো রিভলভার, দু’টি ওভার সোল্ডার লঞ্চার, তিন হাজারের বেশি তাজা বোমা, বোমা তৈরির মশলা, গান পাউডার, ছ’ প্যাকেট বোমায় ব্যবহারের জন্য লোহার বল, ওয়েল্ডিং মেশিন এবং আগ্নেয়াস্ত্র তৈরির আরও নানা সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

এই ঘটনায় ধৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা রুজু হয়েছে। অভিযুক্ত দু’জনকে বুধবার কাকদ্বীপ এসিজেএম আদালতে তোলা হলে, বিচারক সাত দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.