বসন্ত এসে গেছে! জানিয়ে দিল তাপমাত্রা

0

ওয়েবডেস্ক: প্রেমের দিনেই হাজির বসন্ত। খাতায়-কলমে শুক্রবার থেকেই শুরু হল বসন্তকাল। কলকাতা এবং দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গার সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও জানিয়ে দিল পয়লা ফাল্গুন থেকেই সরকারি ভাবে বসন্ত শুরু হয়ে গেল দক্ষিণবঙ্গে। উত্তরবঙ্গে যদিও শীতের দাপট চলছে জোরকদমে।

কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা উঠে গিয়েছে ১৫ ডিগ্রির ঘরে। এ দিন শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রাটি এখনও স্বাভাবিকের থেকে দু’ডিগ্রি কম বলে শীতের অনুভূতি এখনও যথেষ্টই রয়েছে।

তবে বাড়ছে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। বৃহস্পতিবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা সাড়ে ২৮ ডিগ্রিতে উঠে গিয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের কিছু জায়গায় সে ৩০ ডিগ্রি ছুঁয়ে ফেলেছে।

রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের তাপমাত্রা কলকাতার থেকে অনেকটাই কম থাকলেও, সেখানেও গত কয়েক দিনের তুলনায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেড়েছে।

দক্ষিণবঙ্গের দুই শীতলতম স্থান যথাক্রমে শ্রীনিকেতন আর পানাগড়ে এ দিন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল সাড়ে ১২ ডিগ্রি আর ১৩.৭ ডিগ্রি। আসানসোলে পারদ বেড়ে ১৪-এ পৌঁছেছে। বাঁকুড়া আর বর্ধমানেও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেড়ে ১৪।

তুলনায় এখনও কম কলকাতার উপকণ্ঠের ব্যারাকপুরের তাপমাত্রা। এ দিন সেখানে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১২.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

কলকাতা থেকে শীত যে এ বার পাকাপাকি ভাবে বিদায় নিল এখনই বলে দেওয়া যায়। এখন তাপমাত্রা ক্রমশ বাড়বে। শুক্রবারই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩০-এর ঘরে চলে যেতে পারে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও বেড়ে ১৭-১৮-তে পৌঁছে যাবে।

আরও পড়ুন বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর প্রথম বড়ো নির্বাচন জম্মু-কাশ্মীরে

অনেকটা একই পরিস্থিতি হবে পশ্চিমাঞ্চলেও। সেখানে যদিও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫-এর নীচে থাকতে, সর্বোচ্চটি বেড়ে ৩০ পেরোতে পারে। অর্থাৎ পুরো দক্ষিণবঙ্গে এখন বসন্ত।

যদিও হাড়কাঁপানো শীত থেকে এখনই নিস্তার নেই উত্তরবঙ্গের। গত কয়েক দিনের তুলনায় এ দিন তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও, এখনও যথেষ্ট শীত রয়েছে তরাই ও ডুয়ার্সের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.