chandrababu and mamata
নবান্নয় সাংবাদিক সম্মেলনে চন্দ্রবাবু ও মমতা। ছবি রাজীব বসু।

কলকাতা: গণতান্ত্রিক বাধ্যবাধকতায় এক জোট হওয়ার সময় এসেছে। নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে এই মন্তব্যই করলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডু।

সোমবার মমতা-চন্দ্রবাবু বৈঠকের দিকেই তাকিয়ে ছিল রাজনৈতিক মহল। এ দিন বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ নবান্নে পৌঁছে যান চন্দ্রবাবু। তার পরে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বৈঠক চলে।

বৈঠক যে সফল হয়েছে, প্রথমেই সেটা বলেন চন্দ্রবাবু। এর পরেই একাধিক ইস্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দাগা শুরু করেন তিনি। রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতায় এক জোট হওয়ার সময়ে এসেছে বলে চন্দ্রবাবুর অভিযোগ, “দেশে গণতন্ত্র বিপন্ন। সব প্রতিষ্ঠানকে ভেঙে ফেলা হচ্ছে।”

আরও পড়ুন মায়াজাল চন্দ্রবাবুর : সায় মমতার, জোটে এ বার মায়াবতী?

বিজেপির হাত থেকে দেশকে বাঁচানো তাঁদের দায়িত্ব বলে মন্তব্য করেন চন্দ্রবাবু। সম্প্রতি অন্ধ্রপ্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গ সিবিআইয়ের প্রবেশ আটকেছে। সেই ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে চন্দ্রবাবু বলেন, “বিরোধী রাজনীতিকদেরও সিবিআইয়ের ভয় দেখানো হচ্ছে।”

শীতকালীন অধিবেশনের আগেই সব অ-বিজেপি দলকে নিয়ে বৈঠক ডাকা হবে বলেও মন্তব্য করেন চন্দ্রবাবু।

অন্য দিকে মমতা বলেন, “আগামী দিনের কৌশল নিয়ে আলোচনা হয়েছে।” ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে বিজেপি-বিরোধী দলগুলিকে নিয়ে মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছেন মমতা। দু’একটি দল ছাড়া সেই সমাবেশে সবাইও উপস্থিত থাকবে বলে জানান মমতা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here