extreme heat in bengal

ওয়েবডেস্ক: গত দেড় সপ্তাহ মোটামুটি স্বস্তিদায়ক আবহাওয়া পেয়েছে গোটা দক্ষিণবঙ্গই। কলকাতায় পর্যাপ্ত পরিমাণ বৃষ্টি না হলেও তাপমাত্রা ছিল এক্কেবারে হাতের নাগালে। স্বাভাবিকের বেশ কয়েক ডিগ্রি কমই ছিল পারদ। অন্য দিকে জেলাগুলিতে অনবরত ঝড়বৃষ্টি হয়েছে। এই আবহাওয়া এ বার বদলাতে শুরু করেছে। গোটা দক্ষিণবঙ্গ জুড়েই এ বার ক্রমশ বাড়বে পারদ। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়বে তাপমাত্রা। ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলেও তা অতি সামান্য।

রবিবার থেকেই গরমের দাপট দেখতে শুরু করেছে কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গ। পারদের ঊর্ধ্বমুখী যাত্রা এ বার বজায় থাকবে বলেই মনে করছে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা।

আগামী কয়েক দিনে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপপ্রবাহের মতো পরিস্থিতিরও সৃষ্টি হতে পারে বলে মনে করছেন ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। তাপমাত্রা বাড়ার পেছনে সব থেকে বড়ো কারণটি হল ঘূর্ণাবর্তের দুর্বল হয়ে যাওয়া।

বেশ কিছু দিন ধরেই ছোটোনাগপুর মালভূমি অঞ্চলে একটি ঘূর্ণাবর্ত ছিল। তার প্রভাবে মাঝেমধ্যেই ঝড়বৃষ্টির মেঘ তৈরি হচ্ছিল। কলকাতা পর্যন্ত সেই মেঘ অনেকাংশেই পৌঁছোতে না পারলেও পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে ভালো ঝড়বৃষ্টি দিয়েছে। সেই ঘূর্ণাবর্ত দুর্বল হয়ে যাওয়ার ফলে মধ্য ভারত থেকে গরম হাওয়া ঢুকতে শুরু করবে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। এর ফলে ক্রমশ বাড়বে তাপমাত্রা।

রবীন্দ্রবাবুর কথায়, “আগামী কয়েক দিন পশ্চিমাঞ্চলে পারদ ৪২ ডিগ্রি পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারে। অন্য দিকে কলকাতা তথা পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে পারদ পৌঁছোতে পারে ৩৯ থেকে ৪০ ডিগ্রিতে।” তবে এই কয়েক দিনে বিকেলে ঝড়বৃষ্টির একটা হালকা সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু তাতে স্বস্তি মিলবে খুবই কম।

তবে এই সপ্তাহের শেষের দিকে ফের গরম কমতে পারে বলেই জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। সেই সঙ্গে ভালো ঝড়বৃষ্টিরও সম্ভাবনার আভাস দেওয়া হয়েছে। ছোটোনাগপুরে নতুন একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হতে পারে, তার ফলেই সপ্তাহের শেষের দিকে ফিরবে কালবৈশাখী।

অতএব আপাতত দিনের বেলায় গরমের সঙ্গে অস্বস্তিকর আবহাওয়ার জন্যই প্রস্তুতি নিক দক্ষিণবঙ্গ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here