প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: সোমবার সকাল থেকেই ইঙ্গিতটা পাওয়া যাচ্ছে। আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গে কিছুটা বাড়তে পারে শীতের প্রকোপ। কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর থেকে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা, সবাই এই ব্যাপারে একমত হয়েছে। অন্য দিকে জব্বর ঠান্ডা জারি রয়েছে উত্তরবঙ্গে।

সোমবার সকাল থেকে কিছুটা গতি বেড়েছে উত্তুরে হাওয়ার। ফলে এ দিন কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা আবার কুড়ির নীচে নেমে গিয়েছে। এ দিন আলিপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৯.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, অন্য দিকে দমদমের পারদ নেমেছে ১৯.৪ ডিগ্রিতে। বুধবার পর্যন্ত সর্বনিম্ন তাপমাত্রা এমনই থাকবে বলে জানিয়েছে ওয়েদার আল্টিমা। বৃহস্পতিবার থেকে পারদ আরও কিছুটা কমতে পারে।

আরও পড়ুন গত কুড়ি দিনে সোমবারই শ্রেষ্ঠ সকাল পেল কলকাতা

ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা জানিয়েছেন, বৃহস্পতি-শুক্রবার কলকাতার পারদ ১৬-১৭ ডিগ্রির কাছাকাছি নেমে যেতে পারে। পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা আরও নামবে। বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বর্ধমান, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমে যেতে পারে ১৩-১৪ ডিগ্রিতে। কিছু দিন আগেই হিমাচল, উত্তরাখণ্ড, কাশ্মীরে প্রবল তুষারপাত হয়েছে। তার প্রভাবেই উত্তুরে হাওয়া ঢুকতে শুরু করবে রাজ্যে। সেই কারণেই কমবে পারদ। তবে এই পারদ পতন নিতান্ত সাময়িক। সামনের সপ্তাহের গোড়া থেকেই আবার বাড়বে তাপমাত্রা। দক্ষিণবঙ্গে শীত থিতু হতে এখনও বেশ কিছু দিন সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু।

কাঁপছে দার্জিলিং, উত্তরবঙ্গে জব্বর ঠান্ডা

সিকিমের সদ্য তুষারপাত উত্তুরবঙ্গে জোর ঠান্ডা এনে দিয়েছে। পাহাড় তো শীতে কাঁপছে। সোমবার সকালে দার্জিলিং-এর সর্বনিম্ন পারদ রেকর্ড করা হয় ৩.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কালিম্পং-এ সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১ ডিগ্রি। সমতলেও শীত বেড়েছে। এ দিন সকালে শিলিগুড়ির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়াও জলপাইগুড়িতে ১৩.৭ এবং কোচবিহারে ১৪.১ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।

আগামী কয়েক দিন উত্তরবঙ্গে এমনই ঠান্ডা বজায় থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here