বুলবুলের সামনে ঢাল হয়ে দাঁড়িয়ে মানবসভ্যতাকে ফের একবার বাঁচাল সুন্দরবন

1

ওয়েবডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা, বাংলাদেশের ঢাকা। জনবসতিপূর্ণ দুই শহর। এই দুই শহরের ওপরে ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডব চালালে মহাপ্রলয়ঙ্করী ঘটনা ঘটতে পারত। কিন্তু সেটা হল না, কারণ ঢাল হয়ে দাঁড়িয়ে থাকল সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ। বুলবুলের দাপট নিজে সহ্য করে বাঁচিয়ে দিল মানবসভ্যতাকে।

এক দশক আগে ম্যানগ্রোভে ঘেরা এই সুন্দরবনই ভয়ঙ্কর আয়লা থেকে রক্ষা করেছিল কলকাতা এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ অঞ্চলকে। এ বারও ঘূর্ণিঝড় বুলবুলকে প্রতিহত করতে বুক আগলে দাঁড়াল সেই ম্যানগ্রোভ অরণ্যই। সুন্দরী, গরান, গেঁওয়ার শিকড়, শাখাপ্রশাখার প্রতিরোধে বুলবুলের দাপট অনেকটাই পরাস্ত হল।

আবহাওয়া এবং পরিবেশ বিশেষজ্ঞদের অনেকেরই ধারণা, স্থলভাগে আছড়ে পড়ার পর বুলবুলের যে কিছুটা গতিমুখ পরিবর্তন করেছিল, সেটা ম্যানগ্রোভের জন্যই।

প্রথমে নির্ধারিত ছিল, সাগরদ্বীপে আছড়ে পড়ে উত্তরপূর্ব দিকে এগোবে বুলবুল। এই পথ অনুসরণ করলে, শনিবার রাতে কলকাতার পুরোপুরি পূর্ব দিকে চলে আসতে পারত বুলবুল। তার পর সে ঢাকামুখী হত।

আরও পড়ুন লণ্ডভণ্ড করলেও বুলবুলের জন্যই পরিষ্কার হল কলকাতার বাতাস

কিন্তু ম্যানগ্রোভে আছড়ে পড়ে বুলবুল পূর্ব-উত্তরপূর্বমুখী হয়ে যায়। অর্থাৎ, দুই বাংলার সুন্দরবনই নিজেদের ওপরে যাবতীয় অত্যাচার সহ্য করেছে। সেই সঙ্গে ক্রমে কমেছে তার শক্তিও।

বিশেষজ্ঞদের মতে, শনিবার রাতে কলকাতায় যখন হাওয়ার গতিবেগ আচমকা বেড়ে যায়, তখন বুলবুল ছিল শহরের সব থেকে কাছাকাছি অঞ্চলে। ৭৫ কিমি দক্ষিণপূর্বে ছিল তার অবস্থান। কিন্তু পুরোনো পথ অনুসরণ করলে, সে ওই সময়ে অবস্থান করতে পারত ৫০ থেকে ৬০ কিমি পূর্বে। সে ক্ষেত্রে শহরে আরও বেশি তাণ্ডব চালাতে পারত বুলবুল।

পরিবেশবিদদের দাবি, কঠিন, দৃঢ় শিকড়ের ম্যানগ্রোভ প্রজাতির গাছগুলি সুন্দরবন বদ্বীপকে ঘিরে রয়েছে। তাই শক্তিশালী বুলবুলের যতটা তাণ্ডব দেখানোর ক্ষমতা ছিল, তা পুরোটা দেখাতে পারেনি।

এমনকি সুন্দরবনের যে অঞ্চলে ম্যানগ্রোভ প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছে সেখানে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেকটাই বেশি। পশ্চিমবঙ্গ দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের চেয়ারম্যান কল্যাণ রুদ্র। তিনি বলেন, “জি-প্লট, মৌসুনী, সাগরদ্বীপ এবং লোথিয়ান দ্বীপের একটা বড়ো অংশে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি কারণ সেখানে ম্যানগ্রোভ প্রায় নেই।”

এই প্রসঙ্গেই কল্যাণবাবুর বক্তব্য, “ম্যানগ্রোভ সংরক্ষণ কতটা জরুরি, এই ঘূর্ণিঝড় বুলবুলই সেটা বুঝিয়ে দিয়ে গেল।”

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.