কলকাতা: বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বর্ধা’ কলকাতার শীত-ভাগ্যকে বড়োসড়ো প্রশ্নচিহ্নের মুখে ফেলে দিতে পারে, এমন আতঙ্কের মধ্যেই শুক্রবার মরশুমের ‘শীতলতম’ দিন দেখল কলকাতা। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নামল ১৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

তবে সর্বনিম্ন তাপমত্রা এখনও স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের মতে, যতক্ষণ না সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের এক ডিগ্রি কম হবে ততক্ষণ সরকারি ভাবে শীত ঘোষণা করা যাবে না। তাই সরকারি ভাবে শীতলতম দিনের প্রসঙ্গও আসে না। গত দেড় মাসে এই প্রথম পনেরোর কোঠায় পৌঁছল কলকাতার তাপমাত্রা।

শুধু কলকাতাই নয়, পারদ নেমেছে গোটা রাজ্যে। দার্জিলিং থেকে দিঘা, বোলপুর থেকে বহরমপুর, কৃষ্ণনগর থেকে কোচবিহার সর্বত্র স্বাভাবিকের থেকে দু’তিন ডিগ্রি করে কম রেকর্ড করা হয়েছে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, আগামী দু’দিন ১৫ ডিগ্রির আশেপাশেই থাকবে শহরের তাপমাত্রা। তার পর রবিবার থেকে ফের দু’এক ডিগ্রি করে বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে পারদের। তবে হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই। আগামী সপ্তাহের মাঝামাঝি আবার নামতে শুরু করবে তাপমাত্রা।

ঘূর্ণিঝড় ‘বর্ধা’র খবর

আন্দামান দ্বীপপুঞ্জকে ভাসিয়ে এই মুহূর্তে অন্ধ্র উপকূলকে পাখির চোখ করেছে ঘূর্ণিঝড় ‘বর্ধা’। উপগ্রহচিত্র বিশ্লেষণ করে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শুক্রবার দুপুরে পোর্ট ব্লেয়ার থেকে আড়াইশো কিমি পশ্চিমে আর বিশাখাপত্তনম থেকে ৯৯০ কিমি দক্ষিণপূর্বে বঙ্গোপসাগরের মধ্যে অবস্থান করছে। ঘূর্ণিঝড়টি আরও শক্তি বৃদ্ধি করে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। সোমবার ১২ ডিসেম্বর, অন্ধ্র প্রদেশের নেলোর আর কাঁকিনাড়ার মধ্যে দিয়ে স্থলভূমিতে প্রবেশ করবে। এর প্রভাবে রবিবার রাত থেকে ঘণ্টায় ৫০ থেকে ৬০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে প্রবল বৃষ্টি শুরু হবে অন্ধ্রপ্রদেশে।

তবে ‘বর্ধা’র প্রভাবে দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়ার খুব একটা অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। জলীয় বাষ্পের প্রভাবে রবিবার দক্ষিণবঙ্গের আকাশে মেঘ ঢুকবে, দু’এক পশলা বৃষ্টির সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here