নিজস্ব সংবাদদাতা, বর্ধমান: স্বপন পালের  বাড়ি বর্ধমানের মীরছোবা উত্তর এলাকার । যেটা বর্ধমান পুরসভার ১৬ নং ওয়ার্ডের মধ্যে পড়ে। কিছুদিন আগে ওই এলাকায় নতুন করে বাড়ি করেছিলেন স্বপনবাবু। এদিকে রাস্তা উঁচু হয়ে যাওয়ায় বাড়ির মধ্যে গত বর্ষায় বারবার জল ঢুকে গিয়েছিল। ফলে চিন্তিত হয়ে পড়েন তিনি। পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে আলোচনা করে সমস্যা সমাধানের উপায় খুঁজছিলেন।

স্থানীয় রাজমিস্ত্রিদের সঙ্গে কথা বললে তাঁরা জানান বাড়ির মেঝে কিছুটা উঁচু করা সম্ভব কিন্তু তাহলে ঘরের উচ্চতা কিছুটা হলেও কমে যাবে। এদিকে বন্ধুদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন একটি সংস্থা হুগলির ব্যান্ডেলে একটা আস্ত বাড়িকে কিছুটা উপরে তুলে দিয়েছে। সেইমতো ইন্টারনেট ঘেঁটে হরিয়ানার ওই সংস্থার সঙ্গে তিনি যোগাযোগ করেন। তারা তিরিশ দিনের চুক্তির মাধ্যমে বাড়িকে আরো তিন ফুট তুলে দেয়। হাঁপ ছেড়ে বাঁচেন স্বপন বাবু। স্বপন বাবুর প্রতিবেশী দেবু বাগ বলেন, এই রকম দেশীয় প্রযুক্তি আগে কখনো দেখিনি যা  একটা আস্ত দু’তলা বাড়িকে তিন ফুট উচু করে দিতে পারে।

এই প্রযুক্তিতে নিচু এলাকার বাড়িগুলি বর্ষার জলে ডোবার হাত থেকে বাঁচবে। ওই সংস্থার সুপারভাইজার সঞ্জয় কুমার জানান, তাঁদের সংস্থা এই নতুন প্রযুক্তির মাধ্যমে সর্বোচ্চ চারতলা বাড়িকে পনেরো ফুট উঁচুতে ওঠাতে পারে। দরকার পড়লে সেই বাড়িকে নিজের জায়গা থেকে ১৫০মিটার সরিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়। জায়গা অনুযায়ী পারিশ্রমিক ধার্য করেন তাঁরা। তাদের কোম্পানি বাড়ি লিফটিং ও শিফটিং এর কাজ ২০০৮ সাল থেকে করে আসছে। বর্ধমান শহরের এই কাজটি তাদের পশ্চিমবঙ্গের দ্বিতীয় কাজ।

2 মন্তব্য

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন