কেন শুধুমাত্র ভবানীপুরে উপনির্বাচন হচ্ছে, কমিশনের জবাব চাইছেন শুভেন্দু অধিকারী

0
মমতা, শুভেন্দু। প্রতীকী ছবি

কলকাতা: ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হতেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। শনিবার নির্বাচন কমিশন (Election Commission) জানায়, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর উপানির্বাচন হবে ভবানীপুরে (Bhabanipur)। দেশের অন্য কোনো কেন্দ্রে না হলেও একমাত্র ভবানীপুরের উপনির্বাচন নিয়ে সরব হয়েছেন বিজেপি নেতৃত্ব।

ভবানীপুর ছাড়াও পশ্চিমবঙ্গের গোসাবা, খড়দহ, শান্তিপুর, দিনহাটা মিলিয়ে পাঁচটি কেন্দ্রে উপনির্বাচন হওয়ার কথা। কিন্তু শুধুমাত্র ভবানীপুরেই উপনির্বাচন হচ্ছে। কমিশনের এমন সিদ্ধান্তে সরব হলেন বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)।

কমিশনের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর সংবাদ মাধ্যমের কাছে শুভেন্দু বলেন, “নির্বাচন কমিশনকে স্পষ্ট করতে হবে দেশের মধ্যে কেন শুধুমাত্র ভবানীপুরে উপনির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল”।

শুভেন্দু বলেন, “বিজেপি-র কথায় চলে না নির্বাচন কমিশন। কিন্তু এটাই তৃণমূল বরাবর বলে এসেছে। আমরা কখনও উল্টোটা বলিনি যে, তৃণমূলের কথায় চলে কমিশন। কী এমন কারণে শুধু ভবানীপুরে উপনির্বাচন করতে হবে তার উত্তর কমিশনই দিতে পারবে”।

Shyamsundar

তিনি আরও বলেন, “জঙ্গিপুর, সামশেরগঞ্জ উপনির্বাচন হচ্ছে না। নির্বাচন হচ্ছে। নির্বাচন কমিশন পরিষ্কার করুক কেন তারা দেশজুড়ে বকেয়া ৩১টি উপনির্বাচনের মধ্যে শুধুমাত্র একটিতে ভোটগ্রহণ করছে”?

রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী এবং তৃণমূলকেও আক্রমণ করেন শুভেন্দু। তিনি বলেন, “রাজ্যের মুখ্যসচিব নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভোটে না জিতলে রাজ্যে সাংবিধানিক সংকট তৈরি হতে পারে”।

তাঁর দাবি, “এই লেখাটাকে আমরা ইস্যু করব। কারণ, তিনি মুখ্যসচিব হয়ে এটা লিখতে পারেন না। পশ্চিমবঙ্গে ২৯৪-এর মধ্যে সাত জায়গায় বিধায়ক নেই। এখানে সাংবিধানিক কী জটিলতা আসবে ? মুখ্যসচিবের এই চিঠি, তার ভিত্তিতে কমিশনের এই স্পেশাল কেস হিসেবে উপনির্বাচন করানো প্রমাণ হয়েছে, এখানে শাসকের আইন চলে। জনগণের আইন চলে না”।

ভবানীপুরে উপনির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হলেও এ রাজ্যের আরও চার মিলিয়ে দেশের ৩১টি কেন্দ্রে উপনির্বাচন আপাতত স্থগিতই রইল। নির্বাচন কমিশন বলেছে, পশ্চিমবঙ্গের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা এবং বিশেষ অনুরোধের কথা বিবেচনা করেই ভবানীপুর কেন্দ্রের জন্য উপনির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে উপনির্বাচনে কঠোর ভাবে কোভিডবিধি মেনে চলতে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, ভবানীপুর কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, বিজেপি এখনও প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেনি।

খবর অনলাইন-এ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ খবর পড়ুন এখানে:

‘বিশেষ অনুরোধ’, একমাত্র মমতার কেন্দ্রেই উপনির্বাচন নিয়ে বলল কমিশন

জল্পনার অবসান! ভবানীপুরের উপনির্বাচন ৩০ সেপ্টেম্বর

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন