বিক্ষিপ্ত ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলেও বুধবার থেকে ক্রমশ চড়বে পারদ

0
1074
hot and rain

ওয়েবডেস্ক: বিক্ষিপ্ত ঝড়বৃষ্টির প্রভাবে এখনও সে ভাবে গরমের স্বাদই পায়নি পশ্চিমবঙ্গ। কিন্তু এ বার গরম পড়বে। বুধবার থেকে দক্ষিণবঙ্গে ক্রমশ পারদ চড়বে বলে জানা গিয়েছে, অন্য দিকে উত্তরবঙ্গে এখনও আরামদায়ক আবহাওয়াই বজায় থাকবে।

গত শনিবার মরশুমের তৃতীয় কালবৈশাখীর মুখোমুখি হয়েছিল কলকাতা-সহ সমগ্র দক্ষিণবঙ্গ। মরশুমের সব থেকে বেশি বৃষ্টি ওই দিনই হয়েছিল গোটা অঞ্চলে। সব থেকে বেশি ৫৫ মিমি বৃষ্টি হয়েছিল কৃষ্ণনগরে। তা ছাড়া দক্ষিণবঙ্গের বাকি অঞ্চলে গড়ে কুড়ি থেকে তিরিশ মিলিমিটার করে বৃষ্টি হয়েছিল। তবে এ সবের মধ্যেই বঞ্চিত ছিল কলকাতা। ঝড়বৃষ্টি কলকাতাকে পাশ কাটিয়ে বেরিয়ে যাওয়ায় মাত্র তিন মিলিমিটার বৃষ্টিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় কলকাতাকে।

তবে বৃষ্টির স্বাদ কলকাতা এখনও না পেলেও ঝড়ের সুবাদে তাপমাত্রা অনেকটাই কমে গিয়েছে। কিন্তু এই সুখের স্থায়িত্ব আর বেশি দিন নেই। কারণ পারদ যে চড়বেই সেটা এক কথায় বলে দিয়েছেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা।

রবীন্দ্রবাবুর মতে, আর্দ্রতা এবং গরম হাওয়ার মিলিয়ে আগামী কয়েক দিন অসহ্যকর গরম অনুভূত হতে পারে কলকাতায়। তিনি বলেন, “বাংলাদেশ এবং উত্তর-পূর্ব ভারতের ওপরে ঘূর্ণাবর্তের জন্য দক্ষিণবঙ্গের বায়ুমণ্ডলে প্রচুর জলীয় বাষ্প থাকবে, সেই সঙ্গে মধ্য ভারত থেকে বয়ে আসবে গরম হাওয়াও। দুইয়ের প্রভাবে বুধবারের পর থেকে কলকাতায় বাড়বে তাপমাত্রা।” পারদ বাড়তে বাড়তে বাড়তে ৩৯ ডিগ্রিতেও পৌঁছে যেতে পারে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু।

তবে কলকাতায় ৩৯ ডিগ্রি হলেও, পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে চল্লিশ ছাড়িয়ে যেতে পারে। পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলি, অর্থাৎ বাঁকুড়া, বর্ধমান, পুরুলিয়া, বীরভূমে জলীয় বাষ্পের প্রভাব ক্রমশ কমে যাবে, কিন্তু মধ্য ভারত থেকে গরম হাওয়া ঢুকতে শুরু করবে। এর ফলে বাড়বে তাপমাত্রা। তবে এই সবের মধ্যে যে কিছুটা স্বস্তির খবর রয়েছে সেটা হল, সোমবার এবং মঙ্গলবার কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ঝড়বৃষ্টি হতে পারে বৃহস্পতিবারও, তবে সেটা সাময়িক স্বস্তি নিয়ে আসতে পারে, দীর্ঘায়িত নয়।

কিন্তু এই গরম পড়াও খুব দরকার, এমনই মনে করেন রবীন্দ্রবাবু। কারণ দক্ষিণবঙ্গে ঝড়বৃষ্টির অন্যতম কারণ হচ্ছে ঝাড়খণ্ডের ছোটোনাগপুর মালভূমি গরম হয়ে যাওয়া। তাপমাত্রা যত বাড়বে তত তেতেপুড়ে উঠবে ছোটোনাগপুরের পাথুরে জমি, ততই বাড়বে ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা।

তবে উত্তরবঙ্গে এখনও স্বস্তিদায়ক আবহাওয়াই বজায় থাকবে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩-এর বেশি বাড়বে না। বাংলাদেশের স্থিত ঘূর্ণাবর্তটির প্রভাবে মাঝেমধ্যেই ঝড়বৃষ্টি হানা দিতে পারে শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি-আলিপুরদুয়ার-কোচবিহারে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here