তৃতীয় দফার ভোটের আগে বিস্ফোরক মন্তব্য বিশেষ পর্যবেক্ষকের

0
Ajay Nayek
অজয় নায়েক। ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: “১০ বছর আগে বিহারে যে পরিস্থিতি ছিল, তা এখন বাংলায় রয়েছে”। লোকসভা ভোটে সুষ্ঠু এবং অবাধ ভোটগ্রহণের স্বার্থে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন প্রসঙ্গে এমনই তুলনা টানলেন পশ্চিমবঙ্গের বিশেষ নির্বাচনী পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক।

শনিবার আগামী ২৩ এপ্রিল তৃতীয় দফার ভোটের আগে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে বাড়তি কিছু উদ্যোগ নিয়ে কমিশন জানায়, পাঁচ লোকসভা কেন্দ্রের ভোটগ্রহণে ৯২ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে। বিস্তারিত পড়ুন এখানে ক্লিক করে।

সে প্রসঙ্গে অজয় নায়েক বলেন, “১০ বছর আগে বিহারে যে ধরনের রাজনৈতি পরিস্থিতি ছিল, এখন সেই রকমই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বাংলায়। এটা কিন্তু গণতন্ত্রের জন্য ঠিক নয়। অতি সাধারণ মানুষের সহযোগিতাতেই রাজনৈতিক দল এই পরিস্থিতি বদলে দিতে পারে। ভোটের সময় যদি রাজনৈতিক সন্ত্রাস হয়, তা হলে সাধারণ মানুষের মনে ভীতির সঞ্চার হয়। যে কারণে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট করানোর উপর জোর দেওয়া হয়েছে”।

প্রসঙ্গত এর আগে নায়েক বিহারে দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক ছিলেন। এ দিন একই সঙ্গে কমিশনের তরফে মালদহের পুলিস সুপার অর্ণব ঘোষকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তাঁর জায়গায় নিয়ে আসা হয়েছে অজয় প্রসাদকে। সূত্রের খবর, অর্ণব ঘোষের বিরুদ্ধে উঠেছিল পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ। বিরোধীদের অভিযোগের ভিত্তিতে মালদহের পুলিস সুপারকে সরানোর নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তাঁর বিরুদ্ধে সারদাকাণ্ডে জড়়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

কমিশন সূত্রে খবর, বুধবার রাতে কলকাতায় পৌঁছানোর পর দিন সাত সকালেই নায়েক পৌঁছে যান নেতাজি সুভাষ রোডের রাজ্য মুখ্য নির্বাচনী অফিসারের (সিইও) দফতরে। প্রায় পুরোটা দিনই দফায় দফায় সিইও-র সঙ্গে বৈঠক করেন। একই সঙ্গে তৃতীয় দফায় নিরাপত্তা নিয়ে বিশেষ বৈঠক করেছেন নির্বাচন কমিশনের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবের সঙ্গেও। গোটা পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজখবর নেওয়ার পরই তিনি এ ধরনের মন্তব্য করেছেন বলে ধরে নেওয়া যেতে পারে।

বিস্তারিত আসছে…

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.