অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

কলকাতা: স্কুল সার্ভিস কমিশনে (SSC) দুর্নীতি মামলায় সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে চার্জশিট পেশ করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ED)। ইডি-র তদন্তকারীরা দাবি করেছেন, এই মামলায় রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায় (Arpita Mukherjee) কার্যত রাজসাক্ষী হওয়ার আবেদন করেছেন।

আলিপুর মহিলা সংশোধনাগারে অর্পিতাকে জেরা করতে গিয়ে এই তথ্য পেয়েছেন তদন্তকারীরা। তাঁর এই আর্জি মেনে নিলে তদন্তে নয়া মোড় আসতে পারে। এ নিয়ে নানা মহলে জল্পনা। কেউ কেউ বলছেন, তা হলে কি ধাপে ধাপে অর্পিতার ভাবমূতি তৈরির চেষ্টা চলছে? ইডি সূত্রে যে ভাবে একের পর এক তথ্য উঠে আসছে, তাতে এই প্রশ্নই উঠছে।

প্রসঙ্গত, টালিগঞ্জে অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে ২১ কোটি ৯০ লাখ নগদ উদ্ধারের পর বেলঘরিয়ায় পাওয়া যায় ২৭ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা। দু’টি ফ্ল্যাট থেকে নগদ প্রায় ৪৯.৮০ কোটি টাকা এবং পাঁচ কোটি টাকার গয়না পার্থের বলে জেলে থাকাকালীন লিখিত বয়ান দেন অর্পিতা। এ ছাড়াও বিদেশি মুদ্রা, জীবন বিমার প্রিমিয়াম, ইত্যাদির হিসেবেও চার্জশিটে জানিয়েছে ইডি।

এর আগেই জানা গিয়েছে, ইডিকে যাবতীয় তথ্য দিয়েছেন অর্পিতা। দিয়েছেন নামের তালিকা। জেরায় অর্পিতার দাবি, ওই টাকা বা গয়না তাঁর নয়। বিভিন্ন সময়ে কিছু লোক ওই টাকা রেখে গিয়েছিলেন। পার্থের স্ত্রী বাবলি চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্য়ুর পর বিভিন্ন কোম্পানিতে শেয়ার হস্তান্তর নিয়েও পার্থ-ঘনিষ্ঠ এক হিসাবরক্ষক তাঁকে চাপ দিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন অর্পিতা।

শুধু তাই নয়, মা হতে চেয়েছিলেন অর্পিতা। তাতে সায় দিয়েছিলেন পার্থ, চার্জশিটে এমনই বিস্ফোরক দাবি করেছে ইডি। চার্জশিটে উল্লেখ করা হয়েছে, মা হতে চেয়েছিলেন অর্পিতা, আর সেখানে নো অবজেকশন সার্টিফিকেট দিয়েছিলেন পার্থ। সন্তান দত্তক নেওয়ার ব্যাপারে পার্থ তাঁকে সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছিলেন। অর্পিতার ওই দত্তক নেওয়ার ক্ষেত্রে ‘নো অবজেকশন সার্টিফিকেট’ বা অনাপত্তি শংসাপত্র দিয়েছিলেন পার্থ।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন