কলকাতা: মরশুমে প্রথম বার বৃষ্টির পরিমাণে সেঞ্চুরি করল দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জায়গা। একশো মিলিমিটার পেরিয়ে গিয়েছে বৃষ্টির পরিমাণ। ফলে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই সবাই খুশি। অবশেষে মুখ তুলে চেয়েছে বৃষ্টি দেবতা।

বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপের পরোক্ষ প্রভাবে দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলাতেই ভারী বৃষ্টি হয়েছে। সব থেকে বড়ো কথা হল, একেবারে মোক্ষম সময় এই ভারী বৃষ্টি হয়েছে। ফলে কৃষিকাজে যে ক্ষতির আশংকা করা হচ্ছিল, তার থেকে কিছুটা হলেও রেহাই মিলবে বলে আশা করা যায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় সব থেকে বেশি বৃষ্টি রেকর্ড করেছে হুগলির চণ্ডীতলা। সেখানে বৃষ্টি হয়েছে ১৩৯ মিলিমিটার। বৃষ্টির নিরিখে এর পরেই রয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ক্যানিং (১০১ মিমি.)। একশো মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করেছে বাঁকুড়াও।

বৃষ্টির নিরিখে এর পরেই রয়েছে পুরুলিয়া (৭৯ মিমি.), ব্যারাকপুর (৮৪ মিমি.), আসানসোল (৫৪ মিমি.), পানাগড় (৫৪ মিমি.)। এর পাশাপাশি, ভালো বৃষ্টি হয়েছে কাঁথি (৪৬ মিমি), বর্ধমান (৪৪ মিমি.) এবং দিঘাতেও (৪৩ মিমি.)। এই পরিসংখ্যান দেখেই বোঝা যাচ্ছে যে নদিয়া, মুর্শিদাবাদ এবং বীরভূম বাদ দিয়ে দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই প্রবল বর্ষণ হয়েছে।

বৃষ্টির পালা কিন্তু এখনই শেষ হচ্ছে না। এই মুহূর্তে বঙ্গোপসাগরের সেই নিম্নচাপটি মধ্য ভারতে চলে গেলেও, সাগরে নতুন করে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। এর ফলে বৃহস্পতিবার সারাদিনই বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গের সব জেলায়। শুক্রবার বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা কমবে। কিন্তু ১৩, ১৪ এবং ১৫ আগস্ট দক্ষিণবঙ্গে ফের ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। ওই বঙ্গোপসাগরে নতুন করে একটি নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনা রয়েছে।

আরও পড়তে পারেন:

অনুব্রতর গড়ে পৌঁছে গেল সিবিআই, এল কেন্দ্রীয় বাহিনীও

তদন্তকারী অফিসারের ব্যবহার ‘অমানবিক’, তিনি ‘মর্মাহত’, সিবিআইকে চিঠি অনুব্রতর

টেট নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় বিধায়ক মানিক ভট্টাচার্যকে আবারও তলব ইডি-র, তথ্য নিয়ে হাজিরার নির্দেশ

আলমারির লকার ভাঙা, শিক্ষাকেন্দ্র থেকে চুরি কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক-সহ অন্যান্য সামগ্রী, রায়দিঘিতে চাঞ্চল্য

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন