কলকাতা: বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আবহাওয়ার মেজাজ একটু বদলেছে কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে। যে উত্তুরে হাওয়ার জন্য কার্যত হাপিত্যেশ করা, সেই হাওয়া ঢুকে পড়েছে। বেশ জোরালো ভাবেই বইছে উত্তুরে হাওয়া। তবে সামান্য কিছু বাধা এখনও রয়েছে। সে সব কেটে গেলে চলতি সপ্তাহান্তের পারদ-পতন দেখা যেতে পারে।

আসলে দক্ষিণবঙ্গে এখনও সে ভাবে প্রাক শীতের মেজাজ শুরু না হওয়ার পেছনে কারণ হচ্ছে সেই বঙ্গোপসাগর এবং সেখানে অবস্থানরত একটি নিম্নচাপ। না, এই নিম্নচাপ থেকে পশ্চিমবঙ্গ বা ওড়িশা এমনকি অন্ধ্রপ্রদেশকেও ভয় পাওয়ার কারণ নেই। সে বৃষ্টি দেবে তামিলনাড়ুকে, অক্টোবরে যা খুবই স্বাভাবিক।

কিন্তু সেই নিম্নচাপের কারণে অল্প জলীয় বাষ্প এখনও রয়েছে দক্ষিণবঙ্গের বায়ুমণ্ডলে। আবার এ দিন সকাল থেকে উত্তুরে হাওয়ার গতিবেগ যে বেড়েছে, সেটাও ওই নিম্নচাপেরই কারণে। ভারতের মূল ভূখণ্ড থেকে শুষ্ক হাওয়া ক্রমশ সে টেনে নিচ্ছে নিজের দিকে।

এ দিকে, কলকাতা এবং রাজ্যের উপকূলবর্তী অঞ্চলের ওপরে দুই ধরনের হাওয়ার একটা সংঘর্ষ হচ্ছে। জলীয় বাষ্প ভরা হাওয়া এবং উত্তুরে বাতাসের সেই সংমিশ্রণের ফলে একটা মেঘের চাদর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রয়েছে। সেই মেঘ থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টায় উল্লিখিত অঞ্চলগুলিতে অল্পস্বল্প বৃষ্টিও হতে পারে।

তবে ওই নিম্নচাপটি বঙ্গোপসাগর থেকে সরে তামিলনাড়ুতে ঢুকে গেলেই পশ্চিমবঙ্গের আবহাওয়া পুরোপুরি পরিষ্কার হয়ে যাবে। ফলে শীত শীত ভাবটা বেড়ে যাবে ক্রমশ। আশা করা যায় যে এই সপ্তাহান্তে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রির নীচে চলে যাবে।

আরও পড়তে পারেন

ভবানীপুরে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে তাঁর নাম চর্চায় ছিল, কলকাতা পুরসভার সেই বিজেপি কাউন্সিলর পথ দুর্ঘটনায় প্রয়াত

চিনকে বার্তা, ৫ হাজার কিমি দূরের কোনো লক্ষ্যবস্তুকে আঘাত হানতে সক্ষম অগ্নি ৫-এর সফল উৎক্ষেপণ করল ভারত

গত বুধবার পশ্চিমবঙ্গে কোভিড সংক্রমণের হার ছিল ২.৪৩ শতাংশ, সাত দিন পর কমে হল ২.২৫ শতাংশ

বাংলার পর এ বার গোয়া, ত্রিপুরার ফলাফল বলে দিলেন অনুব্রত মণ্ডল

বিশ্বহিন্দু পরিষদের মিছিল থেকে মসজিদে হামলার ঘটনার পর ১৪৪ ধারা জারি ত্রিপুরার ধর্মনগরে

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন