বিনয়কৃষ্ণ বর্মণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, জলপাইগুড়ি: গত শনিবার জলপাইগুড়ি জেলার বনাঞ্চলগুলিতে পর্যটকদের প্রবেশে তিন মাসের জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। সেই নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ইতিউতি বিতর্ক দেখা দেওয়ার পর মুখ খুললেন বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মণ।

বনমন্ত্রী জানান, আগামী তিন মাস  গরুমারা জাতীয় উদ্যান, নেওড়াভ্যালি জাতীয় উদ্যান, চাপড়ামারি অভয়ারণ্য, জেলার এই তিনটি বনাঞ্চল যে কোনো ধরনের সাফারি বন্ধ থাকবে। তবে শুধু জলপাইগুড়ি নয়, আলিপুরদুয়ার, দার্জিলিং-সহ গোটা রাজ্যের সবগুলি বনাঞ্চলের ক্ষেত্রেই এই নির্দেশ জারি হয়েছে। আগামী  ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ফের খুলবে জঙ্গলগুলি।

মন্ত্রী বলেন, “একটি বিশেষজ্ঞ দলকে দিয়ে সার্ভে করানো হয়েছিল। সেই রিপোর্ট বন দফতরের কর্তাদের কাছে পৌঁছে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং পর্যটন শিল্পের হাল ফেরাতে উদ্যোগী। কিন্তু ওই রিপোর্ট অনুযায়ী প্রাণীবিজ্ঞানীদের পরামর্শ মতোই বন্যপ্রাণীদের প্রজননের সুবিধার্থে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে পর্যটন ব্যবসায়ীদের তরফে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু নিষেধা়্জ্ঞা প্রত্যাহারের কোনো পথ নেই। জঙ্গলের মধ্যে কোনো গাড়ি চলবে না। অর্থাৎ, যে কোনো ধরনের সাফারি বন্ধ থাকবে”। বাকিটা দেখুন ভিডিওয়…

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here